4.1 C
Toronto
রবিবার, ফেব্রুয়ারী ৫, ২০২৩

নিষেধাজ্ঞার আওতায় তেহরানের সাবেক পুলিশপ্রধান

নিষেধাজ্ঞার আওতায় তেহরানের সাবেক পুলিশপ্রধান
অভিবাসন বিষয়ক মন্ত্রী শন ফ্রেজার

তেহরানের সাবেক পুলিশপ্রধান মর্তেজা তালেইর বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে কানাডা। গত টরন্টো এরিয়ার একটি জিমে তাকে দেখা গেলে এ নিয়ে শোরগোল শুরু হয় এবং এই অভিযোগ ওঠে যে, ইরানি সরকারের উচ্চ পর্যায়ের সদস্য ও তাদের আত্সীয়দের নিরাপদ আশ্রয়স্থল হচ্ছে কানাডা।

মর্তেজা তালেই হচ্ছেন ইরানের ইসলামিক রেভ্যুলুশন গার্ডের অবসরপ্রাপ্ত দ্বিতীয় ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এবং ইরানিয়ান-কানাডিয়ান ফটোসাংবাদিক জাহরা কাজেমিকে পুলিশ হেফাজতে পিটিয়ে হত্যা করার সময় ২০০৩ সালে তেহরান পুলিশের প্রধানের দায়িত্বে ছিলেন তিনি।

- Advertisement -

তেহরানের কুখ্যাত এভিন কারাগারের ছবি তোলার অভিযোগ ২০০৩ সালে কাজেমিকে গ্রেপ্তার করা হয়। শিক্ষার্থীদের গ্রেপ্তারের প্রতিবাদের সেখানে বিক্ষোভ চলছিল। ইরান সরকার তাকে প্রহারের কথা স্বীকার করলেও এই দাবি করে যে তার মৃত্যু ছিল দুর্ঘটনা। তবে কাজেমির ডাক্তারি পরীক্ষা করা চিকিৎসক বলেন, মুত্যুর আগে কাজেমির ওপর পাশবিক ধর্ষন ও নির্যাতন চালানো হয়। ওই চিকিৎসক পরে কানাডায়র চলে আসেন। কাজেমির মৃত্যুর প্রায় ২০ বছর পর আরও তিন ইরানিয়ান ও পাঁচটি প্রতিষ্ঠানসহ তালেইর বিরুদ্ধে স্পেশাল ইকোনমিক মেজার অ্যাক্টের আওতায় নিষেধাজ্ঞা আরোপ করছে। এই আইনের অধীনে সরকার কোনো ব্যক্তির কানাডায় প্রবেশ নিষিদ্ধ করার পাশাপাশি দেশে থাকা তার সম্পদ বাজেয়াপ্ত করতে পারে।

প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো শুক্রবার বলেন, চলমান দমন-পীড়নমূলক আচরণ যে পুরোপুরি অগ্রহণযোগ্য ইরান সরকারকে তা জানানো নিশ্চিত করতে চাই আমরা।

ইরানের ব্যাপারে আরও কঠোর হতে কনজার্ভেটিভ পার্টি ও ইরানিয়ান-কানাডিয়ানদের কাছ থেকে বড় ধরনের চাপের মধ্যে আছে সরকার।
ড্রেস কোড লঙ্ঘনের ঘটনায় আটক ২২ বছর বয়সী মাহশা আমিনি গত সেপ্টেম্বরে পুলিশ হেফাজতে মারা যাওয়ার পর ইরান ও সারাবিশ্বে এর প্রতিবাদে ব্যাপক বিক্ষোভ শুরু হয়। বিক্ষোভ হয়েছে কানাডাতেও। ১৪ নভেম্বর ফেডারেল সরকার ইরানকে সন্ত্রাসবাদী ও মানবাধিকার লঙ্ঘনকারী দেশ হিসেবে তালিকাভুক্ত করে সরকারে থাকা শীর্ষ ব্যক্তি, তাদের আত্মীয়-স্বজনের ওপর কানাডায় প্রবেশে নিষেধাজ্থঞা আরোপ করে। এই নিষেধাজ্ঞার ফলে ওইসব ব্যক্তিদের আত্মীয়-স্বজনের স্থায়ী বসবাসের অনুমতি বাতিল করা হতে পারে বলে জানান অভিবাসন বিষয়ক মন্ত্রী শন ফ্রেজার।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles