21.3 C
Toronto
রবিবার, জুন ২৩, ২০২৪

মঞ্চে উঠে এ আর রহমানের গান বন্ধ করল পুলিশ, ভিডিও ভাইরাল

মঞ্চে উঠে এ আর রহমানের গান বন্ধ করল পুলিশ, ভিডিও ভাইরাল

অস্কারজয়ী সুরকার, বলিউডের জনপ্রিয় গায়ক এ আর রহমানের ‘শো’ চলাকালে মঞ্চে গাইতে বাধা দিয়েছে স্থানীয় পুলিশ। পুণেতে এমন ঘটনার সম্মুখীন হয়েছেন এই তারকা।

- Advertisement -

এপ্রিলের শেষ দিনে রোববার পুণেতে ভারতীয় সংগীত তারকা এ আর রহমানের কনসার্ট ছিল। ওই দিন রাত ১০টায় স্টেজে ওঠেন তিনি। পরে কণ্ঠে যখন ‘ছাইয়াঁ ছাইয়াঁ’ গানটি ধরেন ঠিক তখনই গান বন্ধ করে দেওয়া হয় অস্কারজয়ী এ সুরকারের। ভারতীয় গণমাধ্যম আনন্দবাজার সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

প্রতিবেদনে জানা যায়, কিছু বুঝে ওঠার আগেই মঞ্চে উপস্থিত শিল্পীদের বাদ্যযন্ত্র বন্ধের নির্দেশ দেন পুণের এক পুলিশ কর্মকর্তা। মাঝপথে থামিয়ে দেওয়ায় তড়িঘড়ি করে মঞ্চ ছাড়েন রহমান। এ ঘটনার পর চিৎকার শুরু করেন দর্শকরা।

এ ব্যাপারে গায়কের সহকর্মী জানিয়েছেন, সংগীতশিল্পীর দিকে আঙুল তুলে গান বন্ধ করতে বলে পুলিশ। সেই ভিডিও এখন ছড়িয়ে পড়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। যা নিয়ে ঝড় উঠেছে সঙ্গীতাঙ্গনে।

ভিডিওতে দেখা যায়, মাত্রই গান শুরু করেছিলেন এর আর রহমান। হঠাৎ পুলিশ ঢুকে পড়ে সেখানে। পুলিশের এক কর্মকর্তা রহমানকে উদ্দেশ্য করে ঘড়ি দেখিয়ে গান থামাতে বলেন। রহমানও গান থামিয়ে দেন। আয়োজক এবং ব্যান্ডের বাকি সদস্যদের অনুষ্ঠান বন্ধ করার নির্দেশ দেন সেই পুলিশ কর্মকর্তা। সঙ্গে সঙ্গে দর্শকরা চিৎকার শুরু করেন। তারা আরও গান শুনতে চাইছিলেন। কিন্তু সেখানে বাধা আসে পুলিশের।

জানা গেছে, শোয়ের সময়ের জন্য অনুমতি দেওয়া হয়েছিল রাত ৮টা থেকে ১০টা পর্যন্ত। কিন্তু নির্দিষ্টি সময় পেরিয়ে যেতেই পুলিশ হাজির হয়ে অনুষ্ঠান থামিয়ে দেয়। তবে এভাবে মাঝপথে গান বন্ধ করে দেওয়ার ঘটনা মেনে নিতে পারেননি অনেকে। নিন্দার ঝড় ওঠে নেটপাড়ায়। এমন এক বিশ্বনন্দিত শিল্পীর সঙ্গে কেনো আরও একটু সংবেদনশীল আচরণ করা হলো না, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন অনেকে।

পুণের রাজা বাহাদুর মিল এলাকায় আয়োজিত এ কনসার্টে হাজারেরও বেশি দর্শক উপস্থিত ছিলেন।

এ প্রসঙ্গে পুণে পুলিশের ডিসিপি (জোন ২) এস পাতিল গণমাধ্যমকে বলেন, ‘এ আর রহমান শেষ গানটি গাইছিলেন। উনি খেয়াল করেননি সময় ১০টা পেরিয়ে গেছে। তাই অনুষ্ঠানস্থলে আমাদের যে পুলিশ কর্মকর্তা ছিলেন, বাধ্য হয়ে স্টেজে উঠে তাকে সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশিকার কথা মনে করিয়ে দেন। তখন অবশ্য শিল্পী গান বন্ধ করে দেন।’

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles