15.3 C
Toronto
রবিবার, মে ২২, ২০২২

সেই দুই কিশোরীকে নিয়ে নতুন উদ্বেগ

- Advertisement -
সেই দুই কিশোরীকে নিয়ে নতুন উদ্বেগ - The Bengali Times
ফেসবুকের মাধ্যমে বিলকিস ও আঁখি নামের দুই কিশোরীর মধ্যে গড়ে ওঠে প্রেমের সম্পর্ক

ফেসবুকের মাধ্যমে বিলকিস ও আঁখি নামের দুই কিশোরীর মধ্যে গড়ে ওঠে প্রেমের সম্পর্ক। দুই বছর ধরে চলে তাদের প্রেম।অবশেষে বিয়ে করার সিদ্ধান্ত নেন তারা।এজন্য সোমবার (২২ মার্চ) রাতে নোয়াখালী থেকে টাঙ্গাইলের বাসাইল উপজেলায় চলে আসেন বিলকিস। গণমাধ্যমে এ খবর প্রকাশ হওয়ার পর সারা দেশে তোলপাড় সৃষ্টি হয়।

বর্তমানে ওই দুই কিশোরী নিজ নিজ পরিবারের জিম্মায় থাকলেও তাদের সমকামি ইঙ্গিত দিয়ে সংবাদ প্রকাশ ও সবিস্তার পরিচয় ব্যাপকভাবে প্রচার হওয়ায় তাদের নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বেগ তৈরি হয়েছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দুই কিশোরীকে নিয়ে অনেকের নেতিবাচক মন্তব্যের কারণেই এমন উদ্বেগ তৈরি হয়েছে বলে জানা গেছে।

- Advertisement -

এ বিষয়ে সাংবাদিক ও গবেষক আফসান চৌধুরী বলেন, গণমাধ্যম এ সংবাদ প্রকাশের ক্ষেত্রে দুই কিশোরীর নিরাপত্তা ও স্বাধীনতা-কোনটিকেই বিবেচনায় নেয়নি, যা তাদের সমাজে অনিরাপদ করে তুলতে পারে।

তিনি বলেন, যেভাবে নাম পরিচয় প্রকাশ করে সংবাদগুলো প্রকাশ করা হয়েছে তা সত্যিই বিস্ময়কর। এদেশে ভিন্নমতের বা ভিন্ন চিন্তার মানুষদের খুন করার উদাহরণ আছে। দুই কিশোরীর মধ্যে যে সম্পর্কই থাক যেভাবে খবর এসেছে সেকারণে এদের কোন ক্ষতি হলে তার দায় কে নেবে?

তবে টাঙ্গাইলের বাসাইলের ফুলকি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শামসুল আলম জানিয়েছেন, তার এলাকার মেয়েটির (আঁখি) নিরাপত্তার দায়িত্ব তিনিই নিয়েছেন। অন্যদিকে নোয়াখালীর মেয়েটির (বিলকিস) খোঁজখবর নেবে সেখানকার প্রশাসন।

শামসুল আলম বলেন, আমার কাছে মনে হয়েছে তারা ঘনিষ্ঠ বন্ধু। কিন্তু বাকী যা খবর এসেছে সেটি আমার কাছে মনে হয়নি। তারপরও প্রশাসনের সহায়তায় উভয় পরিবারের লোকজন এনে কথা বলে আমরা নোয়াখালীর মেয়েটিকে তার ভাইয়ের হাতে দিয়েছি।

গবেষক আফসান চৌধুরী উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, যে কোনভাবেই ওই দুই মেয়ে ও তাদের পরিবারের নাম পরিচয় প্রকাশ করা উচিৎ হয়নি।

তিনি বলেন, এদেশে রাজনীতিক, সম্পাদক আর গণমাধ্যম কর্মীর স্বাধীনতাকেই স্বাধীনতা বলা হয়। সাধারণ মানুষের স্বাধীনতা গণমাধ্যমের কাছেও বিবেচ্য হয় না। এই দুটি বাচ্চা মেয়েরও যে স্বাধীনতার অধিকার আছে সেটিকে বিবেচনা করা হয়নি। এখন তারা যদি কোন সমস্যায় পড়ে তাহলে দায়টা কার হবে?

বাংলাদেশে সমকামিতা আইনত নিষিদ্ধ। এছাড়া সমকামি অধিকার নিয়ে কাজ করার কারণে খুন হওয়ার উদাহরণও আছে। ২০১৬ সালে বাংলাদেশের সমকামি অধিকার কর্মী জুলহাজ মান্নান ও তার বন্ধু মাহবুব তনয়কে নিজ বাড়িয়ে কুপিয়ে হত্যা করা হয়।

এবার ওই দুই কিশোরী নিয়ে করা যেসব পত্রিকা বা টিভির খবর ফেসবুকে এসেছে সেখানে অনেকেই আক্রমণাত্মক মন্তব্য করেছেন, যা ওই দুই কিশোরীর নিরাপত্তার জন্যও উদ্বেগজনক বলে মনে করা হচ্ছে। সূত্র: বিবিসি বাংলা

 

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles