28.4 C
Toronto
শনিবার, জুন ২৫, ২০২২

প্রেমিকার জন্য দামি উপহার কিনতে ডাকাতি!

- Advertisement -
প্রেমিকার জন্য দামি উপহার কিনতে ডাকাতি! - The Bengali Times
প্রতীকী ছবি

প্রেমিকার মনের কোঠায় ঠাঁই পাওয়ার অন্যতম একটি উপায় হলো তার হাতে সুন্দর একটা উপহার তুলে দেওয়া। এ জন্য তাকে কী উপহার দেওয়া যায়, কোন বিষয়টিতে সে আনন্দিত হবে- এসব নিয়ে চিন্তার কোনো কমতি থাকে না কারো। অনেকেই প্রেমিকার জন্য উপহার কেনার সময় রীতিমতো মহাচিন্তায় পড়ে যান।

অনেক ঘুরে উপহার কেনার পর তার হাতে দেওয়ার পরপরই বুঝলেন যে সেটি তার পছন্দ হয়নি, আপনার পুরো কষ্টই বৃথা। তখন সেই কষ্ট প্রকাশের জায়গা থাকে না কোথাও। আবার কেউ কেউ মনে করেন দামি উপহার না দিলে প্রেমিকার মন পাওয়া যাবে না। তখন টাকার চিন্তায় বিভোর হতে হয় কাউকে কাউকে। কত দামি এবং সুন্দর উপহার দিতে পারেন চলে সেই প্রতিযোগিতা।

এবার তেমনই এক ঘটনা সামনে এসেছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যমে। তবে উপহারের অর্থ সংকুলানের সেই প্রচেষ্টা সত্যিই অভাবনীয়। এনডিটিভি শনিবার এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, প্রেমিকার জন্য উপহার কেনার অর্থ সংগ্রহের জন্য এক যুবক তার বন্ধুদের নিয়ে রীতিমতো ডাকাতি করেছেন!

প্রতিবেদনে বলা হয়, ভারতের রাজধানী দিল্লির সরোজিনী নগর এলাকা থেকে শুক্রবার তিন যুবককে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তাদের মধ্যে একজন কারাগারেও ছিলেন। কারাগার ফেরত যুবকই তার প্রেমিকাকে দামি উপহার দিয়ে খুশি করতে বন্ধুদের নিয়ে ডাকাতির পরিকল্পনা করেন বলে জানিয়েছে পুলিশ।

জানা গেছে, সরোজিনী নগর এলাকার বাসিন্দা আদিত্য কুমার পুলিশের কাছে অভিযোগ করেন, গত মঙ্গলবার স্থানীয় সময় বিকেল ৩টার দিকে তিন যুবক কলিং বেল বাজালে তিনি দরজা খোলেন। কিছু বুঝে ওঠার আগেই ধাক্কা দিয়ে ভেতরে ঢুকে যায় তারা। যুবকদের হাতে পিস্তল দেখে বেশ ভয় পেয়ে যান আদিত্য। এরপর ওই তিন যুবক তাকে মারধর করতে শুরু করে। মুহূর্তের মধ্যে তাকে বেঁধে ফেলে তারা।

এরপর ঘর থেকে ল্যাপটপ, মোবাইল ফোন, জামাকাপড়সহ একটি ব্যাগ, জ্যাকেট, জুতা, হাতঘড়ি এবং স্কুটার নিয়ে চলে যায় তিন যুবক। বেশ কিছুক্ষণ পর নিজের চেষ্টায় হাতের বাঁধন খুলতে সক্ষম হন আদিত্য।

কিন্তু ডাকাতরা মোবাইলও নিয়ে যাওয়ায় কাউকেই ফোন করতে পারছিলেন না তিনি। বাধ্য হয়ে একটি প্রায় খারাপ হয়ে যাওয়া ল্যাপটপ থেকে ফেসবুকে লগ ইন করেন। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে আত্মীয়দের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। পরে তারা পুলিশে খবর দেয়।

অভিযোগ পাওয়ার পর পুলিশ তদন্ত শুরু করে। শুক্রবার ওই তিন যুবককে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তারের পর ঘটনায় জড়িত শুভম নামে এক যুবক পুলিশকে জানান, প্রেমিকার সঙ্গে তার মনোমালিন্য চলছিল। প্রেমিকার রাগ ভাঙাতে দামি উপহার দেওয়ার কথা ভেবেছিলেন তিনি। সেই কারণেই ডাকাতির পরিকল্পনা করেন তিনি। এই কাজে তাকে সাহায্য করে বাকি দুই বন্ধু।

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles