13.5 C
Toronto
রবিবার, মে ১৯, ২০২৪

বাথরুমে চুল কেটে প্রেমিকাকে শিকলে বন্দী, পুলিশের ‘শ্বাসরুদ্ধকর’ অভিযান

বাথরুমে চুল কেটে প্রেমিকাকে শিকলে বন্দী, পুলিশের ‘শ্বাসরুদ্ধকর’ অভিযান
শিকল দিয়ে বেঁধে এভাবেই ঘরে আটকে রাখা হয়েছিল সেই নারীকে

দ্বন্দ্বের একপর্যায়ে প্রেমিকাকে বাথরুমে নিয়ে চাপাতি দিয়ে চুল কেটে দেন প্রেমিক। এতে একসঙ্গে থাকা প্রেমিকা সেই বাসা ছেড়ে চলে যান। পরের দিন আসেন নিজের জরুরি জিনিসপত্র নিতে। আর তখনই তার গলায় শিকল দিয়ে তালাবদ্ধ করে ফেলেন প্রেমিক। ঘরের মেঝেতে সেই শিকল আটকে রাখেন। এভাবে সেখানে দুই দিন বন্দী অবস্থায় কেটে যায় ওই নারীর।

যুক্তরাষ্ট্রের কেনটাকিতে ঘটনাটি ঘটেছে বলে জানায় দেশটির সংবাদমাধ্যম নিউইয়র্ক পোস্ট। প্রতিবেদনে বলা হয়, ওই নারীর সাহায্যের আর্তনাদ শুনতে পান প্রতিবেশীরা। তারাই পুলিশে খবর দেন। স্থানীয় সময় গত বুধবার লুইসভিল মেট্রো পুলিশ কর্মকর্তারা দ্বিতল ওই বাসার ভাঙা জানালা দিয়ে ভেতরে প্রবেশ করে সেই নারীকে উদ্ধার করেন।

- Advertisement -

পুলিশ জানায়, তারা দরজা-জানালা ভেঙে বাড়িতে প্রবেশ করার চেষ্টা করছিলেন। কিন্তু পুরো বাড়িই প্রাচীর দিয়ে আটকানো ছিল। তাই তারা ভেতরে প্রবেশ করতে পারছিলেন না। পরে বন্দী ওই নারীই তখন দ্বিতীয় তলার কাচের জানালা ভেতর থেকে ভেঙে ফেলেন। পরে এক প্রতিবেশী মই নিয়ে এগিয়ে আসেন।
এই দ্বিতল বাসায় বন্দী ছিলেন সেই নারী

একটি ভিডিও ফুটেজে দেখা যায়, একজন পুলিশ সদস্য সেই মই বেয়ে ওপরে উঠে ভাঙা জানালা দিয়ে নারীর ঘরে প্রবেশ করেন। পরে একে একে পুলিশের অন্য সদস্যরা সেখানে যান। এ সময় তারা দেখতে পান, ওই নারীর গলা শিকল দিয়ে তালাবদ্ধ। তিনি যাতে বাইরে যেতে না পারেন, এ জন্য সেই শিকল মেঝেতে লোহার সঙ্গে আটকে রাখা ছিল। পরে শিকল ভেঙে সেই নারীকে উদ্ধার করা হয়। এ সময় তিনি কেঁদে কেঁদে পুলিশ সদস্যদের ধন্যবাদ জানান।

ভিডিওতে দেখা যায়, ওই নারীকে উদ্ধার করে ঘরের বাইরে নিয়ে আসেন পুলিশ সদস্যরা। চাবি না থাকায় গলায় শিকলে বাঁধা তালা ভেঙে ফেলেন তারা।

পুলিশ জানায়, ওই নারীকে উদ্ধারের দুই দিন পর তার প্রেমিক ও বাড়ির মালিক মোসেস মে-কে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তাদের একজন সন্তানও রয়েছে। এরই মধ্যে মের বিরুদ্ধে অপহরণ, নিপীড়নসহ একাধিক অভিযোগ আনা হয়েছে।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles