প্রচ্ছদ অপরাধ বিয়ের কথা বলে ডেকে নিয়ে কিশোরীকে গণধর্ষণ

বিয়ের কথা বলে ডেকে নিয়ে কিশোরীকে গণধর্ষণ

41

পঞ্চগড়ে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ডেকে নিয়ে এক কিশোরীকে গণধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে।

শনিবার রাতে জেলার তেঁতুলিয়া উপজেলার বন্দরপাড়া গ্রামের একটি চা বাগানে এ ঘটনা ঘটে। ধর্ষণের শিকার কিশোরীর বাড়ি পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া উপজেলায়। বর্তমানে ঐ কিশোরী পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

অভিযুক্তরা হলেন- আটোয়ারী উপজেলার মালগোবা গ্রামের আমিবার রহমানের ছেলে হাসান,একই এলাকার ফতেহপুর গ্রামের খামির উদ্দিনের ছেলে মো. সবুজ, আব্দুর রহমানের ছেলে আমিনুল ইসলাম, খাজিম উদ্দিনের ছেলে নজরুল ইসলাম, কৈলাসর ছেলে অমর এবং একই এলাকার আব্দুর রহমান।

জানা গেছে, মোবাইল ফোনে হাসানের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে ঐ কিশোরীর। পরে এক বছর ধরে ঐ কিশোরী তার মামার বাড়িতে যাওয়া আসার সুবাদে প্রেমিক হাসানের সঙ্গে তার দেখা হতো। শনিবার সকালে ঐ কিশোরী বাড়ি থেকে বের হয়ে স্কুলে যান। এরমধ্যে তাকে মোবাইল ফোনে বিয়ে করবে বলে তেঁতুলিয়া থেকে পঞ্চগড়ে নিয়ে যান প্রেমিক হাসান। বিকেলে পঞ্চগড় পৌঁছালে কাজী অফিসে নিয়ে যাওয়ার কথা বলে রাত ৮টার দিকে আটোয়ারী উপজেলার বন্দরপাড়া গ্রামের সড়কের পাশে একটি চা বাগানে নিয়ে যান।

সেখানে প্রথমে প্রেমিক হাসান ও তার বন্ধু সবুজ কিশোরীকে ধর্ষণ করেন। এ সময় তাদের উপস্থিতি টের পেয়ে আরো কয়েকজন সেখানে উপস্থিত হলে হাসান ও সবুজ ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যান। কিশোরীকে একা পেয়ে তারাও ধর্ষণ করেন। এক পর্যায়ে কিশোরীকে ফেলে তারা সবাই পালিয়ে যান। এক পথচারী তাকে অসুস্থ অবস্থায় উদ্ধার করে বন্দরপাড়া গ্রামের একটি বাড়িতে নিয়ে যান। পরে তারা ঐ কিশোরীর এক আত্মীয়কে খবর দিলে তিনি এসে ভোর রাতে পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। এ ঘটনায় আটোয়ারী থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

পঞ্চগড়ের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ইউসুফ আলী বলেন, এ ঘটনায় অভিযুক্তদের গ্রেফতারের অভিযান শুরু হয়েছে।

সূত্র : ডেইলি বাংলাদেশ