6 C
Toronto
বুধবার, ফেব্রুয়ারী ৮, ২০২৩

যেভাবে কঠোর নজরদারিতে আমেরিকায় নেওয়া হল জেলেনস্কিকে

যেভাবে কঠোর নজরদারিতে আমেরিকায় নেওয়া হল জেলেনস্কিকে
ছবি সংগৃহীত

চলতি বছরের ২৪ ফেব্রুয়ারি সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নের দেশ ইউক্রেনে বিশেষ সামরিক অভিযান শুরু করে রাশিয়া। দীর্ঘ ১০ মাস ধরে চলছে এই যুদ্ধ। রুশ বাহিনী ইতোমধ্যে ইউক্রেনের বেশ কিছু অঞ্চল দখলে নিয়েছে। তবে পশ্চিমাদের অস্ত্র সহায়তায় ওইসব এলাকা উদ্ধারে জোর তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে ইউক্রেন।

সম্প্রতি রুশ বাহিনী ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভে ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা জোরদার করেছে। প্রবল এই হামলার মাঝেই আমেরিকা সফরে গেলেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভোলোদিমির জেলেনস্কি।

- Advertisement -

আকাশযাত্রায় রুশ যুদ্ধবিমানের হামলা এড়ানোর জন্য যাত্রপথের নজরদারিতে ছিল ন্যাটো জোটের গুপ্তচর বিমান। আমেরিকার যুদ্ধবিমান ‘আগলে নিয়ে’ যায় তাকে। ইউক্রেনে রুশ হামলা শুরুর পর এটিই জেলেনস্কির প্রথম বিদেশ সফর।
পশ্চিমা বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের দাবি, আমেরিকার বিমান বাহিনীর বোয়িং সি-৪০ প্লেনে ওয়াশিংটন পৌঁছেছেন জেলেনস্কি। তার বিমানযাত্রার একাংশ ছিল কৃষ্ণসাগরের রুশ নিয়ন্ত্রিত পানিপথের অদূরে। সেখানে নিয়মিত টহল রয়েছে রুশ নৌবাহিনীর ডুবোজাহাজের। তাই আমেরিকার বিমানবাহিনীর এফ-১৫ যুদ্ধবিমানের পাহারায় নিয়ে যাওয়া হয় ইউক্রেনের প্রেসিডেন্টের বিমানকে। পোল্যান্ড, জার্মানি এবং উত্তর ইংল্যান্ডের আকাশসীমা পার হয়ে বুধবার রাতে আমেরিকায় পৌঁছায় জেলেনস্কির বিমান।

প্রবল শীত আর তুষারপাতের মধ্যে ঝাঁকে ঝাঁকে রুশ ড্রোন আর ক্ষেপণাস্ত্রের হামলায় বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে কিয়েভের বিদ্যুৎ ব্যবস্থা। ইউক্রেন সরকারের একটি সূত্র পশ্চিমা সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছে, ‘ব্ল্যাক আউটের’ প্রভাব পড়েছে শহরের পানি সরবরাহ এবং অন্যান্য পরিসেবায়। শুক্রবার ইউক্রেনের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়, শীতের মধ্যেই কিয়েভ দখলের লক্ষ্যে নতুন প্রস্তুতি শুরু করেছে প্রায় ২ লাখ রুশ সেনা। সেই বাহিনীতে রয়েছে বাছাই করা বেশ কিছু গোলন্দাজ, ট্যাংক ও সাঁজোয়া ব্যাটালিয়ন।

ইউক্রেন সেনার জেনারেল ভ্যালেরি জালুঝনি সম্ভাব্য রুশ হামলা ঠেকাতে অস্ত্র সাহায্যের আবেদন জানান আমেরিকা-সহ পশ্চিমা দেশগুলোর কাছে। অস্ত্রের জোগান নিশ্চিত করাই যুদ্ধের মধ্যে জেলেনস্কির আমেরিকা সফরের মূল উদ্দেশ্য বলে মনে করা হচ্ছে।

জেলেনস্কি এক টুইট-বার্তায় জানিয়েছেন, তিনি আমেরিকার কংগ্রেসেও বক্তৃতা করবেন। এই সফরের মাধ্যমে ইউক্রেনের প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা আরও শক্তিশালী হবে বলে তিনি আশাবাদী।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles