3.6 C
Toronto
রবিবার, ফেব্রুয়ারী ৫, ২০২৩

গোলের পর স্ত্রী-সন্তানদের উচ্ছ্বাসের ভিডিও দেখে মেসির প্রতিক্রিয়া

গোলের পর স্ত্রী-সন্তানদের উচ্ছ্বাসের ভিডিও দেখে মেসির প্রতিক্রিয়া
ছবি সংগৃহীত

চলতি কাতার বিশ্বকাপে কোয়ার্টার ফাইনালে পৌঁছে গেছে লাতিন আমেরিকার দেশ আর্জেন্টিনা দল। ‘রাউন্ড অব ১৬’তে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ম্যাচে ২-১ গোলে জয় পেয়েছে আর্জেন্টিনা। সেই ম্যাচেই আর্জেন্টিনার হয়ে নকআউট পর্বের প্রথম গোলটি করেছেন লিওনেল মেসি। অবিশ্বাস্য দক্ষতায় করেছেন গোলটি। তিনি বলকে যেভাবে নিয়ন্ত্রণ করেছেন তা এককথায় অনবদ্য। বক্সের মধ্যে থেকে বাঁ পায়ের জোরালো শটে গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন তিনি।

ম্যাচ শেষে মেসিকে একটি ভিডিও দেখানো হয়। যেখানে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে তার গোলের পর তার স্ত্রী অ্যান্তোনেলা রকুজ্জো, তিন সন্তান থিয়াগো, মাতেও এবং সিরোর উচ্ছ্বাসের ভিডিও দেখানো হয়। যা দেখে স্বাভাবিকভাবেই আহ্লাদিত দেখায় মেসিকে। তার চোখে মুখে ধরা পড়ে খুশি।

- Advertisement -

নক আউট পর্বের ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে একটা সময় খেলার স্কোর ছিল ০-০। সেই সময় নিকোলাস ওটামেন্ডির কাছ থেকে একটি পাস পান মেসি। পিএসজি তারকা সেই পাস থেকে পাওয়া বলে একটি জোরালো শট নেন। মাটি ঘেঁষা সেই শটটি বাঁদিকের কর্ণার দিয়ে গোলে ঢুকে যায়। বিশ্বকাপ ক্যারিয়ারে এটি নবম গোল। তবে ফুটবল ক্যারিয়ারের সমস্ত প্রতিযোগিতা মিলিয়ে এটি ছিল মেসির ৭৮৯তম গোল। ৫৭তম মিনিটে জুলিয়ান আলভারেজ আর্জেন্টিনার হয়ে ব্যবধান ২-০ করে দেন। ৭৭ মিনিটে এনজো ফার্নান্দেজের করা আত্মঘাতী গোলে অস্ট্রেলিয়া একটি গোল শোধ করতে সমর্থ হলেও ম্যাচে দ্বিতীয় গোলের দেখা পায়নি।
গোলের পর স্ত্রী-সন্তানদের উচ্ছ্বাসের ওই ভিডিওটি প্রথমে মন দিয়ে দেখেন মেসি। তারপর মুচকি হাসতে দেখা যায় তাকে। অত্যন্ত খুশি দেখায় তাকে। আহ্লাদিত হয়ে পড়েন তিনি। ম্যাচ শেষে তিনি জানান, “আমার পরিবার সবসময় (আমার পাশে) থাকে। বিশেষ করে আমার সন্তানরা। কারণ তারাও বড় হচ্ছে আস্তে আস্তে। তারা সবকিছু বুঝতে পারে। আজকে তাদেরকে দেখতে পেরে, তারা কি ভাবছে, কীভাবে রয়েছে দেখতে পেরে ভীষণ খুশি। ওঁরা খুব উত্তেজিত, খুব খুশি।”

উল্লেখ্য, কোয়ার্টার ফাইনালে আর্জেন্টিনা মুখোমুখি হবে নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে। ডাচরা শেষ ষোলোতে ৩-১ গোলে আমেরিকাকে হারিয়ে দিয়েছে।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles