20.9 C
Toronto
বুধবার, জুন ১২, ২০২৪

মারা গেছে বলে ফিরিয়ে দেয় হাসপাতাল, পরে অটোরিকশায় সন্তান প্রসব

মারা গেছে বলে ফিরিয়ে দেয় হাসপাতাল, পরে অটোরিকশায় সন্তান প্রসব

গর্ভের সন্তান মারা গেছে বলে হাসপাতাল থেকে ফিরিয়ে দিলে সিএনজিচালিত অটোরিকশায় সন্তান প্রসব করেছেন এক নারী। বর্তমানে নবজাতক ও তার মা দু’জনেই সুস্থ আছেন। তবে এনিয়ে স্থানীয়দের মধ্যে উত্তেজনা ও ক্ষোভ বিরাজ রয়েছে। গাজীপুরের টঙ্গীতে মাইশা জেনারেল হাসপাতালের চিকিৎসকদের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ উঠেছে। মঙ্গলবার (২৭ সেপ্টেম্বর) সকালে টঙ্গী স্টেশন এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

- Advertisement -

ভুক্তভোগী নারী টঙ্গীর টিএন্ডটি এলাকার ফাতেমা বেগম ও তার স্বামী সোহেল জানান, ফাতেমার প্রসব বেদনা উঠলে সন্তান প্রসবের জন্য মঙ্গলবার সকালে তারা টঙ্গী স্টেশন রোডের মাইশা জেনারেল হাসপাতালে যান।

ফাতেমার স্বজনরা জানান, সেখানকার চিকিৎসকদের পরামর্শে আল্ট্রাসনোগ্রাম করানোর পর জানানো হয়, গর্ভে থাকা শিশুটি আর বেঁচে নেই। তাই উন্নত চিকিৎসার জন্য এবং গর্ভবতীকে বাঁচিয়ে রাখার স্বার্থে আইসিইউ আছে এমন হাসপাতালে নেয়ার পরামর্শ দেয়া হয়।

আরও পড়ুন :: মিছিল-সমাবেশে লাঠিসোঁটা আনা পুলিশের জন্য হুমকি: হাফিজ আক্তার

এরপর মাইশা জেনারেল হাসপাতাল থেকে নেমে উত্তরার একটি হাসপাতালের উদ্দেশ্যে রওনা হওয়ার জন্য সিএনজিতে উঠতেই ফাতেমার সন্তান প্রসব হয়ে যায়। যদিও নবজাতক ও তার মা ফাতেমা দুজনেই সুস্থ আছেন বলে জানিয়েছেন স্বজনরা। এদিকে সিএনজিতে সন্তান প্রসবের খবর পেয়ে এলাকার এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। পরে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় স্থানীয় পুলিশ এবং পরিস্থিতির শান্ত করে।

হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ওমর ফারুক বলেন, বাসায় নরমাল ডেলিভারির চেষ্টা কারণে সংকটাপন্ন হয়ে পড়ে প্রসূতি ও গর্ভের সন্তান। হাসপাতালে আনার পর প্রথমে আল্ট্রাসোনোগ্রাফি করা হলে গর্ভের বাচ্চার পালস পাওয়া যায়নি। তাই রোগীকে আইসিইউ সুবিধা আছে এমন হাসপাতালে নেওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়। পরে অন্য হাসপাতালে নেওয়ার পথে সিএনজিতে সন্তান প্রসব করেন ওই নারী। এ ক্ষেত্রে হাসপাতালের কোনো অবহেলা নেই বলেও দাবি করেন তিনি।

টঙ্গী পূর্ব থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আশরাফুল ইসলাম বলেন, দুদিন আগেও হাসপাতালটিতে চিকিৎসার অবহেলায় দেড় বছরের শিশু মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছিল। এরপর সিএনজিতে সন্তান প্রসবের ঘটনার খবর শুনে উত্তেজিত হয় এলাকাবাসী। তাদের শান্ত করতে আমরা ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠাই। তবে এ ঘটনায় রোগীর পরিবারের পক্ষ থেকে কোনো অভিযোগ করা হয়নি। তাই আপাতত হাসপাতালটিতে রোগী ভর্তি না করার জন্য কর্তৃপক্ষকে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

সূত্র : বিডি২৪লাইভ

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles