28.4 C
Toronto
শনিবার, জুন ২৫, ২০২২

খাদ্য মূল্য রেকর্ড বৃদ্ধির পথে

- Advertisement -
খাদ্য মূল্য রেকর্ড বৃদ্ধির পথে - The Bengali Times
ছবি/ ড্যান গোল্ড

আগামী বছর কানাডায় খাদ্য মূল্য রেকর্ড সর্বোচ্চে পেঝৗঁছতে পারে বলে নতুন এক প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে। এর কারণ মূলত মহামারির কারণে চলমান সরবরাহ ব্যবস্থায় বিশৃঙ্খলা, শ্রমিক সংকট এবং বিরুপ আবহাওয়া, যা মুদিপণ্যের দাম বাড়িয়ে দিচ্ছে।

কানাডার ফুড প্রাইস রিপোর্টের দ্বাদশ সংস্করণ বৃহস্পতিবার প্রকাশ করা হয়েছে। তাতে বলা হয়েছে, ২০২২ সালে কানাডায় চার সদস্যের একটি পরিবরাকে খাদ্য বাবদ ৯৬৬ ডলার বাড়তি ব্যয় করতে হবে। এর ফলে খাদ্য বাবদ তাদের বার্ষিক ব্যয় দাঁড়াবে ১৪ হাজার ৭৬৭ ডলার। ২০২১ সালের তুলনায় এটা ৭ শতাংশ বেশি।

প্রতিবেদনের প্রধান লেখক এবং ডালহৌসি ইউনিভার্সিটির ফুড ডিস্ট্রিবিউশন অ্যান্ড পলিসির অধ্যাপক সিলভেইন চার্লিবয়েস বলেন, সস্তায় খাদ্য প্রাপ্তির যুগ শেষ। ২০১০ সাল থেকেই খাদ্যের দাম বাড়ছে এবং মহামারি সেই প্রবণতায় গতি সঞ্চার করেছে।

খাদ্য পণ্যের উচ্চ মূল্য কানাডার খাদ্য অনিরাপত্তাকে বাড়িয়ে দিতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। চার্লিবয়েস বলেন, সস্তায় খাদ্য পাওয়া এই মুহূর্তে প্রধান চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে। যেসব পরিবার বা ব্যক্তি আগে থেকেই সমস্যায় আছেন তাদের জন্য টেবিলে খাবারের জোগান দেওয়া খুব একটা সহজ হবে না।

এডমন্টনের ফুড ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক মারজোরি বেঞ্জ বলেন, মহামারির সময় ফুড ব্যাংকে খাদ্যের বর্ধিত চাহিদা লক্ষ্য করা গেছে। খাদ্যের উচ্চ মূল্য এর ওপর বাড়তি চাপ তৈরি করতে পারে। এটা ভেবে আমরা উদ্বিগ্ন যে, খাদ্য মূল্য যদি আরও বৃদ্ধি পায় তাহলে জনগণকে আরও বেশি ফুড ব্যাংকের দ্বারস্থ হতে হবে। অর্থাৎ অধিক সংখ্যক মানুষের ফুড ব্যাংকের প্রয়োজন পড়বে।

এ অবস্থায় গ্রোসারি স্টোরে চুরির ঘটনা বেড়ে গেছে বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, মুদি দোকানিরা বিভিন্ন পণ্য বিশেষ করে মাংস, পনির, ওভার দ্য কাউন্টার ওষুধ এনার্জি ড্রিংস চুরির ঘটনা বেড়ে যাওয়ার কথা জানিয়েছেন।

আগামী বছর কানাডায় খাদ্যের মূল্য ৫ থেকে ৭ শতাংশ বাড়বে বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে। তবে কিছু পণ্যের দাম বাড়বে আরও বেশি হারে। ডেইরি পণ্যের দাম বাড়তে পারে ৬ থেকে ৮ শতাংশ। কানাডিয়ান ডেইরি কমিশন দুগ্ধজাত পণ্যের দাম ফার্ম গেটে ৮ দশমিক ৪ শতাংশ বাড়ানোর প্রস্তাব দিয়েছে।

রেস্তোরাঁর খাবারের দাম বাড়তে পারে ৬ থেকে ৮ শতাংশ। বেকারি ও সবজির দাম বাড়তে পারে ৫ থেকে ৭ এবং ফলের দাম বাড়তে পারে ৩ থেকে ৫ শতাংশ। তবে সবচেয়ে কম বাড়তে পারে মাংস ও সীফুডের দাম। শূন্য থেকে ২ শতাংশ বাড়তে পারে এসব পণ্যের দাম।

কিছু প্রদেশ ২০২২ সালে প্রত্যাশার চেয়ে বেশি মূল্যস্ফীতির ধারণা করছে। আলবার্টা, ব্রিটিশ কলাম্বিয়া, নিউফাউন্ডল্যান্ড ও ল্যাব্রাডর, অন্টারিও এবং সাস্কেচুয়ার এর মধ্যে অন্যতম।

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles