-6.3 C
Toronto
বৃহস্পতিবার, ফেব্রুয়ারি ২৯, ২০২৪

চীনের বেলুন কান্ডে যুক্তরাষ্ট্রের পাশে কানাডা

চীনের বেলুন কান্ডে যুক্তরাষ্ট্রের পাশে কানাডা
প্রতিরক্ষামন্ত্রী অনীতা আনান্দ

চীনের সার্ভিল্যান্স ক্যামেরা নামিয়ে আনার ব্যাপারে যুক্তরাষ্ট্রের সিদ্ধান্তের প্রতি কানাডার দ্ব্যর্থহীন সমর্থন ব্যক্ত করেছেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী অনীতা আনান্দ। চীনের বেলনটি কানাডার আকাশসীমাও লঙ্ঘন করেছে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

যুক্তরাষ্ট্রের ফাইটার জেট ক্যারোলাইনা উপকূলে চীনের বেলুনটি ভূপাতিত করে। উত্তর আমেরিকাজুড়ে সংবেদনশীল সামরিক স্থাপনার ওপর দিয়ে ওড়ার পর বেলুনটি ভূপাতিত করা হয়। এ ঘটনায় অনীতা আনান্দ একটি বিবৃতি দিয়েছেন। তাতে বলা হয়েছে, ন্যাশনাল সিকিউরিটি ইন্টেলিজেন্স অ্যাডভাইজার ও চিফ অব ডিফেন্স স্টাফ এ ব্যাপারে তাকে ও প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডোকে ব্রিফ করেছেন। কানাডা এ ব্যাপারে যুক্তরাষ্ট্রের সিদ্ধান্তের সঙ্গে রয়েছে এবং ঘনিষ্ঠ সহযোগিতার জন্য যুক্তরাষ্ট্রকে ধন্যবাদও জানান তিনি।
পেন্টাগণের একজন মুখপাত্র একে নিয়ন্ত্রণযোগ্য সার্ভিল্যান্স বেলুন হিসেবে উল্লেখ করেন, যেটি ১৮ হাজার ২৮৮ মিটার উপর দিয়ে উড়ছিল। বেলুনটি কানাডার আকাশসীমার উপর দিয়ে উড়েছে কিনা সে ব্যাপারে মন্তব্য করতে এর আগে অস্বীকৃতি জানান আনান্দ। কিন্তু শনিবারের বিবৃতিতে তিনি উল্লেখ করেন, বেলুনটি যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডার আকাশসীমা এবং আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘন করেছে।

- Advertisement -

বিবৃতিতে আনান্দ বলেন, ন্যাশনাল সিকিউরিটি কমিউনিটি এ নিয়ে কাজ করছে এবং সিদ্ধান্তের ব্যাপারে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে তারা ঘনিষ্ঠভাবে সম্পৃক্ত রয়েছে এবং যে পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে তার প্রতি দ্ব্যর্থহীন সমর্থন জানিয়েগেতিছ।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন শনিবার বলেন, মার্কিন কর্মকর্তাদের তিনি বেলুনটি ভূপাতিত করার নির্দেশ দিয়েছিলেন। সে মোতাবেক নিরাপত্তা নেতারা সর্বোচ্চ সুবিধাজনক সময়ে তা কার্যকর করেছেন।

তবে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এটিকে বেসামরিক বেলুন বলে দাবি করেছে, যা আবহাওয়া সংক্রান্ত গবেষণার কাজে ব্যবহৃত হচ্ছিল। বাতাসের কারণে বেলুনটি তাদের পরিকল্পিত গতিপথ থেকে সরে যায়।

আনান্দ বলেছেন, নর্থ আমেরিকান অ্যারোস্পেস ডিফেন্স কমান্ড বা নোরাড বেলুনটির গতিপথ ও কর্মকা-ের দিকে নজর রাখার পাশাপাশি তা বিশ্লেষণ করেছিল।

 

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles