ভাত বেশি খাওয়ায় চালের দাম বেড়েছে এটা বলিনি: কৃষিমন্ত্রী

- Advertisement -

কৃষিমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক

‘ভাত বেশি খাওয়ার কারণে চালের দাম বেড়েছে’ এমন কথা কখনও বলেননি বলে দাবি করেছেন কৃষিমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক। তিনি বলেন, একটি ‘ভূঁইফোড় পত্রিকা’ তাকে উদ্ধৃত করে এ ধরনের খবর ছেপেছে।

শুক্রবার রাজধানীর সিরডাপ মিলনায়তনে আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ উপ কমিটি আয়োজিত এক সেমিনারে কৃষিমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

- Advertisement -

যুক্তরাজ্যের গ্লাসগোতে ৩১ অক্টোবর থেকে শুরু হতে যাওয়া জলবায়ু সম্মেলন বা কপ-২৬ উপলক্ষে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক উপকমিটি এ সেমিনারের আয়োজন করে।

এর আগে, চালের সঙ্কট কমাতে কৃষিমন্ত্রী দেশের মানুষকে ‘ভাত কম খাওয়ার’ পরামর্শ দিয়েছেন জানিয়ে সম্প্রতি বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে খবর প্রকাশ হয়। ওই খবরের পরিপেক্ষিতে সোশ্যাল মিডিয়াজুড়ে সমালোচনার সৃষ্টি হয়।

- Advertisement -

পরে গত বৃহস্পতিবার (২৮ অক্টোবর) রাতে সংবাদমাধ্যমে পাঠানো মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে কৃষিমন্ত্রীর বক্তব্যকে ‘ভুলভাবে’ উদ্ধৃত করা হয়েছে বলে দাবি করা হয়।

- Advertisement -

পরদিন বন ও পরিবেশ উপ-কমিটির সেমিনারে কৃষিমন্ত্রী বলেন, মানুষের পুষ্টির চাহিদা মেটানোর কথা বলেছি। ভাত বেশি কিংবা চালের দাম নিয়ে কোনো কথা আমি কোনো দিনই বলিনি, আমি এ প্রসঙ্গই আনিনি।

তিনি বলেন, একটি ভূইফোঁড় পত্রিকা তারা নিউজ করেছে আমি নাকি বলেছি, মানুষ ভাত বেশি খায় এ জন্য চালের দাম বেড়ে গেছে। এ ধরনের কথা আমি কোনোদিনই বলিনি। আমি এ প্রসঙ্গই আনিনি।

জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ এখন আর বিদেশি সাহায্যের উপর নির্ভরশীল নয়। জলবায়ু পরিবর্তনের ক্ষতি মোকাবেলায় বিদেশি সাহায্য না আসলে আমরা নিজস্ব অর্থে মোকাবেলা করতে পারব।

মন্ত্রী বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাব মোকাবেলায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্ব বর্তমান সরকার ক্লাইমেট চেঞ্জ স্ট্র্যাটেজিক প্ল্যান ও অ্যাকশন প্ল্যান প্রণয়ন, ৭০০ কোটি টাকার জলবায়ু পরিবর্তন ট্রাস্ট ফান্ড গঠনসহ ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। সেগুলোর বাস্তবায়ন সফলভাবে এগিয়ে চলেছে।

মন্ত্রী বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে দেশের কৃষিখাত সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হবে। কৃষিকে এই ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা করার জন্য আমরা সবিশেষ গুরুত্ব দিয়ে কাজ করছি।

বন ও পরিবেশ বিষয়ক উপকমিটির চেয়ারম্যান অধ্যাপক খন্দকার বজলুল হকের সভাপতিত্বে ও বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেনের সঞ্চালনায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক এএসএম মাকসুদ কামাল, সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক সাদেকা হালিম, বাংলাদেশ সেন্টার ফর অ্যাডভান্সড স্টাডিজের নির্বাহী পরিচালক ড. আতিক রহমান, জনকণ্ঠের চিফ রিপোর্টার কাওসার রহমান আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন। মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক দেলোয়ার হোসেন।

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles