5 C
Toronto
মঙ্গলবার, ডিসেম্বর ৬, ২০২২

‘সমাবেশে যাওয়ার টাকা যোগাতে ছিনতাই করছে বিএনপি কর্মীরা’

‘সমাবেশে যাওয়ার টাকা যোগাতে ছিনতাই করছে বিএনপি কর্মীরা’

সম্প্রতি রাজধানীতে একটি চোর-ছিনতাই চক্রের সন্ধান মিলেছে, যারা ‘বিএনপির কর্মী’ বলে দাবি করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগ (ডিবি)। বিএনপির বিভিন্ন সমাবেশে যোগদান শেষে ফেরার পথে চক্রটি চুরি-ছিনতাই করত বলে ডিবির ভাষ্য। আজ বৃহস্পতিবার (১০ নভেম্বর) বিকালে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের গোয়েন্দা প্রধান হারুন অর রশীদ সাংবাদিকদের এসব তথ্য দেন।

- Advertisement -

এর আগে গতকাল বুধবার (৯ নভেম্বর) দিবাগত রাতে পৃথক অভিযানে এই চক্রের পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করে ডিবি। তারা হলেন—মো. হারুন ওরফে আনিছুজ্জামান, হারুন-অর-রশিদ, মো. সোহেল, মো. এনামুল হক ও নূর ইসলাম।হারুন অর রশীদ বলেন,‘বিএনপির কর্মসূচিতে আসতে যে খরচ হয় তা তুলতেই বিএনপি কর্মীরা ছিনতাই বা চুরিতে জড়িত পড়ছেন। গ্রেপ্তার পাঁচজন বিএনপির কর্মী বলে স্বীকার করেছে। তাদের কাছ থেকে ছিনতাই করা ১৮টি মোবাইল সেট উদ্ধার করা হয়েছে।’

ডিবি প্রধান আরো জানান, বিএনপির যত সমাবেশ আছে তারা সেখানে যায়। ফেরার পথে তারা রাজধানীতে চুরি ছিনতাই করত। কাউকে দোষারোপ বা হেয় করার জন্য বলছি না, গ্রেপ্তার পাঁচজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করে আমরা জানতে পেরেছি।’তিনি আরো বলেন, ‘তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছি, তোমাদের পেশা কি? তখন তারা বলেছে, তাদের পেশা রাজনীতি করা। বিএনপির সমাবেশ যখন হয় যেমন খুলনা, রংপুর, বরিশাল, তারা সেখানে যায়। পরে ফেরার পথে চুরি ছিনতাই করে।’

এছাড়া বিএনপি ছাড়া অন্য কোনো সমাবেশে তারা যায় কি না প্রশ্নের জবাবে হারুন অর রশীদ বলেন,‘না, তারা বিএনপি করে। বিএনপির সমাবেশ হলেই আসত। তাদের কাছ থেকে ১৮টা মোবাইলফোন পেয়েছি। এসব মোবাইলফোন তারা বিএনপির সমাবেশ থেকে না কি রাস্তা থেকে ছিনতাই করেছে রিমান্ডে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করব।’ গ্রেপ্তার হওয়া ব্যক্তিদের বিএনপির কোনো পদ পদবী আছে কি না প্রশ্নের উত্তরে ডিবি প্রধান বলেন, ‘না, তাদের পদপদবী নেই। তবে তারা বিএনপির কর্মী। তাদের টাকা দরকার ছিল বলে তারা ছিনতাই করছিল।’ ‘গ্রেপ্তারের পর তাদেরকে জিজ্ঞেস করা হয়েছিল—তোমরা কোথায় গিয়েছিলে? তখন তারা জানাই—তারা বরিশালে বিএনপির সমাবেশে গিয়েছিল। টাকার দরকার হলে তারা এসব (চুরি-ছিনতাই) কাজ করে।’

এছাড়া মোবাইলগুলো কোথা থেকে চুরি বা ছিনতাই করা হয়েছে প্রশ্নের জবাবে ডিবি প্রধান বলেন, ‘আমরা তাদেরকে রিমান্ডে আনবো। তারপর জানতে পারবো, ছিনতাই তারা ঢাকায় করেছে, না কি বিএনপির সমাবেশ থেকে করেছে।’বরিশালে ছিনতাইয়ের টাকাসহ গ্রেপ্তার ছয়জনের সঙ্গে এই পাঁচজনের কোনো যোগসাজশ আছে কি না জানতে চাইলে হারুন অর রশীদ বলেন, ‘এখনই তা বলতে পারছি না।’

সূত্র : বিডি২৪লাইভ

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles