26.4 C
Toronto
মঙ্গলবার, মে ২১, ২০২৪

রাজকে ‘কপি পেস্ট’ পরিচালক বলে ক্ষোভ ঝাড়লেন তারই ছবির নায়ক! নেপথ্যে কী?

রাজকে ‘কপি পেস্ট’ পরিচালক বলে ক্ষোভ ঝাড়লেন তারই ছবির নায়ক! নেপথ্যে কী?

সম্প্রতি সামাজিক মাধ্যমে বিস্ফোরক এক পোস্ট লেখেন টলিউড অভিনেতা রাহুল বন্দোপাধ্য়ায়। নাম না করেই তিনি বেঁধেন পরিচালক রাজ চক্রবর্তীকে। রাহুলের ‘আবার প্রলয়’ ছবির ট্রেলার প্রকাশ হওয়ার পরই তিনি লেখেন, ‘যে একদা কপি করিত, সে আজও কপি করে। শুধু তামিল ছেড়ে স্যাক্রেড গেমসের পঙ্কজ ত্রিপাঠীর লুক কপি করে। এটাই যা।’

- Advertisement -

পরিচালক তথা চিত্রনায়িকা শুভশ্রী গাঙ্গুলীর স্বামী রাজকে আক্রমণ করেই এ কথা লিখেছেন রাহুল, তা একেবারেই স্পষ্ট। এবার এক সাক্ষাৎকারে সরাসরি ‘চিরদিনই তুমি যে আমার’ পরিচালককে বিঁধলেন সেই ছবিরই নায়ক রাহুল। এই অভিনেতার চলচ্চিত্র যাত্রা শুরুই হয়েছিল রাজের ‘চিরদিনই তুমি যে আমার’-এর মাধ্যমে।

যার হাত ধরে শুরু, তাকেই ‘কপি পেস্ট’ পরিচালক বলে আক্রমণ করলেন রাহুল! এ নিয়ে সমালোচনার শিকার অভিনেতা। কিন্তু কেন নিজের প্রথম ছবির পরিচালককে এভাবে আক্রমণ করলেন রাহুল? নেপথ্যে কী?

এ সদ্য দেয়া এক সাক্ষাৎকারে রাহুল বলেন, ‘আমি ইঙ্গিত করিনি, রাজকে উদ্দেশে করেই বলেছি। মানুষ বলছে, আমি যার সিনেমা দিয়ে ক্যারিয়ার শুরু করেছি, তাকে নিয়ে এসব কেন বললাম। সবার প্রথম কথা, যদি শুরু করেও থাকি, তাহলেও যেটা কপি সেটা তো কপিই।’

এরপরই রাজের বিরুদ্ধে ভয়ংকর অভিযোগ করেন রাহুল। তিনি বলেন, ‘মানুষের স্মৃতি তো খুব কম, আমি মনে করিয়ে দিচ্ছি। ২০০৮-এর আগস্টে আমাদের ছবি ‘চিরদিনই তুমি যে আমার’ মুক্তি পায়। পরের বছরের জানুয়ারিতে একটি দৈনিক পত্রিকায় সাক্ষাৎকার দেন রাজ। বলেন, রাহুল একটা অসৎ ছেলে। খুব খারাপ একটা মানুষ। আমি ভবিষ্যতে ওকে কোনো কাজ তো দেবই না। আমি চাইব না ওকে কেউ কাজে নিক।’

রাহুল বলেন, ‘আমার বাবা তখন বেঁচে ছিলেন। উনি খুব আঘাত পান রাজের এসব কথা শুনে। ওই সংবাদপত্র সবার বাড়িতে যায়, সবার সামনে উনি (রাজ) আমাকে অসৎ বলে দিলেন।’

রাহুল মনে করিয়ে দেন, ‘সেই ঘটনার পর ১৫ বছর আমি ইন্ডাস্ট্রিতে টিকে রয়েছি। আর যাই হোক আমাকে অন্য কেউ অসৎ বলেনি। অনেক পরিচালক আমাকে বহুবার কাস্ট করেছেন। আমি নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছি নিজের চেষ্টায়। ১৫ বছর ধরে কেউ ঘি খেতে পারে না। এখন আর ‘চিরদিনই তুমি যে আমার’ হাওয়ায় রাহুল ভেসে বেড়াচ্ছে না।’

রাহুল এও বলেন, ‘রাজের ওই সাক্ষাৎকারের পর অবসাদগ্রস্ত হয়ে পড়েছিলাম। আমি যদি গ্রামের ছেলে হতাম, এই শহরে একা এসে স্ট্রাগল করতাম, আমার যা ডিপ্রেশন হয়েছিল সেই সময়, যদি আমার বাবা-মা পাশে না থাকতেন, প্রিয়াঙ্কা পাশে না থাকত, তাহলে এই শহরে একটা সুশান্ত সিং রাজপুত হতে পারত।’

১৫ বছর পরেও পরিচালক রাজ চক্রবর্তীর কটাক্ষ ভুলতে পারেননি রাহুল। তার কথায়, ‘উনি আমাকে আঘাত করেছিলেন, আমি অপেক্ষা করেছিলাম।’ কিন্তু ব্যক্তিগতভাবে এ ব্যাপারে কেন রাজের সঙ্গে কখনো কথা বলেননি রাহুল? তার কথায়, ‘রাজ যা বলেছেন তা তো ৮ কোটি মানুষ পড়েছে, তাই ব্যক্তিগতভাবে ক্ষমা চাইলেও সেটা বদলে যাবে না।’

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles