পরাজয়ের দায় নিজের কাঁধে নিলেন রিয়াদ

- Advertisement -
মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ

টানা দুই হারের পর ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে জয়টা নাগালের মধ্যেই ছিল টাইগারদের। কিন্তু নাটকীয় শেষ ওভারে খুব কাছে গিয়েও জিততে না পারার দায়টা নিজের কাঁধেই নিয়েছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। অধিনায়কের মতে, শেষ বলের পরিকল্পনা কাজে লাগাতে না পারাতেই হেরেছে দল।

শারজায় শুক্রবার (২৯ অক্টোবর) সন্ধ্যায় শ্বাসরুদ্ধকর এই ম্যাচে শেষ বলে জয়ের জন্য বাংলাদেশের প্রয়োজন ছিল মাত্র ৪টি রান। আন্দ্রে রাসেলের করা সেই বলটি অবশ্য ব্যাটেই স্পর্শ করাতে পারেননি রিয়াদ। এতে ক্যারিবীয়রা পায় ৩ রানের রোমাঞ্চকর জয়। এর আগের পাঁচ বলে অবশ্য ৯টি রান নিতে পারেন রিয়াদ-আফিফরা।

- Advertisement -

এমন তীরে এসে তরী ডোবানো ম্যাচ শেষে রিয়াদ জানান, শেষ বলে তাঁর কেমন পরিকল্পনা ছিল সেই কথা। অধিনায়ক বলেন, ‘শেষ বল রাসেল ব্লক হোলে করবে জানতাম। যেহেতু লেগ সাইডে চারটা ফিল্ডার ছিল। আগের দুই বলে ভালো ইয়র্কার করেছে, রান তুলতে পারিনি। তাই চিন্তা করছিলাম ও যদি মিস করে তাহলে আমি মিড অফ, কভার, পয়েন্ট বা ব্যাকওয়ার্ড পয়েন্ট দিয়ে মারতে পারব। কিন্তু এটা আমি কাজে লাগাতে পারিনি, সব আমারই দোষ।’

এর আগে ১৯তম ওভারের শেষ বলে ডোয়াইন ব্রাভোকে ছক্কা হাঁকাতে গিয়ে জেসন হোল্ডারের হাতে তালুবন্দী হন লিটন। মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ মনে করেন, ওই মুহূর্তে লিটনকে হারিয়েই লড়াইয়ে পিছিয়ে পড়ে দল।

- Advertisement -

রিয়াদ বলেন, ‘আমরা ঠিকঠাক মতই ব্যাটিং করছিলাম। আমার আর লিটনের জুটিটা মোটামুটি ভালোই হচ্ছিল। ব্রাভোর ওই বলটায় ছক্কা হয়ে গেলে আমরা অনেকটা এগিয়ে যেতাম। এটা অনেক বড় টার্নিং পয়েন্ট ছিল। লিটনও তখন সেট ছিল। দুইজন সেট ব্যাটার লাস্ট ওভারে থাকলে যে কোনো একজন হয়ত একটা বাউন্ডারি বা ছক্কা মারলে ইতিবাচক প্রভাব পড়ত।’

- Advertisement -

যাইহোক, সেটা আর হয়নি। যার ফলে টানা টিম ম্যাচে হেরে সেমির ট্রাক থেকে ছিটকে গেল বাংলাদেশ। এখন টাইগারদের লক্ষ্য থাকবে সুপার টুয়েলভে অন্তত একটি জয়। যদিও এখনও দুটি ম্যাচ বাকি আছে- যার একটি আগামী ২ নভেম্বর দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে। আর দ্বিতীয়টি তথা বাংলাদেশ শেষ ম্যাচটি খেলবে অজিদের বিপক্ষে, আগামী ৪ নভেম্বর।

এদিকে, দল হারলেও এদিন রান পেয়েছেন মুহুর্মুহু সমালোচনায় জর্জরিত লিটন দাস। সাকিবকে ওপেনিংয়ে নামিয়েও এদিন সফল হয়নি টিম ম্যানেজমেন্ট। মাত্র ৯ রান করে আউট হন সাকিব। আর তিনে নেমে দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৪৩ বলে ৪৪ রানের ইনিংস খেলে আউট হন লিটন দাস।

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles