4.6 C
Toronto
সোমবার, ডিসেম্বর ৫, ২০২২

বিষাক্ত মনের মানুষ

বিষাক্ত মনের মানুষ
ছবি/ গ্যানিডি স্যান্ডার্স

কেউ যখন গল্প ভালোবাসে অন্যরা তখন কবিতা ভালোবাসে। কেউ যখন আত্ম কথা শুনতে চায় অন্যরা চায় প্রতিবাদ ।
কারো ভালোলাগে ছবি দেখতে, কারো ছবির মানুষকে কাছে পেতে।

উত্যাক্তকারী এই শেষ দলের মানুষ। এরা ভাবে ইচ্ছে করলেই হাতের মুঠোয় নিয়ে দুমড়ে দিবে। খেলা সাঙ্গ হলে ছুঁড়ে ফেলে দিবে।

- Advertisement -

মানুষের নিজস্ব জীবন আছে, ভাবনা এবং স্বপ্ন থাকে। এসব মর্যাদা দেয়ার কথা এরা ভাবতেই পারে না। নিজেদের চাওয়ায় উন্মাদ থাকে।

স্বার্থপর এই লোকদের জন্য পোহাতে হয় অন্য মানুষদের যন্ত্রনা। নিজের জীবন উজার করে অনেকে ভালোবেসে ফেলে এই স্বার্থপর মধুর কথা বলা, মিথ্যাবাদী লোকদের। একটা সময়ের পর জীবনে বড় একটা ক্ষত তৈরি হয়। এই ক্যান্সার আক্রান্ত জীবন থেকে অঙ্গ হারিয়ে বেঁচে থাকার চিন্তা সবাই করতে পারে না। সম্পর্ক ছিন্ন করে মাথা তুলে চলার চিন্তা কেউ কেউ করে উঠতে পারে, সবাই পারে না। ক্যান্সার আক্রান্ত জীবনে কেমো থেরাপীর মতন কষ্ট সহ্য করে; যার পরে হয় অসহ্য রকম বিবমিসা, খাওয়ায় অনিহা। কষ্ট আর কষ্ট সহ্য করে এক জীবন কাটিয়ে যায় অনেকে। কেউ আবার কষ্টের ঝুলি বিক্রি করে ইমোশনাল ভাবে অন্যদের নিয়ে খেলতে শুরু করে। এরা আরো অসহ্য এবং সাংঘাতিক রকমের ভয়ংকর ।

বিষাক্ত মনের মানুষ শান্ত মনে অন্যদের ক্ষতি করে নির্দ্বিধায় । নিজের কাজ সমাপ্ত করে কেটে পরে অবলীলায়। ঘড়ে চাপে অন্য আরেক নিরিহ মানুষের মিষ্টি কথার ফুলঝুরি ছুটিয়ে।

সবার উচিত অচেনা কারো সাথে, মিশার আগে নিজেকে সুরক্ষিত রাখা। আর নিজের সবটুকুর সাথে যে কাউকে আপন ভেবে মিশিয়ে না ফেলা।

অথচ জীবনটা হওয়া উচিত আনন্দ ভালোলাগার। স্বপ্ন সত্য করার। সাজানো প্রাসাদপুরী প্রতিটি মানুষের জন্য। অকারণ ক্যান্সার যাতে না হয় সে জন্য সচেতন থাকা ভালো।

টরন্টো, কানাডা

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles