-1.5 C
Toronto
রবিবার, ফেব্রুয়ারী ৫, ২০২৩

বিশ্বকাপে রগরগে পোশাক : শাস্তি পেতে পারেন সাবেক মিস ক্রোয়েশিয়া

বিশ্বকাপে রগরগে পোশাক : শাস্তি পেতে পারেন সাবেক মিস ক্রোয়েশিয়া

নিজের দলকে সমর্থন দিতে গিয়ে কাতার বিশ্বকাপে রগরগে পোশাক পরে শোরগোল পাকিয়ে দিয়েছেন সাবেক মিস ক্রোয়েশিয়া ইভানা নোল। রক্ষণশীল কাতারের রীতি লঙ্ঘন করে তিনি ‘জি-স্ট্রিং’ নামের খুবই সংক্ষিপ্ত পোশাক পরেছেন। এর মধ্য দিয়ে তিনি বিশ্বকাপ ফুটবলের প্রতি অশ্রদ্ধা দেখিয়েছেন বলে তীব্র সমালোচিত হচ্ছেন।

- Advertisement -

বৃটিশ একটি ট্যাবলয়েড পত্রিকার অনলাইন সংস্করণ এ খবর দিয়েছে। ক্রোয়েশিয়া বনাম মরক্কোর মধ্যে অনুষ্ঠিত ম্যাচে নিজ দলের প্রতি তিনি এই সমর্থন প্রকাশ করেছেন রগরগে পোশাক পরে। পত্রিকাটি লিখেছেন, যে পোশাক তিনি পরেছিলেন তা হলো ‘রিস্ক আউটফিট’ বা ঝুঁকিপূর্ণ পোশাক।

অর্থাৎ এই পোশাক পরলে নারীর মর্যাদা রক্ষা করা ঝুঁকিতে থাকে। এর আগে তিনি একটি ওয়াটারফ্রন্টের সামনে রগরগে পোশাক পরে ভিডিও পোস্ট করেছেন। এসবই কাতারের আইনের সুস্পষ্টত লঙ্ঘন। এর ফলে ওই সুন্দরী শাস্তি, এমনকি জেলের মুখোমুখি হতে পারেন।

বিশ্বকাপ শুরুর আগে কাতার পর্যটন কর্তৃপক্ষ বলেছে, জনসমক্ষে রগরগে পোশাক পরার ক্ষেত্রে কাতারের স্থানীয় সংস্কৃতির প্রতি পর্যটকরা সম্মান দেখাবেন বলে আশা করা হয়।

এর অধীনে নারী এবং পুরুষদেরকে তাদের কাঁধ এবং হাঁটু পর্যন্ত ঢাকা থাকার সুপারিশ করা হয়।

এই বিবৃতি বৃটিশ সরকারের ওয়েবসাইটেও দেয়া হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, জনসমক্ষে- বিশেষ করে যখন আপনি ড্রাইভিং করেন, তখন আপনাকে শালীন পোশাক পরতে হবে। নারীদেরকে অবশ্যই কাঁধ ঢাকা পোশাক পরতে হবে। শর্ট স্কার্ট পরা এড়িয়ে চলতে হবে।

নারী এবং পুরুষ উভয়কেই শর্টস এবং স্লিভলেস টপস না পরতে বলা হয়েছে। বিশেষ করে যখন কোনো সরকারি ভবনে, স্বাস্থ্য সেবাকেন্দ্রে বা মলে যাবেন তখন এসব আইন মেনে চলতে হবে। যদি আপনি শালীন পোশাক না পরেন তাহলে এসব স্থানে আপনাকে প্রবেশ করতে বা সেখান থেকে বেরিয়ে যেতে বলা হবে।

কিন্তু ইভানা নোল প্রথম যে পোশাক পরে ছবি পোস্ট দিয়েছিলেন, তা ছিল সর্বশেষ পোস্টের ছবির থেকে কিছুটা শালীন। তার এমন পোশাক পরার জন্য অনেকে সমালোচনার তীর ছুড়ে দিয়েছেন। কেউ কেউ বলেছেন, আমাদের দেশ এবং আমাদের ধর্মকে সম্মান করুন। জনসমক্ষে কেউ যদি শরীর উন্মুক্ত করে প্রদর্শন করেন তাহলে তাকে শাস্তি হিসেবে জরিমানা অথবা জেল অথবা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত করার বিধান আছে।

তাই বলে কাতারের নারী নন এমন নারীদেরকে আবায়া পরতে হবে, এমন আইন নেই। কিন্তু তাদের টপস এবং ড্রেস এমন হতে হবে যাতে তাদের বুকের ভাঁজ দেখা না যায়। কাঁধ দেখা না যায় এমন পোশাক পরতে বলা হয়। এমনকি টাইট পোশাক অথবা ক্লিভেজ প্রদর্শন করে পোশাক পরায় নিষেধাজ্ঞা আছে সেখানে।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles