র‌্যাগিংয়ে অশ্লীল গানে নাচতে হয় দুই ছাত্রীকে, প্রক্টরকে লিখিত অভিযোগ

- Advertisement -

 

ফাইল ছবি

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রোকেয়া হলের ম্যানেজমেন্ট বিভাগের প্রথম বর্ষের দুই শিক্ষার্থীকে রাতভর র‍্যাগিংয়ের নামে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে হলের তৃতীয় বর্ষের পাঁচ শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে। গত মঙ্গলবার রাতে হলের অপরাজিতা বিল্ডিংয়ের ৪ নম্বর কক্ষে রাত সাড়ে ১০টা থেকে ১টা পর্যন্ত এই নির্যাতন চালানো হয়েছে বলে ভুক্তভোগীদের অভিযোগ। বুধবার ভুক্তভোগী এক শিক্ষার্থী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরের কাছে এ ঘটনায় লিখিত অভিযোগ করেছেন।

- Advertisement -

অভিযুক্তরা হলেন- ক্রিমিনোলজি বিভাগের শিক্ষার্থী জুলি মারমা ও নাসরিন জাহান খুশি, মার্কেটিং বিভাগের জান্নার নিপো ও রিনাকী চাকমা এবং দর্শন বিভাগের শিক্ষার্থী পূজা দাস।

লিখিত অভিযোগে ওই ছাত্রী বলেন, ওইদিন রাত ১টা পর্যন্ত আমাদের ওপর অভিযুক্তরা নানাভাবে নির্যাতন করেন। ধমক দেন, গালাগালি করেন এবং অশ্লীল গানে নাচতে বাধ্য করেন। না নাচলে খারাপ কিছু করার হুমকি দেন। এ সময় অভিযুক্তদের মধ্যে একজন বলছিলেন, ‘র‍্যাগ দে র‍্যাগ দে, চিল হবে চিল’। প্রশাসনিকভাবে হলে উঠেছি বলে জানালে তারা বলেন, ‘প্রশাসন আবার কিসের? আমরা দেই বলে তোরা এখানে থাকতে পারিস, না হয় পারতি না।’ এছাড়া র‌্যাগিং শেষে অভিযুক্তরা বলেন, ‘প্রভোস্ট ম্যামকে অভিযোগ করবি? ম্যামকে বলে কোনো লাভ নাই। আমাদের কিছুই হবে না।’

- Advertisement -

অভিযুক্ত শিক্ষার্থীরা বলেন, আমরা তিন নম্বর রুমে থাকি আর তারা (ভুক্তভোগীরা) চার নম্বর রুমে থাকে। আমরা প্রায়ই ওদের রুমে যাই, নাচানাচি করি। তারই অংশ হিসেবে কালকে গিয়েছিলাম। তাদের নাচতে বললে তারা নাচতে পারে না বলে জানায়। এরপর আমরা তাদের দুইজনের হাত টেনে একসঙ্গে নাচি, এর বেশি কিছু নয়।

- Advertisement -

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক একেএম গোলাম রব্বানী বলেন, ‘অভিযোগটি পেয়েছি এবং গ্রহণ করেছি। যেহেতু এটি হলের বিষয়, তাই প্রভোস্টকে ভুক্তভোগী ও অভিযুক্তদের কথা শুনতে এবং প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে বলেছি।’

এদিকে ভুক্তভোগী ও অভিযুক্ত শিক্ষার্থীদের নিয়ে বসে বিষয়টির মীমাংসা এবং ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানিয়েছেন হল প্রভোস্ট অধ্যাপক ড. জিনাত হুদা।

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles