মেয়ের প্রেমের বিয়ে মানেননি বাবা, জ্বালিয়ে দিলেন সাত প্রাণ

- Advertisement -
ছবি সংগ্রহ

‘ভালোবেসে বিয়ে’ করাকে কেন্দ্র করে পাকিস্তানে এক পিতার বিরুদ্ধে দুই মেয়েসহ সাতজনকে জীবন্ত পুড়িয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। এরমধ্যে চারশিশু রয়েছে। শিশুগুলো অভিযুক্ত ওই ব্যক্তির নাতি-নাতনি।

শনিবার (১৬ অক্টোবর) মধ্যরাতে পরিবারের সকল সদস্য যখন ঘুমাচ্ছিলেন তখন তিনি বাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেন। ঘটনাটি পাকিস্তানের মুজাফফরগড় জেলার পির জাহানিয়ান টাউনে ঘটেছে।

- Advertisement -

অভিযুক্ত ওই ব্যক্তির নাম মনজুর হুসাইন। তিনি মেয়ের বাড়িতে আগুন জ্বালিয়ে পালিয়ে যান। এ ঘটনায় পুলিশ তাকে খুঁজে বেড়াচ্ছে।

অপইন্ডিয়ার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আগুনে ভস্মীভূত বাড়িটি মনজুরের দুই মেয়ে ফাউজিয়া বিবি ও খুরশিদ মাইয়ের ছিল। দুই মেয়ে ভাগাভাগি করে বাড়িটিতে থাকতেন।

পাকিস্তানের পুলিশ বলছে, আগুনে ফাউজিয়া বিবি ও খুরশিদ মাই, বিবির চার বছরের ছেলে ও মাইয়ের দুই, ছয় ও ১৩ বছরের তিন শিশু ও মাইয়ের স্বামী আগুনে পুড়ে গেছে।

মরদেহগুলো ময়নাতদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

বিবির স্বামী মেহবুব আহমেদ পুলিশকে বলেন, ঘটনার সময় তিনি বাড়িতে ছিলেন না। কাজ থেকে সকালে বাড়ি ফিরে দেখেন সবকিছু পুড়ে ছাই হয়ে গেছে।

তিনি আরও বলেন, ১৮ মাস আগে তিনি শ্বশুরের (অভিযুক্ত মনজুর হুসাইন) মতের বিরুদ্ধে গিয়ে ফাউজিয়া বিবিকে বিয়ে করেন। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে তিনি সবকিছু জ্বালিয়ে দিয়েছেন।

তার অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ একটি এফআইআর দায়ের করেছে। এতে মেহবুবের শ্বশুর ও শ্যালককে অভিযুক্ত করা হয়েছে।

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles