‘চোখে কালো কাপড় বেঁধে ক্রসফায়ারেরও হুমকি দেওয়া হয়েছে’

- Advertisement -


ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নুর

ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নুর অভিযোগ করেছেন চট্টগ্রামে পূজামণ্ডপে হামলার ঘটনায় ছাত্র ও যুব অধিকার পরিষদের নেতাদের ক্রসফায়ারের হুমকি দিয়ে স্বীকারোক্তি আদায় করা হয়েছে। নুরের দাবি, এ ঘটনা স্বীকার না করলে চোখে কালো কাপড় বেঁধে ক্রসফায়ারেরও হুমকি দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া প্রত্যেকের পরিবারের কাছে পুলিশ এক লাখ টাকা চেয়েছে। টাকা না দিতে পারায় মামলায় জড়িয়ে জোরপূর্বক একজনের কাছ থেকে ১৬৪ ধারার জবানবন্দি নেওয়া হয়েছে।

রবিবার বিকেলে রাজধানীর পুরানা পল্টনে ছাত্র ও যুব অধিকার পরিষদের কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব বলেন ছাত্র ও যুব অধিকার পরিষদের নেতা নুরুল হক।

- Advertisement -

সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘পুলিশের দাবি, সিসিটিভির ফুটেজ দেখে তাদের (ছাত্র ও যুব অধিকারের নেতা) গ্রেপ্তার করা হয়েছে। কিন্তু সেই ফুটেজ পুলিশ গণমাধ্যমের কাছে উপস্থাপন করুক। তারা কিন্তু সেটি করছে না। বরং তারা হুমকি দিচ্ছে, আমরা যেন এটি নিয়ে বাড়াবাড়ি না করি।’

চট্টগ্রামের জে এম সেন হল পূজামণ্ডপে হামলার ঘটনায় ছাত্র অধিকার পরিষদের চট্টগ্রাম কমিটির সাবেক আহ্বায়ক হাবিবুল্লাহ মিজান রবিবার চট্টগ্রামের আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। সেখানে তিনি ১৫ অক্টোবরের ওই হামলার দুদিন আগে এ বিষয়ে পরিকল্পনা করার কথা বলেছেন বলে সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে।

- Advertisement -

পূজামণ্ডপে হামলার মামলায় গত বৃহস্পতিবার চট্টগ্রাম নগরের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে ছাত্র–যুব অধিকার পরিষদের ৯ নেতা–কর্মীসহ ১০ জনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। চট্টগ্রামের কোতোয়ালি থানা-পুলিশ বলছে, পরিকল্পনা অনুযায়ী মণ্ডপে হামলার দিন মুসল্লিদের জড়ো করেন যুব অধিকার পরিষদের নেতারা।

- Advertisement -

পুলিশের তদন্তে জনগণের আস্থা নেই বলে দাবি করে ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক সাম্প্রতিক সাম্প্রদায়িক হামলার ঘটনায় বিচার বিভাগীয় তদন্তের দাবি জানান।

তিনি বলেন, ‘মোদিবিরোধী আন্দোলনের সময় আমাদের ৬২ নেতা-কর্মীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। তাদের মধ্যে ভুক্তভোগী শাকিলুজ্জামান আছেন, মোল্লা বিন ইয়ামিন আছেন, তাদের ঝুলিয়ে নির্যাতন করা হয়েছিল। তারা যেন রাজনীতি না করেন, সেই অঙ্গীকার চাওয়া হয়েছিল।’

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles