19.3 C
Toronto
সোমবার, জুন ২৭, ২০২২

অন্টারিও প্রভিন্সিয়াল নির্বাচন ২০২২

- Advertisement -
অন্টারিও প্রভিন্সিয়াল নির্বাচন ২০২২
অন্টারিও কনজারভেটিভ পার্টির প্রধান ডগ ফোর্ড

আগামী ২রা জুন অন্টারিও প্রদেশের সংসদ নির্বাচন। কদিন ধরেই শুরু হয়েছে আগাম ভোট প্রদানের সুযোগ যেটাকে বলা হয় এডভান্স পোলিং। আজ আমাদের চার সদস্যের পরিবারের তিনজন অগ্রিম ভোট প্রদান করে এলাম। পেপার ব্যালট এবং ইভিএম দুটোর মিশ্রণে ভোট গ্রহন শেষ হলো। প্রথমে কাগজের ব্যালটে ভোট দিলাম প্রার্থীর নামের পাশে কলম দিয়ে ক্রস চিহ্ন দিয়ে। এরপর সেটি একটি সুদৃশ্য ফোল্ডারের মধ্যে ভরে ব্যালট বাক্সের কাছে বসে থাকা একজন নির্বাচনী কর্মকর্তার কাছে দিলাম। তিনি সেই ফোল্ডার না খুলে ভেতরে রাখা কাগজের ব্যালটটি হাতের এক আঙুল দিয়ে টোকা দিয়ে ইভিএম মেশিনের মধ্যে ঢুকিয়ে দিলেন। ব্যাস হয়ে গেল ভোট। জিজ্ঞেস করলাম, এরকম কেন? তিনি বললেন, মেশিনে ব্যালট ঢুকানোর কারণ হলো সাথে সাথেই ভোটটি গণনা হয়ে যাচ্ছে, অর্থাৎ মেশিন কাউন্ট করে কোন প্রার্থী কত ভোট পেল তার সংখ্যা মেশিনে ডিসপ্লে করে রাখছে যাতে ভোটের সময় শেষ হবার সাথে সাথে ভোটের ফলাফল ঘোষনা করে দেয়া যায়। অর্থাৎ রাতভর ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে কাগজের ব্যালট গোণার দরকার হবে না। ভোট শেষ হবার পাঁচ মিনিটের মধ্যেই ফলাফল ঘোষিত হবে।
প্রশ্ন করলাম তাহলে কাগজের ব্যালট পেপার দরকার কেন? মেশিনেইতো বাটন টিপে ভোট হতে পারতো!

নির্বাচনী কর্মকর্তা উত্তর দিলেন, না, তাহলে কোন প্রার্থী যদি নির্বাচনী ফল নিয়ে চ্যালেন্জ করে বসে তখন আমরা প্রমাণ দিব কিভাবে? সেই প্রমাণ রাখতেই কাগজের ব্যালট সংরক্ষণ করে রাখা হবে। অর্থাৎ জনগণ ভোট দিবেন কাগজের ব্যালটে, সেটা গননা হবে মেশিনে, সাথে সাথে। ব্যালট বাক্সটাই হলো সেই মেশিন। কি অপুর্ব সিস্টেম।

কোন দলের পোলিং এজেন্ট চোখে পড়লো না, কোন মার্কায় ভোট দিব তা নিয়ে কোন প্রার্থীর সমর্থকদের টানাটানি চোখে পড়লো না। ভোট দিলাম কলাগাছে, চলে গেল বটগাছে এরকম অভিযোগ কেউ করলো না! আগের রাইতে টাকা পয়সা বিলি করতে এলো না! চা পান বিড়ি কেউ সাধলো না! কোন ডিসি এসপি, পুলিশতো দুরের কথা একজন চৌকিদার দফাদারের দেখা পেলাম না। সমর্থক দালাল চামচা কারো কোন হদিস বা জটলা দেখলাম না। পোষ্টার, ব্যাচ, টুপি, দেয়াল লিখনের কোন বালাই নাই।

কিয়েক্টা অবস্হা! এইটা কোন নির্বাচন হইলো?

তারপরও নির্বাচনী ফল নিয়ে কোন প্রার্থীর, দলের কোন অভিযোগ থাকবে না, চুপচাপ কবে যে শপথ নিয়ে সংসদ অধিবেশনে বসবে বেশীরভাগ জনগন তার খবরও জানবে না! কারণ কি? উত্তর পরিস্কার। এমপি হওয়া কোন লাভজনক ব্যবসা নয়। এমপিরা কোন কাজ বা ঠিকাদারী ভাগ করেন না, অবৈধ ক্ষমতা খাটানোর কোন সুযোগ এখানে একেবারেই নেই।

স্কারবোরো, অন্টারিও, কানাডা

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles