5 C
Toronto
মঙ্গলবার, ডিসেম্বর ৬, ২০২২

শুক্রাবাদে ধর্ষণের শিকার‌ সেই ‘বিউটিশিয়ান’ অন্তঃসত্ত্বা নন

শুক্রাবাদে ধর্ষণের শিকার‌ সেই ‘বিউটিশিয়ান’ অন্তঃসত্ত্বা নন

ধানমন্ডির শুক্রাবাদে দলবদ্ধ ধর্ষণের শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগকারী‌ ‌‘বিউটিশিয়ান’ অন্তঃসত্ত্বা নন। আল্ট্রাসনোগ্রাম করে তার পেটে সন্তানের কোনো অস্তিত্ব পাননি চিকিৎসক। তবে এর আগে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে পুলিশকে ওই নারী জানিয়েছিলেন তিনি পাঁচ মাসের অন্তঃসত্ত্বা।

- Advertisement -

আজ শনিবার দুপুরে ঢামেক হাসপাতালের ওয়ান-স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারের (ওসিসি) সমন্বয়কারী ডা. বিলকিস বেগম ওই নারীর পেটে বাচ্চা না থাকার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, আলট্রাসনোগ্রামের রিপোর্টে দেখা গেছে ওই বিউটিশিয়ান অন্তঃসত্ত্বা নন। এখানে ভর্তি হওয়ার পর নিয়ম অনুযায়ী তার বেশ কয়েকটি পরীক্ষা করা হয়। এর পাশাপাশি আল্ট্রাসনোগ্রাম পরীক্ষায় দেখা যায় অভিযোগকারী নারীর পেটে কোনো সন্তান নেই। ওই নারী এক মাসের অন্তঃসত্ত্বা হলেও পরীক্ষার রিপোর্টে সেটা আসত। পরীক্ষায় ওই নারী অন্তঃসত্ত্বা এমন কিছুই ধরা পড়েনি বলে জানান তিনি।

এর আগে গত বুধবার রাতে এ ঘনায় জড়িত থাকার অভিযোগে মো. রিয়াদ (২৪) ও ইয়াছিন হোসেন ওরফে সিয়াম (২৩) নামের দুজনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। গতকাল শুক্রবার তাদের দুই দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।

গতকাল মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা, শেরেবাংলা নগর থানার পরিদর্শক জাহাঙ্গীর আলম আসামিদের আদালতে হাজির করে সাত দিনের রিমান্ড আবেদন করেন।এর আগে গত বুধবার রাতে শেরেবাংলা নগর থানা-পুলিশ তাদের গ্রেপ্তার করে।

মামলার এজাহার থেকে জানা যায়, ধর্ষণের শিকার ওই নারী সাভারে থাকতেন। একটি অনলাইন পেজের মাধ্যমে তিনি বাসায় গিয়ে নারীদের ফেসিয়াল করিয়ে দিতেন। পেজে দেওয়া নম্বরে গত ১১ অক্টোবর এক নারী কণ্ঠের মাধ্যমে পাঁচ মাসের অন্তঃসত্ত্বা ওই বিউটিশিয়ানকে ফোন দেওয়া হয়। এ সময় জানানো হয় শুক্রাবাদ এলাকায় ফেসিয়াল সেবা দিতে হবে।

পরে সেই তথ্যের ভিত্তিতে সাভার থেকে বিউটিশিয়ান ওই নারী শুক্রাবাদের উদ্দেশে রওনা হন। এ সময় ছেলে কণ্ঠে একজন (রিয়াদ) তার অবস্থান সম্পর্কে ফোনে বারবার জানতে চাচ্ছিলেন। সন্ধ্যার পর ওই নারীকে রিয়াদ শুক্রাবাদ থেকে রিসিভ করে তার ভাড়া বাসায় নিয়ে যান। এ সময় ওই বাসায় রিয়াদ, তার বন্ধু সিয়াম ও জিতু ছাড়া কেউ ছিলেন না। তারা তিন জন মিলে ওই নারীকে ধর্ষণ করেন। ধর্ষণের পর সেই নারীকে একটি সিএনজিচালিত অটোরিকশায় তুলে দেন তারা।

সূত্র : আমাদের সময়

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles