16.8 C
Toronto
মঙ্গলবার, মে ২৪, ২০২২

সাশ্রয়ী ফ্লাইট সেবা দিতে ব্যর্থ ট্রুডো সরকার

- Advertisement -
সাশ্রয়ী ফ্লাইট সেবা দিতে ব্যর্থ ট্রুডো সরকার - The Bengali Times
কানাডিয়ানদের জন্য সাশ্রয়ী ফ্লাইট সেবা প্রদানকারী ফ্লেয়ার এয়ারলাইন্সের কার্যক্রম অবশেষে বন্ধ হচ্ছে

কানাডিয়ানদের জন্য সাশ্রয়ী ফ্লাইট সেবা প্রদানকারী ফ্লেয়ার এয়ারলাইন্সের কার্যক্রম অবশেষে বন্ধ হচ্ছে। কানাডিয়ান না হওয়ায় কার্যক্রম বন্ধ করতে হচ্ছে তাদের। এর মধ্য দিয়ে অনুদান হিসেবে এয়ারলাইন্সটিকে দেওয়া করদাতাদের বিপুল পরিমাণ অর্থ ঝুঁকির মধ্যে ফেলেছে লিবারেল সরকার।

ফ্লেয়ার এয়ারলাইন্সের কার্যক্রম চলবে কিনা তা নির্ধারণের দায়িত্ব নিয়ন্ত্রক সংস্থা হিসেবে ট্রুডো সরকারের। একই শিল্পে তারা বিনিয়োগকারীও। অর্থাৎ, একদিকে তারা রেফারি, অন্যদিকে খেলোয়াড়। এ কারণেই অন্যদের এতো আপত্তি।

- Advertisement -

আইন অনুযায়ী কানাডিয়ান কোম্পানি না হওয়ার কারণে ফ্লেয়ারের কার্যক্রম যদি বন্ধ হয়ে যায় তাহলে অনেকের চাকরি খোয়া ও প্রতিযোগিতা হ্রাস পাবে। আর তারা যদি ফ্লেয়ারের কার্যক্রম বন্ধ না করে তার অর্থ দাঁড়াবে ফ্লেয়ারের প্রতি পক্ষপাতিত্ব। সেই সঙ্গে অন্য এয়ারলাইন্সগুলো যারা বিদেশি মালিকানার আইন মেনে চলছে তাদেরকে এটা বলা যে, এসব আইন সত্যিই প্রযোজ্য নয়।

ফ্লেয়ার কার্গো ও চার্টার এয়ারলাইন হিসেবে কার্যক্রম শুরু করেএবং কানাডার প্রথম স্বাধীন অতি সাশ্রয়ী বা আল্ট্রা-লো-কস্ট ক্যারিয়ার হতে চাইছে। এটা তাদেরকে এয়ার কানাডার বাজেট বিভাগ রোগ ও সুপের সঙ্গে প্রতিযোগিতায় ফেলে দেবে। সুপের মালিকানায় রয়েছে ওয়েস্টজেট ও লিঙ্কস এবং আগামী মাসেই তারা ইউএলসিসি সেবা শুরু করতে যাচ্ছে।

ব্যাপক পরিসরে সাশ্রয়ী ফ্লাইট সেবা দিতে ফ্লেয়ার মায়ামিভিত্তিক ৭৭৭ পার্টনার্স এলএলসির সঙ্গে অংশীদারিত্ব গড়ে তুলেছে। কোম্পানিটি ফ্লেয়ারকে তাদের উড়োজাহাজ ভাড়া দিয়েছে। সেইসঙ্গে এয়ারলাইন্সটিতে ২৫ শতাংশ ইকুইটি অংশীদারিত্বও রয়েছে কোম্পানিটির।

কোভিড-১৯ মহামারির কারণে ফ্লাইট বন্ধ থাকার সময় ফ্লেয়ার ৭৭৭ এর কাছে আরও আর্থিক সহায়তা চেয়েছিল এবং তা থেকেই এ সমস্যার উদ্ভব।

কানাডিয়ান না হওয়ার কারণে ফ্লেয়ারের কার্যক্রম বন্ধ করে দেওয়ার অর্থ দাঁড়াবে একাধিক উপায়ে অর্থ হারানো। কোম্পানির কাছ থেকে এটা ফেরত পাওয়ার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। সেইসঙ্গে এর মাধ্যমে অর্থনৈতিক কর্মকা- জোরদারের যে সম্ভাবনার কথা বলা হয়েছিল তাও হারিয়ে যাবে। ট্রুডো সরকারের উচিত পরিস্কার আইন তৈরি করা এবং এয়ারলাইন্সকে উড়তে দেওয়া বা পড়তে দেওয়া। তারা যে শিল্পটিকে নিয়ন্ত্রণ করছে সেই শিল্পে সব পক্ষের হয়ে খেলতে তারা পারে না।

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles