11.4 C
Toronto
শুক্রবার, মে ২০, ২০২২

বাড়িমালিক-ভাড়াটিয়া বিপুল সংখ্যক বিবাদ অমীমাংসিত

- Advertisement -
বাড়িমালিক-ভাড়াটিয়া বিপুল সংখ্যক বিবাদ অমীমাংসিত - The Bengali Times
ফাইল ছবি

কোভিড-১৯ মহামারির শুরু থেকেই বাড়িমালিক ও ভাড়াটিয়াদের মধ্যকার বিবাদ নিস্পত্তিতে হিমশিম খাচ্ছে এ সংক্রান্ত প্রাদেশিক ট্রাইব্যুনাল দ্য ল্যান্ডল্ড টেন্যান্ট বোর্ড (এলটিবি)।২০২০ সালের মার্চ থেকে জুলাইয়ের মধ্যে ভাড়াটিয়াদের উচ্ছেদের ওপর স্থগিতাদেশ দিয়েছিল বোর্ড। গুরুত্বপূর্ণ বিবেচনা না করায় ওই সময় কোনো বিবাদেরই শুনানি করেনি বোর্ড।

মামলার ক্ষেত্রে পাঁচ মাসের স্থগিতাদেশের গুরুত্বপূর্ণ প্রভাব পড়েছে এবং বোর্ডকে যেগুলো নিয়ে অব্যাহতভাবে কাজ করতে হচ্ছে বলে ট্রাইব্যুনালস অন্টারিওর একজন মুখপাত্র গ্লোবাল নিউজকে জানান।

- Advertisement -

২০২০-২০২১ সালে ট্রাইব্যুনাল যত সংখ্যক আবেদন নিস্পত্তি করেছে তা তিন বছরের মধ্যে সর্বনি¤œ। গত মাসে বোর্ড সাকল্যে ৪৮ হাজার ৪২২টি আবেদন পেয়েছিল। যদিও আগের বছরগুলোতে আবেদন জমা পড়তো ৮০ হাজারের বেশি। গত বছর যেসব আবেদন জমা পড়েছিল তার মধ্যে ২৪ হাজার ৪৮১টি ছিল ভাড়া না দেওয়ায় বাড়ি মালিকদের উচ্ছেদের অনুরোধ সংক্রান্ত।

অ্যাসোসিয়েশন অব কমিউনিটি অর্গানাইজেশন্স ফর রিফর্ম নাউয়ের (অ্যাকর্ন) সদস্য রিয়া রিনে বলেন, উচ্ছেদের ওপর দেওয়া স্থগিতাদেশের মেয়াদ উঠে যাওয়ার পর এলটিবি উচ্ছেদের কারখানায় পরিণত হয়েছে।

রেন্টালস.সিএর তথ্য অনুযায়ী, ২০২২ সালের মার্চে ভ্যানকুভারের পর টরন্টো ছিল দ্বিথীয় সর্বোচ্চ ব্যয়বহুল নগর। এক শয়নকক্ষের একটি বাড়ির ভাড়ার তালিকা মাসে গড়ে ২ হাজার ৪৪ ডলার। এক বছর আগের তুলনায় যা ১৫ শতাংশ বেশি।

আবেদনের সংখ্যা লক্ষ্যণীয় হারে হ্রাস পাওয়ার পরও অধিক সংখ্যক সক্রিয় মামলা নিয়েই ২০২০-২০২১ সাল শেষ করেছে এলটিবি। ২০২০-২০২১ সালে মোট সক্রিয় মামলা ছিল ৩৪ হাজার ৭৩১টি। ২০১৯-২০২০ সালে যেখানে সংখ্যাটি ছিল ২২ হাজার ৮০৩ এবং ২০১৯-২০২০ সালে ১৪ হাজার ৭২৬। ২০২০-২০২১ সালে বাড়িমালিক ও ভাড়াটিয়ার মধ্যকার বিবাদ সংক্রান্ত সক্রিয় মামলা আগের বছরের তুলনায় ৫২ শতাংশ বেশি ছিল।

সম্প্রতি এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে বলা হয়, দ্রুত সিদ্ধান্ত গ্রহণ ও ল্যান্ডলর্ড টেন্যান্ট বোর্ডের মামলার সংখ্যা কমাতে আগামী তিন বছরে ১ কোটি ৯০ লাখ ডলারের বেশি বিনিয়োগ করবে প্রদেশ। ট্রাইব্যুনালের জনবল বৃদ্ধি ও প্রযুক্তিগত উন্নয়নে এই তহবিল আলাদা করে রাখা হবে।

ট্রাইব্যুনালের একজন মুখপাত্র বলেন, মামলা নিস্পত্তির সময় কমিয়ে আনতে ও বিবাদ মীমাংসা পদ্ধতি সহজ করতে এলটিবি সম্প্রতি নতুন একটি কেস ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম চালু করেছে। এই ব্যবস্থায় পক্ষগুলো সরাসরি যোগাযোগ করতে ও একটি সমাধানে আসতে পারবেন।

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles