5.6 C
Toronto
মঙ্গলবার, এপ্রিল ১৬, ২০২৪

উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখার ৫ ঘরোয়া উপায়

উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখার ৫ ঘরোয়া উপায়
ছবি সংগৃহীত

আজ ১৭ মে, বিশ্ব উচ্চ রক্তচাপ দিবস। এ বছর দিবসটির প্রতিপাদ্য ‘সঠিকভাবে রক্তচাপ মাপুন, নিয়ন্ত্রণে রাখুন এবং দীর্ঘজীবী হোন’।

আমাদের দেশে উচ্চ রক্তচাপের সমস্যায় অনেকেই ভোগেন। উচ্চ রক্তচাপ নির্ণয় না করার কারণে অনেকেই জানেন না তিনি রোগটিতে আক্রান্ত। এর ফলে শরীরে নানা রকম জটিলতা তৈরি হতে পারে।

- Advertisement -

যাদের রক্তচাপ অনেক বেশি তাদের নিয়মিত ওষুধ খেয়ে যেতে হয়। অনেক সময়ে সব কিছুর পরেও রক্তচাপ কমানো মুশকিল হয়ে পড়ে। তাই বেশি বাড়াবাড়ি হওয়ার আগেই বাড়িতে কিছু ঘরোয়া উপায় মেনে চলার চেষ্টা করুন। স্বাস্থ্যকর জীবনযাপন বেছে নিন। হয়তো অনেকটাই সমস্যা কমতে পারে।

>> রিফাইন্ড কার্বোহাইড্রেট এড়িয়ে চলুন। ময়দা, চিনি, সাদা ভাত, কেক, প্যাটি, বার্গার, সাদা পাউরুটির মতো খাবার খাওয়ার অভ্যাস ত্যাগ করুন। এমনি আটার রুটির বদলে জোয়ার, বাজরা, রাগির রুটি খেতে পারেন। সাধারণ ইডলি-ধোসার বদলে সুজি বা রাগির ইডলি খান। হোল-হুইট গ্রেনের আটা পাউরুটি খান। ওজন যত নিয়ন্ত্রণে রাখবেন, তত রক্তচাপও কম থাকবে।

>> ওজন কমানো বা নিয়ন্ত্রণে রাখতে অবশ্যই নিয়মিত শরীরচর্চাও প্রয়োজন। যাদের উচ্চ রক্তচাপ রয়েছে তাদের প্রত্যেকদিন অন্তত ৩০ থেকে ৪০ মিনিট শরীরচর্চা করা আবশ্যিক। যত কার্ডিয়ো করবেন, তত রক্ত চলাচল বেশি হবে, তত হৃদযন্ত্র সুস্থ থাকবে। কোনও রকম দীর্ঘ অসুখ বা হৃদরোগের আশঙ্কা কমবে। ৩০ মিনিট ব্রিস্ক ওয়াক বা জগিংয়ে উপকার পাবেন।

>> বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছে, প্রত্যেক দিন ৫ গ্রামের বেশি লবণ খাওয়া উচিত নয়। যাদের উচ্চ রক্তচাপের সমস্যা তাদের আরও চলবে না। বিশেষ করে আমরা অনেক সময় বুঝতে পারি না বাইরের জাঙ্ক ফুড বা বিস্কুট-চানাচুরেও কতটা লবণ থাকে। তাই যে কোনও বাইরের খাবার খাওয়ার আগে সাবধান হন।

>> পটাশিয়াম বেশি যেতে হবে শরীরে। যাদের উচ্চ রক্তচাপ রয়েছে, তাদের জন্য পটাশিয়াম অত্যন্ত জরুরি পুষ্টি। তাই কলা, অ্যাভোক্যাডো, টমেটো, রাঙা আলু, স্যামন মাছ, টুনা, বাদাম, দইয়ের মতো খাবার নিত্য খাদ্যতালিকায় রাখুন।

>> ধূমপান, মদ্যপান অবশ্যই কমিয়ে ফেলুন। ধূমপান ছেড়ে দিন। মদ্যপান করুন খুব সীমিত ভাবে। হালের গবেষণা বলছে, অ্যালকোহল প্রায় ১৬ শতাংশ রক্তচাপ বাড়িয়ে দিতে পারে। নিকোটিনও আমাদের রক্তনালীর মারাত্মক ক্ষতি করে। তাই এগুলি এড়িয়ে চলাই ভাল।

যদি স্বাস্থ্যকর জীবন বেছে নেন, তা হলে ধীরে ধীরে নিজে থেকেই রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে চলে আসবে। পর্যাপ্ত পরিমাণে ঘুম, পানি খাওয়া এবং মানসিক চাপ কম করলে শরীরের অনেক সমস্যা কমে যেতে পারে।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles