16.1 C
Toronto
বৃহস্পতিবার, জুলাই ২৫, ২০২৪

বিএনপি-জামায়াতের কাজই হচ্ছে মানুষ পুড়িয়ে মারা: প্রধানমন্ত্রী

বিএনপি-জামায়াতের কাজই হচ্ছে মানুষ পুড়িয়ে মারা: প্রধানমন্ত্রী

আগুন দিয়ে মানুষ পুড়িয়ে মারাই বিএনপি-জামায়াতের কাজ বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা। আজ সোমবার বিকেলে খুলনা সার্কিট হাউস মাঠে আওয়ামী লীগ আয়োজিত বিভাগীয় মহাসমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

- Advertisement -

আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, ‘আওয়ামী লীগ যখন ক্ষমতায় আসে তখন জনগণের উন্নয়ন হয়। দুর্ভাগ্যের বিষয়, বিএনপি মানে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড। বিএনপি-জামায়াতের কাজই হচ্ছে আগুন দিয়ে মানুষ পুড়িয়ে মারা। মানুষ খুন তাদের একমাত্র গুণ। বিএনপি-জামায়াতের আর কোনো গুণ নেই।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আপনারা দেখেছেন এই ২৮ অক্টোবর কীভাবে পুলিশকে মাটিতে ফেলে পিটিয়ে পিটিয়ে হত্যা করেছে। বেহুঁশ হয়ে গেছে তাও ছাড়েনি। তারপর কুপিয়েছে। ৪৫ জন পুলিশ আহত হয়েছে। সাংবাদিকদেরও ছাড়েনি। সাংবাদিকদের তারা পিটিয়ে হাসপাতালে পাঠিয়েছে। রাজারবাগ পুলিশ স্টেশনে ঢুকে হাসপাতালে আক্রমণ করেছে। কয়েকটা অ্যাম্বুলেন্স ভেঙেছে, পুড়িয়ে দিয়েছে। অ্যাম্বুলেন্সে করে রোগী যাচ্ছে সেই অ্যাম্বুলেন্সে আক্রমণ করেছে। এদের মধ্যে এতটুকু মনুষত্ববোধ আছে বলে আমি মনে করি না।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমার একটাই লক্ষ্য এ দেশের মানুষের ভাগ্যের উন্নয়ন করা। ২০০৮ সাল ২০১৪, ২০১৮ সালে ক্ষমতায় এসেছি। ধারাবাহিক গণতান্ত্রের ধারা অব্যাহত রয়েছে।’

এর আগে দুপুর ১২টা ৫০ মিনিটে হেলিকপ্টারে খুলনা জেলা স্টেডিয়ামে অবতরণ করেন প্রধানমন্ত্রী। এরপর দুপুর ১টা থেকে ২টা পর্যন্ত সার্কিট হাউসে বিভাগীয় পর্যায়ের কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন প্রধানমন্ত্রী। এরপর হাউস মাঠে তিনি ২৯টি উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন।

এদিকে সোমবার বেলা ১১টা ৫০ মিনিটে মহাসমাবেশ শুরু হয়। সমাবেশে দিচ্ছেন স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতারা। সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও কেসিসি মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক।

এর আগে পৌনে ১১টায় মঞ্চের প্রাথমিক আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়। শুরুতে সাংস্কৃতিক সংগঠন রূপান্তরের শিল্পীরা বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশকে উপজীব্য করে একক ও সমবেত সঙ্গীত পরিবেশনা করেন। এরপর কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় নেতারা বক্তৃতা শুরু করেন। এ সময় ছিলেন বঙ্গবন্ধুর ভাতিজা বাগেরহাট-১ আসনের সংসদ সদস্য শেখ হেলাল। বক্তব্য দেন শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মুন্নুজান সুফিয়ান, পানিসম্পদ উপমন্ত্রী এ কে এম এনামুল হক শামীম, জলবায়ু উপমন্ত্রী হাবিবুন নাহার, মৎস্য প্রতিমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম।

অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, সাংগঠনিক সম্পাদক ও জাতীয় সংসদের হুইপ আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন, এস এম কামাল হোসেন, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সদস্য, সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী আ ফ ম রহুল হক, গ্লোরিয়া সরকার ঝর্না, পারভীন জামান কল্পনা, নির্মল কমার চ্যাটার্জিসহ আরও অনেকে।

এসময় মঞ্চে ছিলেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য আবদুর রহমান, খুলনা সিটি মেয়র তালুকদার আবদুল খালেক, আওয়ামী লীগের যুগ্মসাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ, সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল, নৌ-প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরীসহ আরও অনেকে।

সূত্র : আমাদের সময়

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles