4.1 C
Toronto
শনিবার, ডিসেম্বর ৩, ২০২২

পুরুষ অভিভাবক ছাড়াই হজ-ওমরাহ করতে পারবেন নারীরা

পুরুষ অভিভাবক ছাড়াই হজ-ওমরাহ করতে পারবেন নারীরা

সৌদি আরবে আগত মহিলারা এখন মাহরাম বা পুরুষ অভিভাবক ছাড়াই তাদের হজ বা ওমরাহ করতে পারবেন।

- Advertisement -

দেশটির হজ ও ওমরাহ মন্ত্রী তৌফিক বিন ফাওজান আল-রাবিয়া এ ঘোষণা দিয়েছেন। খবর আরব নিউজের।

সৌদি রাষ্ট্রীয় সংস্থা এসপিএ অনুসারে, কায়রোতে দেশটির দূতাবাসে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্য ঘোষণার সঙ্গে এ ঘোষণাও আসে।

সংবাদ সম্মেলনে মিসরে সৌদি রাষ্ট্রদূত ওসামা বিন আহমেদ নুগালি এবং মন্ত্রণালয় ও দূতাবাসের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

হজ ও ওমরাহ সেবার উপদেষ্টা আহমেদ সালেহ হালাবি বলেছেন, ‘এখন একজন নারীর জন্য মাহরাম ছাড়া হজ বা ওমরাহ করা বৈধ, যার সাথে হজ বা ওমরাহ করার জন্য “বিশ্বস্ত মহিলা বা নিরাপদ সংস্থা”। এটা মালেকি ও শাফেয়ি আলেমদের মত।’

তিনি আরও বলেন, ‘মিশরের আল-আজহার আল-শরীফের ফতোয়া তত্ত্বাবধায়ক আব্বাস শোমান গত মার্চে ঘোষণা করেছিলেন যে একজন মহিলাকে সহগামী মাহরাম ছাড়াই হজ এবং ওমরাহ করার অনুমতি দেওয়া হয়েছে।’

হজ মন্ত্রীর সাবেক উপদেষ্টা লেখক ফাতেন ইব্রাহিম হুসাইন বলেছেন, ‘ভিশন ২০৩০ এর ভিত্তিতে সৌদি আরব হজ ও ওমরাহ পালনের জন্য হজযাত্রীদের সমস্ত সুবিধা দিচ্ছে।’

‘মহিলাদের মাহরামের শর্ত ছাড়াই ওমরাহ করার অনুমতি দেওয়া তাদের জন্য জীবনকে সহজ করে তোলে কারণ অনেকের সামাজিক অবস্থা কঠিন এবং তারা একটি মাহরাম খুঁজে নাও পেতে পারে, অথবা তারা ওমরাহ পালন করতে আগ্রহী থাকাকালীন তাদের অনেক খরচ হতে পারে ,’ ফাতেন ইব্রাহিম বলেন।

সৌভাগ্যবশত, সব ধরনের সামাজিক ও অর্থনৈতিক দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়াই এতে ইতিবাচক ভূমিকা পালন করেছে বলেও উল্লেখ করেন তিনি। বলেন, ‘রাজ্যজুড়ে নিরাপত্তা রয়েছে এবং তা সব পরিবহন ব্যবস্থা ও বন্দরগুলোতে প্রসারিত হয়েছে, মহিলাদের সম্পূর্ণ সুরক্ষা দিয়েছে। হয়রানি বিরোধী ব্যবস্থাসহ আইনে শক্তিশালী অবকাঠামো প্রতিষ্ঠিত হয়েছে।

‘অনেক মহিলা আছেন যারা মাহরাম ছাড়াই সৌদি আরবে কাজ করতে আসেন এবং কোনো উল্লেখযোগ্য ঘটনাও ঘটেনি। মাহরাম ছাড়া মহিলাদের আসতে কোনো ভয় নেই কারণ এর কারণ আর নেই।’ বলেন তিনি।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles