18.5 C
Toronto
বুধবার, জুন ১২, ২০২৪

ফেসবুক লাইভে আরাভ খান : ৩৭ দিন জেল খেটে বেরোলাম, বড় বড় মাফিয়া পেয়েছি

ফেসবুক লাইভে আরাভ খান : ৩৭ দিন জেল খেটে বেরোলাম, বড় বড় মাফিয়া পেয়েছি
<br >ফেসবুক লাইভে এসে আবারো আলোচনায় পুলিশ কর্মকর্তা মামুন খান হত্যা মামলায় পলাতক আসামি রবিউল ইসলাম ওরফে আরাভ খান

ফেসবুক লাইভে এসে আবারো আলোচনায় পুলিশ কর্মকর্তা মামুন খান হত্যা মামলায় পলাতক আসামি রবিউল ইসলাম ওরফে আরাভ খান। দীর্ঘদিন পর হঠাৎ লাইভে এসে জানালেন, ১ মাস ৭ দিন ইন্টারপোলের হেফাজতে জেলে ছিলেন।

পুলিশ হত্যার মামলায় তার জড়িত থাকার বিষয়টি সামনে আনা এবং ৩৭ দিন দুবাইতে জেলে থেকেছেন দাবি এর জন্য সাংবাদিকদের দায়ী করে ক্ষোভ ঝেড়েছেন পলাতক এই আসামি। দেখে নেওয়ার হুমকিও দিয়েছেন তিনি। বাংলাদেশের জেলায়-জেলায়, থানায়-থানায় প্রতিনিধি নিয়োগ দিয়ে সাংবাদিকদের ওপর সাংবাদিকতা করার হুমকি দেন আরাভ খান।

- Advertisement -

বৃহস্পতিবার (৪ মে) বাংলাদেশ সময় রাত সাড়ে ৯টায় তার ফেসবুক পেজ থেকে লাইভে এসে তিনি এ কথা বলেন। লাইভের বিবরণে তিনি লিখেন: রাখে আল্লাহ মারে কে আলহামদুলিল্লাহ আমি কি কারনে হঠাৎ করে উধাও হয়ে গিয়েছিলাম আপনাদের মাঝে তুলে ধরলাম আপনাদের দোয়া এবং ভালোবাসা আমাকে ফিরিয়ে এনেছে । আপনাদের ঋণ কখনো আমি শুধাতে পারবো না আপনাদের সবার জন্য নামাজ পড়ে দোয়া করব আমিন।

ফেসবুক লাইভে আরাভ খান বলেন, অনেকে বলেছে আমি দুবাই ছেড়ে পালিয়েছি। তাদের উদ্দেশ্যে আমি বলতে চাই, আমি পালানোর লোক না। আমি চুরি করি নাই, আমি কেন পালাব। আমার নামে যখন ইন্টারপোলের রেড অ্যালার্ট জারি হয়, তখন তারা আমাকে ফোন করে। আমাকে ফোন করে জানায় যে তাদের কাছে আমার নামে একটি ফাইল এসেছে।

আরাভ খান বলেন, ইন্টারপোল বলেছে তারা আমাকে গ্রেফতার করবে। তবে তারা বলেছে গ্রেফতার করার থেকে আপনি আমাদের কাছে এলে সব থেকে ভালো হবে। তখন আমি দেখলাম পালিয়ে গেলে তারা আমাকে গ্রেফতার করবে। কিন্তু আমি কেন পালাব, আমি তো কোনো চোর না। আমাকে ইন্টারপোল নিয়ে গেল, সেখানে রাখল ১ মাস ৭ দিন। আমার জীবন থেকে ১ মাস ৭ দিন চলে গেছে ইন্টারপোলের জেলে। সেখানে আমি অনেক বড় বড় আসামিদের সঙ্গে জেল খেটেছি।

আরাভ খান আরো বলেন, বিনা অপরাধে আমাকে ৩৭ দিন জেল খাটানো হয়েছে। সেখানে সারা বিশ্বের বিভিন্ন মাফিয়ার সঙ্গে পরিচয় হয়েছে। একটা দিকে ভালো হয়েছে, সারা বিশ্বের বড় বড় মাফিয়াদের সঙ্গে আমার পরিচয় হয়েছে।

আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা রটানো হয়েছে দাবি করে তিনি বলেন, সেজন্য আল্লাহ আমাকে বাঁচিয়েছেন। এসব কারণে আমার ব্যবসার অনেক ক্ষতি হয়েছে। তবে এসব করে আমার বিনামূল্যে বিজ্ঞাপন হয়ে গেছে। এখন বিজ্ঞাপণ ছাড়াই সবাই আমাকে চিনে, দোকান খোলার পর কাস্টমারের অনেক ভিড়।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles