3.4 C
Toronto
বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ৮, ২০২২

মহামারির ছয় মাসে পারিবারিক চিকিৎসক হারিয়েছেন ১৭০,০০০ রোগী

মহামারির ছয় মাসে পারিবারিক চিকিৎসক হারিয়েছেন ১৭০,০০০ রোগী
ছবি/অনলাইন মার্কেটিং

কোভিড-১৯ মহামারির প্রথম ছয় মাসে পারিবারিক চিকিৎসক হারিয়েছেন অন্টারিওর ১ লাখ ৭০ হাজারের বেশি রোগী। নতুন এক গবেষণায় এ তথ্য উঠে এসেছে।

ইউনিটি হেলথ টরন্টো ও অলাভজনক গবেষণা প্রতিষ্ঠান আইসিইএস পরিচালিত গবেষণায় দেখা গেছে, ২০২০ সালের মার্চ থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত পারিবারিক চিকিৎসক হিসেবে দায়িত্ব পালনকারীর সংখ্যা আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় অর্ধেকে নেমে এসেছে। এ সংখ্যা অন্টারিওতে পারিবারিক চিকিৎসক হিসেবে দায়িত্ব পালনকারীদের প্রায় ৩ শতাংশ।

- Advertisement -

গবেষণার তথ্য অনুযায়ী, ২০১০ সালের এপ্রিল ও সেপ্টেম্বর থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত ১ দশমিক ৬ শতাংশ পারিবারিক চিকিৎসক কাজ করা বন্ধ করে দিয়েছেন।

প্রায় ১৮ লাখ অন্টারিওবাসীর কোনো নিয়মিত পারিবারিক চিকিৎসক নেই। আমাদের গবেষণা বলছে, পরিস্থিতি কেবল খারাপের দিকেই যাচ্ছে, যা রীতিমতো উদ্বেগের। কারণ, পারিবারিক চিকিৎসক আমাদের স্বাস্থ্যসেবার প্রথম দরজা।

গবেষণার ফলাফল অনুযায়ী, ১২ হাজার পারিবারিক চিকিৎসকের মধ্যে ৩৮৫ জন কাজ বন্ধ করে দিয়েছেন এবং যারা কাজ করছেন তাদের বয়স ৭৫ বছর বা তার বেশি ও তাদের অধীনে রয়েছে ৫০০ রোগী। এসব চিকিৎসকের অনেকেই অবসরের কথা ভাবছিলেন এবং মহামারি তাকে এগিয়ে এনেছে।
মহামারি যে এর প্রধান কারণ, গবেষণায় তার স্বপক্ষে সত্যতা মেলেনি। স্বাস্থ্য নিয়ে উদ্বেগ, সংক্রমণ প্রতিরোধে খরচ বেড়ে যাওয়া, পরিদর্শন কমে যাওয়ায় রাজস্ব হ্রাস ও ক্লান্তি এক্ষেত্রে ভূমিকা রাখতে পারে বলে গবেষণায় উল্লেখ করা হয়েছে।

এ অবস্থায় পারিবারিক চিকিৎসকদের ফির বিষয়টি পূনর্মূল্যায়নের আহ্বান জানিয়েছেন গবেষকরা। তারা বলছেন, এমন মডেল তৈরি করতে হবে যাতে পারিবারিক চিকিৎসকের নিশ্চিত আয়ের ব্যবস্থা থাকে। পাশাপাশি প্রাথমিক স্বাস্থ্যসেবা দলে সামাজিক কর্মী, প্যারামেডিক ও নার্সদের মতো অন্যান্য স্বাস্থ্য পেশাজীবীদের অন্তুর্ভুক্তিরও সুপারিশ করেছেন গবেষকরা।

This article was written by Sohely Ahmed Sweety as part of the LJI.

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles