-4.5 C
Toronto
বুধবার, ফেব্রুয়ারী ১, ২০২৩

বৈশ্বিক জীববৈচিত্র রক্ষায় আদিবাসীদের অংশগ্রহণ জরুরি

বৈশ্বিক জীববৈচিত্র রক্ষায় আদিবাসীদের অংশগ্রহণ জরুরি
ফিলিপিন্সের আদিবাসী আইনজীবী জেনিফার করপাজ

আদিবাসীদের অংশগ্রহণ ও নেতৃত্ব ছাড়া জীববৈচিত্র্যের ক্ষতি থামানোয় সাফল্য পাওয়া যাবে না মন্তব্য করেছেন মন্ট্রিয়লে অনুষ্ঠিত জাতিসংঘের সম্মেলনে অংশগ্রহণকারী নেতারা। ফিলিপিন্সের আদিবাসী আইনজীবী জেনিফার করপাজ বলেন, বহুকাল ধরেই আদিবাসী লোকেরাই প্রকৃতির সর্বোত্তম অভিভাবক। এখানে উপস্থিত পক্ষগুলো যদি আদিবাসী লোকজনের সঙ্গে কাজ না করে তাহলে আমরা যেখানে যেতে চাই সেখানে পৌঁছাতে পারবো না। কারণ, সংরক্ষিত এলাকার চেয়ে আদিবাসী সুশাসন ও অভিভাকত্ব বেশি কার্যকর।

করপাজ বলেন, কপ১৫ এ চূড়ান্ত চুক্তিতে পৌঁছাতে আদিবাসী জ্ঞানের স্বীকৃতি, সংরক্ষণ লক্ষ্য হিসেবে প্রথাগত অঞ্চলের স্বীকৃতি এবং জীববৈচিত্র্য রক্ষায় প্রত্যক্ষ তহবিল প্রাপ্তি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আদিবাসী মানুষ হিসেবে আমাদের জীবন ও পৃথিবীর স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে রয়েছে। আন্তর্জাতিক জীবৈচিত্র্য কর্মকাঠামোয় আদিবাসী অধিকারের ওপর বক্তব্য অন্তর্ভুক্ত করা উচিত।

- Advertisement -

এই সম্মেলনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ দিক হচ্ছে ২০৩০ সালের মধ্যে বিশ্বের মোট অঞ্চল ও সমুদ্র বসতির ৩০ শতাংশ যাতে সংরক্ষিত থাকে সেজন্য একটি খসড়া লক্ষ্যমাত্রার আওতায় আদিবাসীদের প্রথাগত ভূমি ও পানির স্বীকৃতি প্রদান।

কুইবেকের ল্যাক-সিমোন অ্যালগনকিন কমিউনিটির প্রাকৃতিক সম্পদ বিষয়ক অন্তবর্তীকালীন পরিচালক রোনাল্ড ব্রাজো বলেন, সারাবিশে^র আদিবাসী গ্রুগুলোর ভিন্ন ভিন্ন স্বার্থ ও বাস্তবতা রয়েছে। কিন্তু তাদের যে অভিন্ন লক্ষ্য এক কথায় বললে তা হচ্ছে ভূমি।

শুক্রবার সংরক্ষণ প্রচেষ্টায় আদিবাসীদের অংশগ্রহণ বাড়ানোর ব্যাপারে কানাডা, ব্রাজিল ও ইন্দোনেশিয়ার নেতাদের সঙ্গে তিনি একাত্বতা প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, কুইবেকের পশ্চিমাঞ্চলে তার কমিউনিটি জীববৈচিত্র্যের ক্ষতি ও জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব দেখতে পাচ্ছে। জীববৈচিত্র্য সরকার যথেষ্ট করছে বলে তার মনে হচ্ছে না।

তিনি বলেন, আমরা আমাদের কর্মকা- চালাতে পারি, এমন এক খন্ড জমি প্রয়োজন আমাদের। যেখানে কোনো শিল্প থাকবে না। কারণ, একবার সেখানে শিল্প হলে সবকিছু ধ্বংস হয়ে যাবে। আমার মতে, সংরক্ষণের লক্ষ্য ৩০ শতাংশের বেশি হওয়া উচিত।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles