ধর্ম গোপন রেখে বিয়ে, স্বীকৃতি না পেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা তরুণীর

- Advertisement -
ফাইল ছবি

নেত্রকোনার মদনে নিজের ধর্ম ও পরিচয় গোপন রেখে এক গার্মেন্টস কর্মীকে বিয়ে করেন তাপস চন্দ্র বিশ্বাস। ৩ বছর সংসার করার পর এখন স্ত্রীর মর্যাদা দিতে অস্বীকৃতি জানালে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন ওই তরুণী। সোমবার (১ নভেম্বর) সকালে উপজেলার কাইটাইল ইউনিয়নের কেশজানী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

এদিকে ধর্ম পরিবর্তন করে মুসলিম মেয়েকে বিয়ে করায় এলাকায় সমালোচনা সৃষ্টি হয়ে। ভুক্তভোগী তরুণী শেরপুর জেলার সন্নাসীরচর গ্রামের নূর ইসলামের মেয়ে মিনা আক্তার (২০)।

- Advertisement -

ভুক্তভোগী তরুণী আরটিভি নিউজকে জানিয়েছেন, মদন উপজেলার কেশজানী গ্রামের সুধাংশু বিশ্বাসের ছেলে তাপস চন্দ্র বিশ্বাস। গাজীপুরে কাঁচামালের ব্যবসা করার সময় তার সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে।

এক পর্যায়ে তাপস চন্দ্র বিশ্বাস নিজের পরিচয় গোপন রেখে সুমন ইসলাম পরিচয় দিয়ে ২০১৮ সালে ১৩ ডিসেম্বর ঢাকার কুড়িল বিশ্বরোডে নিয়ে রেজিস্ট্রি না করে বিয়ে করে। চলতি বছরে ৭ সেপ্টেম্বর তাপস না জানিয়ে আবার বিয়ে করে। সংবাদ পেয়ে সে তাপসের বাড়ি গেলে তাকে মানসিক রোগী বলে পুলিশ হেফাজতে পাঠানো হয়।

- Advertisement -

মদন থানার পুলিশ মেয়েটিকে নেত্রকোনা সদর থানায় পাঠায়।

- Advertisement -

এদিকে তাপস চন্দ্র বিশ্বাস তার স্ত্রী তাকে ছেড়ে চলে গেছে বলে মিনা আক্তারের মোবাইলে এসএমএস পাঠায়। এরই প্রেক্ষিতে রোববার ওই তরুণী তাপসের গ্রামের বাড়ি কেশজানী চলে আসে। তারপর তাপসসহ পরিবারের লোকজন তাকে গ্রহণ না করায় সে অনশনে বসে। এক পর্যায়ে মেয়েটি আত্মহত্যার চেষ্টা করলে বাড়ির লোকজন তাকে রক্ষা করে।

মিনা আক্তার আরটিভি নিউজকে আরও জানিয়েছেন, বিয়ের খবর পেয়ে আমি আসলে আমাকে মানসিক রোগী বানানো হয়। আমি নিরুপায় হয়ে স্ত্রীর স্বীকৃতির দাবিতে এখানে এসেছি। আমাকে স্ত্রীর স্বীকৃতি না

দিলে আমি যাব না, আমার মরদেহ যাবে।

অভিযুক্ত তাপস চন্দ্র বিশ্বাস আরটিভি নিউজকে জানিয়েছেন, ওই তরুণীর সঙ্গে আমার প্রেমের সম্পর্ক ছিল। কিন্তু আমি আমার ধর্ম গোপন রেখে বিয়ে করিনি। সে যদি বিয়ের কাগজপত্র দেখাতে পারে তাহলে আমি তাকে স্ত্রী হিসেবে গ্রহণ করব।

মদন থানার ভারপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ ফেরদৌস আলম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে আরটিভি নিউজকে বলেন, ছেলে এবং মেয়ে উভয়কেই জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। মেয়েটি লিখিত অভিযোগ দিলে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles