6 C
Toronto
বুধবার, ফেব্রুয়ারী ৮, ২০২৩

কানাডায় ফুটবল জনপ্রিয় করার চেষ্টা

কানাডায় ফুটবল জনপ্রিয় করার চেষ্টা
আগের চেয়ে অনেক বেশী আমেরিকান কানাডিয়ান মানুষ বিশ্বকাপ ফুটবল দেখেন

আমেরিকা কানাডায় ফুটবল একেবারেই জনপ্রিয় ছিল না। ক্রিকেটও তাই। চেষ্টা চলছে জনপ্রিয় করার। ওরা ফুটবলকে বলে সকার। ওদের নিজেদের ফুটবল আছে যেটা মুলত দিয়ে হাত দিয়ে খেলে, বাস্কেটবল, আইস হকি এগুলোই জনপ্রিয় খেলা আর এসব খেলায় আমাদের চেয়েও বেশী উন্মাদনা দেখা যায় ওদের স্টেডিয়াম, গ্যালারি আর রাস্তা ঘাটে।

কিন্তু ১৯৯৪ সালে আমেরিকা আর ২০২৬ সালে কানাডাকে বিশ্বকাপ ফুটবলের হোষ্ট করে এসব দেশেও আমাদের ফুটবলকে জনপ্রিয় করার চেষ্টা হচ্ছে। এখন আগের চেয়ে অনেক বেশী আমেরিকান কানাডিয়ান মানুষ বিশ্বকাপ ফুটবল দেখেন। বিশ্বের অন্যতম শক্তিশালী এসব দেশগুলোতে ফুটবলকে অজনপ্রিয় রেখে মানুষে মানুষে ভাতৃত্ববোধ জাগ্রত করা সম্ভব নয়। ১৯৮২তে চ্যাম্পিয়ন হলো ইটালি, সেই থেকে আমি বিশ্বকাপ দেখি। ফুটবলে ইটালি অন্যতম পরাশক্তি। সেই ইটালি এবার মুলপর্বেই কোয়ালিফাই করতে পারে নাই।

- Advertisement -

সবচেয়ে বড় শক্তি জার্মানী ২য় রাইন্ডে উঠতে পারলো না। সেই তুলনায় কানাডা যথেষ্ট ভাল খেলেছে, আমেরিকা আরো ভাল করেছে। আজ হলান্ড (নেদারল্যান্ড) এর মত অন্যতম পরাশক্তির কাছে আমেরিকার ২য় রাউন্ডে হেরে যাওয়া কোন ব্যাপার নয়। আমেরিকার পরাজয়ে খুশী হয়ে বলা সমীচিন নয় যে তোমরা সপ্তম নৌ বহর পাঠিয়েছিলে আমাদের স্বাধীনতা যুদ্ধে সে কারণে আমরা তোমাদের ফুটবলে পরাজয়ে খুশী।

বলা উচিত নয় এ কারণে যে বাফুফের সবচেয়ে ব্যর্থ সভাপতি সালাউদ্দিন যখন বলেছিল যে কাতার বিশ্বকাপে বাংলাদেশ খেলবে অথচ এখন তিনি নিজেই সেখানে গ্যালারিতে বসে খেলা দেখছেন আর বাংলাদেশের ফুটবলকে আশির দশকের ফুটবলের চেয়েও অনেক পিছিয়ে দিয়েছেন বলে। আমাদের বোধদয় কবে হবে জানি না।

স্কারবোরো, কানাডা

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles