গোপনীয়তা ভেঙে ‘নিষিদ্ধ’ ছবির আরও এক নায়িকা আলোচনায়

- Advertisement -
রুমাই নোভিয়া (বামে)

আগে থেকেই আশঙ্কা ছিলো অসম প্রেম, লাশের সঙ্গে ডোমের অন্তরঙ্গ দৃশ্যসহ অন্যান্য আপত্তিকর বিষয় যে ছবির উপজীব্য সেই ছবি সেন্সর বোর্ডে আটকে যেতে পারে, শেষ পর্যন্ত তাই হয়েছে। কিছু সংশোধনীর পরও বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ড সিনেমাটি ‘প্রদর্শন অযোগ্য’ বলে জানিয়েছে। তাই এতে প্রেক্ষাগৃহে নয়, অনলাইনেই সিনেমাটিকে মুক্তি দিতে চলেছেন এর নির্মাতা রুবেল আনুশ। খবর বাংলাদেশ প্রতিদিন’র।

‘নিষিদ্ধ প্রেমের গল্প’ নামের এই ছবিটি নির্মাণের শুরু থেকে এ পর্যন্ত ‘ম্যাডাম ফুলি’ খ্যাত সিমলার ও কিশোর অভিনেতা মামুন আলোচনায় রয়েছেন। তবে শুধু সিমলা ও মামুনই নয় ছবিটি তিনটি গল্পে সাজানো হয়েছে তিন জোড়া অভিনয়শিল্পীকে দিয়ে। মূলত ছবির সাসপেন্স রাখতেই নাকি তাদের নিয়ে গোপনীয়তা ছিলো এতদিন! এখন শোনা যাচ্ছে, ছবির অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করেছেন নায়িকা রুমাই নোভিয়া।

- Advertisement -

বিষয়টি নিয়ে নির্মাতা রুবেল আনুশ গণমাধ্যমকে জানান, রুমাই নোভিয়াকে দিয়েই সিনেমার শুরু করেছি আমি, তাকে দিয়েই সিনেমা শেষ হয়েছে। দৈর্ঘ্যেও তার গল্পটি বেশি আবার এই সিনেমায় ব্যবহৃত দুটি গানই তাকে নিয়ে নির্মিত।’
এদিকে, রুমাই নোভিয়া গণমাধ্যমকে বলেছেন, ‘চলচ্চিত্রটিতে সিমলার মতোই তারও সম উপস্থিতি আছে। তবু, খবরে, প্রচার-প্রচারণায় তাকে কোথাও খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। তাই মন কিছুটা খারাপ তার। হয়তো অন্য কারো তারকাখ্যাতির কাছে তিনি হেরে যাচ্ছি।’

জানা গেছে, ‘নিষিদ্ধ প্রেমের গল্প’ চলচ্চিত্রটির জন্য দীর্ঘ সাত বছরের অপেক্ষা রুমাই নোভিয়ার। অথচ তিনি ছিলেন আলোচনার বাইরে, তাই রুমাইর মন ভালো করতেই বুধবার প্রকাশিত হয়েছে চলচ্চিত্রটির প্রথম গান ‘ঘর পালানো হাওয়া’। গানটির কথা লিখেছেন লিমন আহমেদ, সুর-কণ্ঠ সোহেল রাজের।

- Advertisement -

এদিকে, আবারও সেন্সর বোর্ড ছবিটি সিনেমাহলে দেখানো অযোগ্য বলে জানিয়েছে। তবে এ সিদ্ধান্তের বিপক্ষে আপিল করার সুযোগ থাকলেও সে পথে হাঁটছেন না নির্মাতা। কারণ রুবেল আনুশ মনে করেন, এতে কোনো লাভ হবে না। তাই আগামী ২৫ নভেম্বর ‘সিনেমা কটেজ’ নামের একটি ইউটিউব চ্যানেলে সিনেমাটি মুক্তি দেয়া হবে।

- Advertisement -

সিনেমাটির নাম শুরুতে ‘নিষিদ্ধ প্রেমের গল্প’ রাখা হলেও নাম পাল্টে ‘প্রেমকাহন’ রেখে সর্বশেষ সেন্সরে জমা দেওয়া হয়। কিন্তু এবার পুরনো নামেই সিনেমাটি মুক্তির চিন্তা করেছেন নির্মাতা। নির্মাতা রুবেল আনুশ গণমাধ্যমকে বলেন, ‘আমরা বিকল্প পথে সিনেমাটি মুক্তির সিদ্ধান্ত নিয়েছি। ইউটিউবে সিনেমাটি মুক্তি দেব। ইউটিউবে দেখতে আলাদা করে কোনো টাকা লাগবে না।’

এর আগে, সেন্সর বোর্ড জানিয়েছিল, সিনেমাটির গল্পে লাশের সঙ্গে অন্তরঙ্গ দৃশ্য, নায়ক-নায়িকার মধ্যে অসম প্রেম ও মাত্রাতিরিক্ত গালাগালি রয়েছে। এগুলো সাধারণ দর্শকের দেখার উপযুক্ত নয়। এ কারণেই নিষিদ্ধ করা হয়। তবে এসব অভিযোগ মানতে নারাজ নির্মাতা। তার মতে, সিনেমায় কোনো অ্যাডাল্ট দৃশ্য নেই। গালি ছিল, সেটাও মিউট করে দিয়েছেন। এরপরও কেন নিষিদ্ধ করা হয়েছে, তার বোধগম্য নয়।

 

 

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles