25.5 C
Toronto
সোমবার, আগস্ট ৮, ২০২২

অন্যায়ের প্রতিবাদে গোসল করেন না ২২ বছর!

- Advertisement -
অন্যায়ের প্রতিবাদে গোসল করেন না ২২ বছর!
ধর্মদেব রাম । ছবি : সংগৃহীত

সমাজে বদল আনতে প্রায় দু’ দশক ধরে গোসল করেন না ধর্মদেব রাম। তিনি ভারতের বিহার রাজ্যের গোপালগঞ্জ জেলার বৈকুন্ঠপুর গ্রামের বাসিন্দা।

গোসলের নাম শুনলে অনেকেরই অনীহা জাগে। বিশেষ করে শীতকালে এই অনীহা আরও বেড়ে যায়। তবে একজন মানুষ সর্ব্বোচ্চ কত দিন গোসল ছাড়া থাকতে পারেন এটা ভাবনার বিষয়।

জানা যায়, ৬২ বছর বয়সে বিহারের এক বৃদ্ধ টানা ২২ বছর ধরে গোসল করেননি। প্রায় দু’দশক ধরে গোসল না করেও দিব্যি সুস্থ আছেন তিনি। আনন্দবাজারের এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়।

তবে কী কারণে এমন সিদ্ধান্ত তা খোঁজ নিয়ে জানা যায়, রামদেব প্রতিজ্ঞা করেছেন যত দিন না মহিলাদের ওপর অত্যাচার, নিরীহ পশু হত্যা এবং জমি নিয়ে বিবাদের মতো অন্যায় বন্ধ হবে তত দিন তিনি গোসল করবেন না। তার স্ত্রী এবং পুত্রের মৃত্যুর সময়েও নিজের কঠোর প্রতিজ্ঞা থেকে সরে দাঁড়াননি তিনি। প্রবল গরমের সময়ও গত ২২ বছরে শরীরে পানি ছোঁয়াননি তিনি।

গোসল না করেও কোনও রকম শারীরিক অসুস্থতা ধর্মদেবকে কাবু করতে পারেনি। তিনি এখনো সুস্থ বলে জানা যায়।

পশ্চিমবঙ্গের জগদ্দলে একটি কারখানায় ১৯৭৫ সাল থেকে কাজ করার সময় সব স্বাভাবিক ছিল ধর্মদেবের। ১৯৭৮ এ বিয়ে করেন তিনি। কিন্তু ১৯৮৭ সালে হঠাৎ করে একদিন তিনি উপলব্ধি করেন, ‘জমি সংক্রান্ত বিবাদ, মহিলাদের উপর হিংসার ঘটনা এবং নিরীহ পশুদের হত্যা দিন দিন বেড়েই চলেছে। এরপর তিনি এর উত্তর খুঁজতে এক গুরুর কাছে যান। সেই গুরু ধর্মদেব রামকে তার শিষ্য করে নেন এবং সেই গুরু তাকে ত্যাগের পথে চলার পরামর্শ দেন। তখন থেকে রামচন্দ্রের ধ্যান করেন ধর্মদেব রাম এবং বন্ধ করে দেন গোসল। শুধু গোসল নয়, খাওয়া-দাওয়াও বন্ধ করে দিয়েছিলেন তিনি।

পরে মালিক এ ব্যাপারে জানতে পেরে কারখানার চাকরি থেকে বরখাস্ত দেন ধর্মদেবকে। আবারও গ্রামে ফিরে আসেন ধর্মদেব। তবে এরপর খাওয়া শুরু করলেও গোসল করেননি আর কখনো।

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles