4.9 C
Toronto
মঙ্গলবার, অক্টোবর ২৬, ২০২১

কানাডার কিস্টোন পাইপ লাইনের অনুমোদন বাতিলের সিদ্ধান্ত বাইডেনের

বাইডেনের কিস্টোন পাইপ লাইন বাতিলের যে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন এতে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে কানাডাবাসী।আমেরিকার প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার প্রথম দিনেই জো বাইডেন এ সিদ্ধান্ত নেন।কানাডাবাসী মনে করছের এ সিদ্ধান্ত তুলে না নিলে দুদেশের মধ্যে সম্পর্ক তৈরিতে বিরাট প্রভাব ফেলবে। আলবার্টার প্রিমিয়ার জেসন ক্যানি যুক্তরাষ্ট্র সরকারের পাইপ লাইন সংক্রান্ত সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে কঠোর প্রতিক্রিয়া প্রকাশ করেছে।তিনি এক বিবৃতিতে পাইপ লাইনের অনুমোদন বাতিলের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের আহ্বান জানিয়ে বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ বাণিজ্যিক অংশীদার হিসেবে কানাডার প্রতি সম্মান দেখানোর জন্য আমেরিকার নতুন প্রশাসনের প্রতি আহ্বান জানাই। মার্কিন সরকারের এই সিদ্ধান্ত জাস্টিন ট্রুডোর সংখ্যালঘু সরকারকে অভ্যন্তরীণ রাজনীতিতে চাপের মধ্যে ফেলে দেবে। ইতিমধ্যে প্রধান বিরোধী দল সেই ঘোষণা দিয়েই ফেলেছে।

উল্লেখ্য, কানাডার আলবার্টার তেলক্ষেত্র থেকে অতিরিক্ত ৮৩০ হাজার ব্যারেল বিটুমিন যুক্তরাষ্ট্রের রিফাইনারিগুলোতে সরবরাহ করার জন্য এই পাইপ লাইন তৈরির উদ্যোগ নেওয়া হয়। ওবামা সরকার ক্ষমতায় এসে এই পাইপ লাইনের অনুমোদন বাতিল করে দেয়। পরে ডোনাল্ড ট্রাম্প ২০১৯ সালে এর অনুমোদন দেন।ইতিমধ্যে প্রায় ২০০ কিলোমিটার পাইপ বসানো হয়ে গেছে এবং আলবার্টা ও যুক্তরাষ্ট্রের বেশ কয়েকটি রাজ্যে পাম্প বসানোর কাজ সম্পন্ন হয়েছে।

জো বাইডেন তার নির্বাচনী ঘোষণায় এই পাইপ লাইনের অনুমোদন বাতিলের ঘোষণা দিয়েছিলেন। তবে ঠিক কবে নাগাদ এটি বাতিল করবেন সে সম্পর্কে সুনির্দিষ্টভাবে কিছু বলা হয়নি। আমেরিকায় কানাডার রাষ্ট্রদূত গত এক মাস ধরেই মার্কিন প্রশাসন এবং জো বাইডেনের ক্যাম্পেইন টিমের সঙ্গে দেনদরবার করছিলেন। কানাডার প্রত্যাশা ছিল তারা আমেরিকার প্রশাসন এবং নতুন সরকারের নীতিনির্ধারকদের পাইপ লাইনের প্রয়োজনীয়তা বোঝাতে পারবেন। তিনি বোঝানোর চেষ্টা করছিলেন- ওবামা সরকার যে প্রকল্পটি বাতিল করে দিয়েছিলেন- এটি ঠিক সেই প্রকল্প নয়।

- Advertisement - Visit the MDN site

Related Articles

- Advertisement - Visit the MDN site

Latest Articles