19.7 C
Toronto
বৃহস্পতিবার, জুলাই ১৮, ২০২৪

মেয়েদের প্রাণের মানুষই মেয়েদের খুনি!

মেয়েদের প্রাণের মানুষই মেয়েদের খুনি!

মেয়েদের কাছের মানুষেরাই মেয়েদের সবচেয়ে বড় শত্রু। মেয়েদের প্রাণের মানুষই মেয়েদের খুনি। মেয়েদের যারা সবচেয়ে বেশি খুন করে, ধর্ষণ করে, অত্যাচার করে, নির্যাতন করে তারা মেয়েদের স্বামী, নয়তো প্রেমিক। বাপ, ভাইও মেয়েদের খুন করে, কিন্তু স্বামী বা প্রেমিক যত করে, তত করে না। খুন করার পর মেয়েদের শরীরকে কেটে টুকরো টুকরো করে যারা ফ্রিজারে রেখে দেয় বা জঙ্গলে ছুড়ে ফেলে দেয়, তারা অধিকাংশই মেয়েদের স্বামী বা প্রেমিক।

- Advertisement -

মেয়েরাই ভালোবেসে তাদের খুনির সঙ্গে, তাদের ধর্ষকের সঙ্গে, তাদের নির্যাতকের সঙ্গে এক ছাদের তলায় বাস করে। পৃথিবীর আর কোনও প্রাণী মেয়েদের মতো এতো আত্মঘাতী নয়।

যে মেয়েরা অত্যাচারী স্বামী বা প্রেমিকের সঙ্গে রয়ে যায়, তারা ভাবে কোনো একদিন স্বামী বা প্রেমিক বদলাবে। অত্যাচারীরা বদলায় বটে, তবে সে বদলটা অত্যাচার থামিয়ে নয়, বরং বাড়িয়ে। মেয়েরা কিন্তু বদলায়, অত্যাচার সইতে সইতে অত্যাচারে অভ্যস্ত হয়ে ওঠে। আগে গালে দুটো চড় পড়লে কেঁপে উঠতো, পরে পিঠে দশ লাথি খেলেও কিছু মনে হয় না।

একবার নির্যাতন করলেই নির্যাতককে ত্যাগ করা উচিত। আমার জীবনে আমি সেটিই করেছি। আনফেইথফুল প্রেমিক বা স্বামীর জীবন থেকেও আলগোছে নিজেকে সরিয়ে নিয়েছে। আমি জানি, যৌবনে ওই সিদ্ধান্তটি না নিলে আজ অবধি দুঃসহ সম্পর্কটিকে বয়ে বেড়াতে হতো। লেখক: কথাসাহিত্যিক। ফেসবুক থেকে

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles