21.7 C
Toronto
মঙ্গলবার, আগস্ট ৯, ২০২২

বাণিজ্য আলোচনা ফের শুরু করতে চায় কানাডা-ভারত

- Advertisement -
ভারতের আগ্রাসী যে বাণিজ্য নীতি নতুন করে আলোচনায় সামিল হওয়া তারই অংশ। ‘আর্লি হারভেস্ট’ নামে এ বাণিজ্য নীতির আওতায় তারা ব্রিটেন, ইউরোপীয় ইউনিয়ন, অস্ট্রেলিয়া ও সংযুক্ত আরব আমিরাতের পর এখন কানাডার সঙ্গে পূর্ণাঙ্গ মুক্ত বাণিজ্য চুক্তির চেষ্টা করছে

কানাডা ও ভারত অনেকটা গোপনেই মুক্ত বাণিজ্য নিয়ে আনুষ্ঠানিক আলোচনার ক্ষেত্র তৈরি করছে। মেং ওয়ানঝু ও দুই মাইকেল ঘিরে চীনের সঙ্গে টানাপড়েনের কারণে বেইজিংয়ের বিকল্প অর্থনীতি খুঁজছে ট্রুডো সসরকার।

গত বছর ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে দুই দেশের প্রতিনিধিদের সঙ্গে পরামর্শ সভা অনুষ্ঠিত হয়। আর গত অক্টোবরে অনুষ্ঠিত বৈঠকে উভয় পক্ষ থেকে প্রাথমিক বাণিজ্য প্রস্তাবও দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন কানাডায় নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার অংসুমান গৌর। তিনি বলেন, তারা এর ধরন ও সম্ভাব্য উপায় নিয়ে আলোচনা করেন।

ভারতের আগ্রাসী যে বাণিজ্য নীতি নতুন করে আলোচনায় সামিল হওয়া তারই অংশ। ‘আর্লি হারভেস্ট’ নামে এ বাণিজ্য নীতির আওতায় তারা ব্রিটেন, ইউরোপীয় ইউনিয়ন, অস্ট্রেলিয়া ও সংযুক্ত আরব আমিরাতের পর এখন কানাডার সঙ্গে পূর্ণাঙ্গ মুক্ত বাণিজ্য চুক্তির চেষ্টা করছে। এছাড়া এটা এমন এক সময় ঘটছে যখন মাইকেল স্প্যাভর ও মাইকেল কোভরিগ কানাডায় ফেরার পর তিন বছর কানাডা-চীন সম্পর্ক হিমাগারে থাকার অবসান হয়েছে। তারা এক হাজার দিনের বেশি চীনের কারাগারে আটক ছিলেন। আমেরিকার পরোয়ানার ভিত্তিতে ২০১৮ সালে হুয়াওয়ের নির্বাহী মেং ওয়ানঝুকে গ্রেপ্তারের পাল্টা হিসেবে তাদেরকে গ্রেপ্তার করা হয় বলে মনে করা হয়ে থাকে।

কানাডা এখন চীনের ওপর তাদের অর্থনৈতিক নির্ভরতা কমিয়ে আনতে চাইছে। সেই সঙ্গে এশিয়ার নতুন বাজারে বৈচিত্র্য আনার চেষ্টা করছে। সম্প্রতি তারা আসিয়ানের সঙ্গে আনুষ্ঠানিক বাণিজ্য আলোচনা শুরু করেছে।

গত গ্রীষ্মে ইতালির রোমে অনুষ্ঠিত জি২০ সম্মেলনে ভারতের সঙ্গে সম্ভাব্য বাণিজ্য চুক্তি নিয়ে দেশটির বাণিজ্যমন্ত্রী পিযুশ গয়ালের সঙ্গে আলোচনা করেন কানাডার আন্তর্জাতিক বাণিজ্য বিষয়ক মন্ত্রী মেরি এনজি। এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, কানাডা ও ভারতের মধ্যে বাণিজ্য সম্পর্ক আরও গভীর করার অবশ্যই সুযোগ রয়েছে।

স্টিফেন হারপারের নেতৃত্বাধীন কনজার্ভেটিভ সরকারের সময় এক দশক আগেই ভারতের সঙ্গে বাণিজ্য আলোচনা শুরু করে কানাডা। সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের উদ্যোগে গৃহীত নর্থ আমেরিকান ফ্রি ট্রেড এগ্রিমেন্ট নিয়ে নিবিড় আলোচনার মাঝখানে পড়ে ২০১৮ সালে তা বন্ধ হয়ে যায়। ২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারিতে কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো ভারত সফরে গিয়ে ভারতের প্রথাগত পোশাক পরিধান করায় দেশে ফিরে সমালোচনার মুখে পড়েন।

তবে জাস্টিন ট্রুডো তার দেশকে ভুল পথে নিয়ে যাচ্ছেন এমন অভিযোগ উড়িয়ে দেন গৌর। তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্র ও মেক্সিকোর ব্যাপারে মনোযোগ দেওয়া যে প্রয়োজন সেটা সসবাই বোঝেন।

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles