24.5 C
Toronto
শুক্রবার, জুলাই ১৯, ২০২৪

প্যারিস অলিম্পিকে সম্প্রচার প্রকৌশলী বাংলাদেশি জনি

প্যারিস অলিম্পিকে সম্প্রচার প্রকৌশলী বাংলাদেশি জনি
বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ইঞ্জিনিয়ার তপন মাহমুদ জনি

বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ইঞ্জিনিয়ার তপন মাহমুদ জনি এবার প্যারিস অলিম্পিকেও অন্যতম প্রকৌশলী হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন। একমাত্র বাংলাদেশী হিসেবে তিনি সম্মানজনক এই দায়িত্বে যুক্ত হয়েছেন।

এর আগেও তিনি ২০২০ সালের জাপানের টোকিও অলিম্পিক এবং ২০১৬ সালে ব্রাাাজিলের রিও অলিম্পিকে প্রকৌশলী হিসেবে দায়িত্ব পালনের জন্য মনোনীত হয়েছিলেন।

- Advertisement -

যোগ্যতার নানান ধাপ পাড় হওয়ার পরেই টোকিও অলিম্পিক সম্প্রচার কমিটি এবং রিও অলিম্পিক কমিটি এই মেধাবী প্রকৌশলীকে নিয়োগ দিয়েছিলো। সেই ধারাবাহিকতায় এবার প্যারিস অলিম্পিকেও নিজের কাজ দিয়ে বিশ্বের কোটি কোটি মানুষকে বিনোদিত করতে অন্যতম কারিগর হিসেবে কাজ করবেন।

বর্তমানে যুক্তরাজ্যভিত্তিক বিখ্যাত প্রতিষ্ঠান গোল্ডক্রেস্ট কোম্পানিতে মিডিয়া সিস্টেম ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে নিউইয়র্কে কর্মরত রয়েছেন। এই প্রতিষ্ঠান হলিউড মুভির পোস্ট প্রোডাকশনের জন্য কাজ করে থাকে। এই গোল্ডক্রেস্ট কোম্পানিতে গত কয়েক বছর সুনামের সাথে কাজ করে বেশ প্রশংসিত হয়েছেন তপন মাহমুদ জনি।

এদিকে, রিও এবং টোকিওর পর এবার প্যারিস অলিম্পিকে নিজেকে মেলে ধরতে প্রস্তত বলে জানান তপন মাহমুদ জনি। এরই মধ্যে চূড়ান্তভাবে প্রস্ততি নিয়েছেন তিনি। ২৬ জুলাই থেকে ১১ আগস্ট পর্যন্ত বিশ্বের অন্যতম জনপ্রিয় শহর প্যারিসে অনুষ্ঠিত হবে এবারের গ্রীষ্মকালীন অলিম্পিক। এই আসরে একমাত্র বাংলাদেশী প্রকৌশলী হিসেবে এবারো নিজেকে প্রমাণ করবেন জনি। মার্শেই স্টেডিয়ামে ব্রডকাস্ট অপারেশনের দায়িত্ব পালন করবেন। যেখানে বিশ্বের বড় তারকারা আলো ছড়াবেন।

এদিকে, ২০১৬ সালে ব্রাজিলের রিও অলিম্পিক গেমসকে মডার্ন পেন্টাথলন এবং রাগবি ৭ ইভেন্ট কভার করতে সহায়তা করেছিলেন এই অভিজ্ঞ প্রকৌশলী। রিও অলিম্পিকে বিশ্বের বৃহত্তম ইভেন্টের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ সম্প্রচারকর্মী ছিলেন জনি। কানাডা, রাশিয়া, জার্মান টেকনিক্যাল সহকর্মীদের সঙ্গে তিনি বাংলাদেশের পতাকা বহন করেছিলেন। সেখানে তাদের মূল দায়িত্ব ছিল ১ বিলিয়ন মানুষকে ইভেন্ট দেখার প্রত্যক্ষ অভিজ্ঞতা নিশ্চিত করা। পাশাপাশি বিভিন্ন ইভেন্টের ব্রডকাস্ট সুবিধার ধারাবাহিকতা বজায় রাখা এবং পর্যবেক্ষণ করার জন্য নিরবিচ্ছিন্নভাবে কাজ করেছিলেন সেখানে।

অলিম্পিকের অভিজ্ঞতা সম্পর্কে তপন মাহমুদ জনি বলেন, ‘এটি জীবনের তাঁর অন্যতম বৃহত্তম স্মৃতি। আবারো এমন একটি দায়িত্ব পাওয়ায় নিজের প্রতি আত্মবিশ্বাস বেড়েছে।’

প্যারিস অলিম্পিকেও নতুন দায়িত্ব পাওয়ায় বেশ পুলকিত তিনি। নিজের সর্বোচ্চ দিয়ে দেশের সুনাম বাড়াতে বেশ প্রত্যয়ী বলে জানান তিনি। বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তের নতুন, পুরনো বন্ধু এবং সহকর্মীদের সাথে দেখা করার রোমাঞ্চকর মুহুর্তের অপেক্ষায় রয়েছেন বলে জানান তিনি।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles