-4.5 C
Toronto
বুধবার, ফেব্রুয়ারী ১, ২০২৩

নিজেকে শেষ করে দেওয়ার আগে সেদিন কী করছিলেন তুনিশা?

নিজেকে শেষ করে দেওয়ার আগে সেদিন কী করছিলেন তুনিশা?
অভিনেত্রীর এই আচরণের কোনও ব্যখ্যা কারও কাছেই নেই বলছেন অভিনেতা শঙ্কর ছবি সংগৃহীত

মৃত্যুর কয়েক ঘণ্টা আগেও মজা করে ইনস্টাগ্রাম পোস্ট দিয়েছিলেন ভারতীয় অভিনেত্রী তুনিশা শর্মা। ডান হাতের কবজিতে রক্তের দাগ, মুখ বিকৃত করে ছিলেন, যেন নিজেই নিজের হাতের শিরা কেটেছেন! না, তা নয়, মেকআপ রুমে তাকে সাজানো হচ্ছিল তখন।

‘আলিবাবা: দাস্তান-এ-কাবুল’ সিরিয়ালের সেটে উপস্থিত সহকর্মীরা জানান, সেদিন বেশ ফুরফুরে মেজাজেই ছিলেন অভিনেত্রী। বিরতির ফাকে এমন এক কাণ্ড করে বসবেন তুনিশা, কেউই ভাবতে পারেননি! ঠিক কী হয়েছিল ২৪ ডিসেম্বর?

- Advertisement -

স্পষ্ট ছবি তুলে ধরলেন তুনিশা-কাণ্ডে অভিযুক্ত শীজান খানের বন্ধু শঙ্কর মিশ্র। তিনিও সেদিন সব কিছুর সাক্ষী ছিলেন বলে জানান। তুনিশার মৃত্যুতে তার মা বনিতা শর্মা অভিযোগের আঙুল তুলেছেন মেয়ের প্রাক্তন প্রেমিক শীজানের দিকেই। ‘আলিবাবা: দাস্তান-এ-কাবুল’ সিরিয়ালের নায়ক তিনি। তুনিশা ছিলেন নায়িকা। সিরিয়ালের সেটেই তাদের কথা কাটাকাটি হয়েছিল বলে জানা গিয়েছিল এর আগে। তারপরই নাকি নিজেকে শেষ করে দেন তুনিশা! শঙ্করের দাবি, তিনি দেখেছিলেন। এমন কিছুই ঘটেনি।
দিব্যি খোশমেজাজে সবার সঙ্গে আড্ডা দিচ্ছিলেন তুনিশা। তার মৃত্যুর আগে পর্যন্ত কেউ কিছুই টের পায়নি। অভিনেত্রীর এই আচরণের কোনও ব্যখ্যা কারও কাছেই নেই, বলছেন অভিনেতা শঙ্কর।

অভিযুক্ত শীজানের পক্ষ নিয়ে তিনি জানান, কখনও তাকে মাদক সেবন করতে দেখেননি। এ ধরনের কোনও আসক্তি শীজানের ছিল বলেও তিনি জানতেন না। তার কথায়, “তুনিশা হঠাৎ এই কাণ্ড করবে আমরা কেউ বুঝতে পারিনি। ওকে যখন হাসপাতালে নিয়ে যাচ্ছি তখনও কেঁদে চলেছে শীজান। তারপরই পুলিশ ওকে হাজতে নিয়ে যায়।”

শঙ্করই বলেন, “তুনিশা সেদিন খুব হাসিখুশি ছিল। তাছাড়া এমনিতেও ওকে সবাই ভালবাসত। বাচ্চাদের মতো সবাই ওকে শুটিংয়ের সেটে আদর-স্নেহ করত।” আর শীজান? বন্ধুর কথায়, “ও খুব শান্তশিষ্ট ছেলে। আমি ওকে কোনও দিন রেগে যেতেই দেখিনি। কারও সঙ্গে দুর্ব্যবহার করা তো দূরের কথা। তুনিশার সঙ্গে আমি ওকে খারাপ কিছু করতে দেখিনি। মাদকও নিত না।”

এদিকে পুলিশ জানিয়েছে, প্রেমিক তথা সহ-অভিনেতা শীজানের সঙ্গে বিচ্ছেদের ১৫ দিন পর, সিরিয়ালের সেটে জীবন শেষ করে দিয়েছেন তুনিশা। যে ঘটনা বিনোদন দুনিয়ায় আলোড়ন ফেলেছে। ‘আত্মহত্যা’ বলে মানতে পারছেন না তুনিশার মা বনিতা শর্মা। তার দাবি, শীজানই তুনিশার মৃত্যুর জন্য দায়ী। তার অভিযোগ, মাদক সেবন করতেন অভিনেতা। আরও একাধিক নারীর সঙ্গে সম্পর্কে থেকে তুনিশাকে ঠকিয়েছেন বলেও অভিযোগ। শুধু তা-ই নয়, তুনিশাকে বিয়ের প্রস্তাবও নাকি দিয়েছিলেন শীজান। তুনিশার মায়ের অভিযোগের ভিত্তিতেই পুলিশ শীজানকে গ্রেফতার করেছে।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles