4.1 C
Toronto
শনিবার, ডিসেম্বর ৩, ২০২২

‘আমার বাবা একটা আস্ত শয়তান, আমাকে একলা পেয়ে…’

‘আমার বাবা একটা আস্ত শয়তান, আমাকে একলা পেয়ে...’

২৫-এ পা দিলেন বলিউডের নয়া ‘ফ্যাশান আইকন’ উর্ফি জাভেদ। ১৫ অক্টোবর জন্মদিন, তার আগে ১৪ তারিখ রাতেই কেক কেটে বন্ধুদের সঙ্গে জন্মদিন সেলিব্রেট করেন নেট দুনিয়ার নয়া সেনসেশন। তারই বেশকিছু মুহূর্ত ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করেছেন উর্ফি। জন্মদিনকে ‘চিট ডে’ হিসাবে দেখে ডায়েটের বাইরে গিয়ে খাবার খেয়ে বসেছেন, আর সেকথাও জানাতে ভোলেননি উর্ফি। মূলত ‘বিগ বসে’র পর্দা থেকেই পরিচিতি পান, তবে অভিনেত্রীর থেকে উর্ফিকে অনুরাগীরা ‘ফ্যাশনিস্তা’ বলেই বেশি চেনেন সকলে। তবে আজ পরিচিতির শিখরে থাকলেও উর্ফির এই যাত্রা মোটেও সহজ ছিল না। একসময় নিজের বাবাই তাকে শারীরিক, মানসিকভাবে নির্যাতন করেছিলেন। নিজেই একবার সেকথা সামনে এনেছিলেন উর্ফি জাভেদ।

- Advertisement -

উর্ফির কথায়, ‘এই যাত্রা মোটেও সহজ ছিল না, কারণ, আমি আমার পরিবারকে পাশে পাইনি। মাত্র ১১ বছর বয়সেই আমার ছবি অ্যাডাল্ট সাইটে পোস্ট করা হয়েছিল। একসময় আমার পরিবারই আমার দিকে আঙুল তুলেছিল। আত্মীয়রা আমাকে পর্নস্টার বলে ডাকতেও পিছপা হননি। ওঁরা ধরেই নিয়েছিলেন আমার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে চোখ রাখলে হয়ত কোটি টাকা পাওয়া যাবে। টানা দু’বছর আমার বাবা শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন চালিয়েছিল। লোকজন আমায় এমন খারাপ শব্দে ডাকত, যে নিজের নামটাই ভুলতে বসেছিলাম, আমি যেভাবে কাটিয়েছি, তা যেন কোনও মেয়ের সঙ্গে না ঘটে।’

উর্ফি জানান, ‘আমার বাবা যখন আমার উপর অত্যাচার চালাত, তখন আমার কথা বলার অধিকারও ছিল না। আমাকে সবসময় বলা হত, এধরনের মেয়েদের কথা বলার কোনও অধিকারই নেই, শুধুমাত্র পুরুষরাই সিদ্ধান্ত নিতে পারেন। যখন আমি বাড়ি ছেড়েছিলাম, তখন আমি নিজেকে পরিবারের থেকে অনেক দূরে নিয়ে চলে যেতে চেয়েছিলাম। তবে এখন আমি নিজের পরিচিতি তৈরি করেছি এবং আমি আর থামবার পাত্রী নই।’

উর্ফি জানিয়েছিলেন, তিনি যখন বাড়ি ছেড়েছিলেন তখন তাঁর সঙ্গে ছিল আরও দুই বোন, বাড়িতে বাবা-মা এবং আরও দুই ভাইবোনকে রেখে বাড়ি ছাড়েন অভিনেত্রী। উত্তরপ্রদেশের বাড়ি থেকে দিল্লিতে এসে প্রায় ১ সপ্তাহ একটা পার্কেই কেটেছিল তার। এরপর তার তিন বোন মিলে চাকরি খুঁজতে থাকেন, সৌভাগ্যক্রমে একটি কল সেন্টারে চাকরিও মেলে উর্ফির।

‘মাত্র ১১ বছর বয়সেই আমার ছবি অ্যাডাল্ট সাইটে পোস্ট করা হয়েছিল। একসময় আমার পরিবারই আমার দিকে আঙুল তুলেছিল। আত্মীয়রা আমাকে পর্নস্টার বলে ডাকতেও পিছপা হননি। ওঁরা ধরেই নিয়েছিলেন আমার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে চোখ রাখলে হয়ত কোটি টাকা পাওয়া যাবে। টানা দু’বছর আমার বাবা শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন চালিয়েছিল।পরবর্তীকালে আমার বাবা যখন আরও একটি বিয়ে করে আমাদের ছেড়ে চলে গেল, তখন আমি, মা এবং ভাইবোনেরা খুশি হয়েছিলাম, নতুন জীবন শুরু করি। টাকা পয়সার টান থাকলেও শান্তি ফিরে এসেছিল।’

পরবর্তীকালে দিল্লি ছেড়ে মুম্বই এসে ওঠেন উর্ফি জাভেদ। এরপরই এক ফ্যাশান ডিজাইনের সহকারী হিসাবে কাজ শুরু করেন, আর এরপর থেকেই একটু একটু করে বদলে যায় উর্ফির জীবন। তাঁর কথায়, অভিনয়ের প্রতি আগ্রহ ছিলই, ঘটনাচক্রে ‘তেরিমেরি ফ্যামিলি’ ধারাবাহিকে অভিনয়ে সুযোগ পান তিনি।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles