14.4 C
Toronto
রবিবার, সেপ্টেম্বর ২৫, ২০২২

প্রেমের টানে বগুড়ায় এসে ধর্ষণের শিকার নারী পোশাককর্মী, গ্রেফতার ২

- Advertisement -
প্রতিকী ছবি

বগুড়া শিবগঞ্জ উপজেলায় এক নারী পোশাককর্মীকে ধর্ষণের অভিযোগ দুই যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার দুপুরে তাদের আদালতে পাঠানো হয়েছে।

এর আগে, সোমবার রাতে তাদের আটক করে থানা হেফাজতে নেয় পুলিশ। পরে মঙ্গলবার সকালে মামলার পর তাদের গ্রেফতার দেখানো হয়। মামলায় তিনজনকে আসামি করা হয়েছে। তাদের মধ্যে দুজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন- শিবগঞ্জ উপজেলার মেদিনীপাড়া গ্রামের আব্দুল গফুর প্রামাণিক, জাহিদ মণ্ডল ওরফে মিলন। এ মামলায় পলাতক থাকা যুবকের নাম সিরাজুল ইসলাম। তিনি উপজেলার গুজিয়া এলাকার বাসিন্দা।

আসামিদের মধ্যে আব্দুল গফুরের সঙ্গে ওই নারী পোশাককর্মীর প্রেমের সম্পর্ক ছিল। মুঠোফোনে তাদের এই প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

শিবগঞ্জ থানার এসআই আইনুল হক অভিযোগের বরাত দিয়ে জানান, ওই নারী পোশাককর্মী নেত্রকোণার বাসিন্দা। সম্প্রতি তার সঙ্গে আব্দুল গফুর প্রামাণিকের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। মুঠোফোনে কথা বলতে বলতে তারা প্রেমে জড়িয়ে পড়েন। এক পর্যায়ে গফুর ওই নারীকে শিবগঞ্জে বেড়াতে আসতে বলেন। গফুরের কথা অনুযায়ী গত শনিবার ওই নারী শিবগঞ্জে আসেন।

গফুর তাকে নিয়ে ওই রাতে উপজেলার গুজিয়া এলাকার সিরাজুলের বাড়িতে নিয়ে যান। সেখানে বিয়ের প্রলোভনে তার সঙ্গে শারীরিক সম্পর্কে লিপ্ত হন। পরদিন রোববার সকালে গফুর ওই বাড়ি থেকে বের হয়ে যায়। তখন ওই নারী একাই ছিলেন সিরাজুলের বাড়িতে। এ সুযোগে সিরাজুল ও মিলন তাকে ধর্ষণ করার চেষ্টা করেন। তবে ওই নারী এ সময় কৌশলে নিজেকে রক্ষা করেন। পরে ঐদিন দুপুরে গফুর আবারো ওই বাড়িতে যান। এ সময় ওই নারীকে বাড়ি ফিরে যেতে বলেন গফুর। এমনকি তাকে জোর করে বাড়ি পাঠানোর চেষ্টাও করতে থাকেন তিনি।

তিনি আরো জানান, এক পর্যায়ে ওই নারী অসুস্থ হয়ে পড়েন। কারণ আগে থেকেই তিনি কয়েকটি ঘুমের ট্যাবলেট সেবন করে ছিলেন। পরে তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করান গফুরসহ তার সহযোগীরা। সোমবার দুপুরে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে গফুরের গ্রামে যান ওই নারী। সেখানে গিয়ে জানতে পারেন গফুর বিবাহিত এবং তার সন্তানও আছে। পরবর্তীতে সোমবার রাতে তিনি থানায় মৌখিক অভিযোগ করেন। তার অভিযোগের ভিত্তিতে রাতেই নিজ গ্রাম থেকে গফুর ও মিলনকে আটক করা হয়। মামলার পর তাদের গ্রেফতার দেখানো হয়।

শিবগঞ্জ থানার ওসি দীপক কুমার দাস জানান, ওই নারী পোশাককর্মী থানায় ধর্ষণ মামলা করেছেন। তার অভিযোগে দুজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। পলাতক আসামিকে গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

সূত্র : ডেইলি বাংলাদেশ

Related Articles

Latest Articles