12.7 C
Toronto
বুধবার, সেপ্টেম্বর ২৮, ২০২২

রক্তমাখা শার্ট পরে ঘোরাঘুরি, বেরিয়ে এলো চাঞ্চল্যকর তথ্য

- Advertisement -

চট্টগ্রাম নগরের পতেঙ্গা সমুদ্র উপকূলের বেড়িবাঁধ এলাকা থেকে ছুরিকাঘাতে যুবকের লাশ উদ্ধারের ঘটনায় ছয়জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এর মধ্যে সোমবার আলমগীর নামে একজন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।

এর আগে, সকালে নগরীর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতার অন্যরা হলেন- তানভীর হাসান মীম, মো. জাহিদ হোসেন ইমন, মো. আলী আকবর ওরফে গুরু, মো. নাসিম ও মো. মনির উদ্দিন হৃদয়।

জানা গেছে, ঘটনার দিন ভোরে রক্তমাখা শার্ট পরা এক যুবককে ঘোরাঘুরি করতে দেখেন স্থানীয় একজন। পরে বিষয়টি পুলিশকে জানানো হয়। এরপর সেই শার্টের সূত্র ধরে আলমগীরকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

শনিবার রাতে পতেঙ্গা সমুদ্র উপকূলের খেজুরতলা বেড়িবাঁধ এলাকায় ছিনতাইয়ের উদ্দেশ্যে এক যুবকের পথরোধ করেন আলমগীরসহ ছয়জন। কিন্তু ওই যুবকের কাছে কিছুই ছিল না। একপর্যায়ে তাদের সঙ্গে কথা-কাটাকাটিতে জড়িয়ে গেলে ওই যুবকের বুক ও পিঠে ছুরিকাঘাত করা হয়। পরদিন দুপুরে তার লাশ উদ্ধার ও অজ্ঞাত কয়েকজনের বিরুদ্ধে থানায় হত্যা মামলা করে পুলিশ।

পতেঙ্গা থানার ওসি আবু জায়েদ মো. নাজমুন নুর বলেন, ক্লুলেস মামলা হওয়ায় হত্যার সম্পর্কে তথ্য পাওয়া কষ্টকর ছিল। তদন্তের একপর্যায়ে স্থানীয় একজন ঘটনার দিন ভোরে রক্তমাখা শার্ট পরা অবস্থায় আলমগীরকে দেখতে পান বলে জানান। সেই সূত্র ধরে আলমগীরকে গ্রেফতার করা হয়। আলমগীর পেশাদার একজন ছিনতাইকারী। মারামারির একটি মামলায় কারাগারে ছিলেন তিনি। সম্প্রতি কারাগার থেকে জামিনে বেরিয়ে আসেন।

ওসি আরো বলেন, লাশের পরিচয় এখনো শনাক্ত হয়নি। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে হত্যাকাণ্ডের কথা স্বীকার করেন আলমগীর। তার কাছ থেকে রক্তমাখা শার্টটি উদ্ধার করা হয়েছে। পরে তার দেওয়া তথ্যে ঘটনার সঙ্গে জড়িত আরো পাঁচজনকে গ্রেফতার করা হয়। সোমবার আলমগীর আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। তিনিসহ গ্রেফতার ছয়জনকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

সূত্র : ডেইলি বাংলাদেশ

Related Articles

Latest Articles