9.7 C
Toronto
সোমবার, অক্টোবর ১৮, ২০২১

উভয় ডোজ ভ্যাকসিন গ্রহণ করেছেন ৭৯ শতাংশ অন্টারিওবাসী

৬ লাখের বেশি মানুষ অন্টারিও সরকারের ওয়েবসাইট থেকে ভ্যাকসিন রশিদ ডাউনলোড করেছেন

ভ্যাকসিন রশিদের নির্ভরযোগ্যতা সম্পর্কে জানতে চাইলে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের একজন মুখপাত্র বলেছেন, সংখ্যাগরিষ্ঠ অন্টারিওবাসী সঠিক কাজটাই করবেন বলে আমরা আত্মবিশ্বাসী। ১২ বছরের বেশি বয়সী ৭৯ শতাংশ অন্টারিওবাসী এরই মধ্যে উভয় ডোজ ভ্যাকসিন গ্রহণ করেছেন। অনাবশ্যক কিছু সেবার ক্ষেত্রে এখন তাদের ভ্যাকসিনের স্বপক্ষে সুরক্ষিত একটি সনদের প্রয়োজন।

নতুন ভ্যাকসিননীতি কার্যকর হওয়ার পর বুধবার একদিনেই ৬ লাখের বেশি মানুষ অন্টারিও সরকারের ওয়েবসাইট থেকে ভ্যাকসিন রশিদ ডাউনলোড করেছেন। নতুন নীতির আওতায় ভ্যাকসিন না নেওয়া ব্যক্তিরা অনাবশ্যক বেশ কিছু সুবিধা নিতে পারবেন না এবং এরই মধ্যে নীতিটি কার্যকর হয়েছে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী ক্রিস্টিন এলিয়ট বলেন, বুধবার সারাদিনে ৬ লাখ ৩৭ হাজার পিডিএফ রশিদ ডাউনলোড করা হয়েছে। এ নিয়ে বুধবার পর্যন্ত ডাউনলোড করা হয়েছে ২৭ লাখ রশিদ।

আগামীতে ১২ বছর ও তার বেশি বয়সী কোনো অন্টারিওবাসী জিম, মুভি থিয়েটার ও রেস্তোরাঁয় ইনডোর ডাইনিং সেবা নিতে চাইলে তাকে অবশ্যই ছবিযুক্ত পরিচয়পত্রসহ ভ্যাকসিন রশিদ প্রদর্শন করতে হবে। যদিও ফোর্ড সরকার বলছে, ২২ অক্টোবরের মধ্যেই কোনো অন্টারিওবাসী ভ্যাকসিন নিয়েছেন কিনা তা যাচাইয়ে স্ক্যানযোগ্য কিউআর কোড চালু করতে পারবে বলে তারা আশাবাদী।

পিডিএফ রশিদ সম্পাদনার মাধ্যমে ব্যক্তির নাম বদলে ফেলার সুযোগ আছে, এমন উদ্বেগের মধ্যেই কিউআর কোড চালুর পদক্ষেপ এলো। শবনম প্রিত কাউর নামে একজন ফরেনসিক ডকুমেন্ট পরীক্ষাকারী বৃহস্পতিবার রাতে সিপি২৪কে বলেন, নথিটি ডাউনলোডের পর সেটি সম্পাদনা করতে কোনো ব্যক্তির সময় লাগবে মাত্র ৫ থেকে ১০ মিনিট। মানুষ এখন সত্যিই প্রযুক্তি সম্পর্কে অনেক কিছু জানেন। নথি কিভাবে জালিয়াতি করতে তা তাদের ভালো করেই জানা আছে। পিডিএফ নথি জালিয়াত করা সবচেয়ে সহজ। কেউ প্রকৃত ভ্যাকসিন নথি প্রদর্শন করছেন নাকি ভুয়া নথি তা সনাক্ত করাটাও এতো সহজ নয়। কিউআর কোড অ্যাপ্লিকেশন এর ভালো সমাধান হতে পারে। কারণ, এটি জালিয়াত করা অতোটা সহজ নয়।

কাউরের সঙ্গে এ ব্যাপারে একমত পোষণ করেন প্রযুক্তি বিশ্লেষক কারমি লেভিও। তিনি বলেন, আমরা সবাই জানি যে, সব ডিভাইসে থাকা অপারেটিং সিস্টেমের মাধ্যমে পিডিএফ নথি সহজেই হালনাগাদ করা যায়। পিডিএফ নথির চেয়ে কিউআর কোড মৌলিকভাবে অধিক সুরক্ষিত। এগুলো জালিয়াত করা কঠিন। এগুলো বদলানোও সহজসাধ্য নয়। তাই ভ্যাকসিন পাসপোর্ট অ্যাপ চালু হওয়র পর্যন্ত প্রদেশের অপেক্ষা করা উচিত বলে মনে করেন তিনি।

- Advertisement - Visit the MDN site

Related Articles

- Advertisement - Visit the MDN site

Latest Articles