10.3 C
Toronto
রবিবার, অক্টোবর ১৭, ২০২১

কানাডার উচিৎ সুবিধাবঞ্চিত দেশগুলোকে আরও বেশি সহায়তা করা

বব রায়ে

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের আয়োজনে বুধবার মহামারি সম্মেলনে অনুষ্ঠিত হয়। সম্মেলনে আগামী বছর নাগাদ সারাবিশ্বের ৭০ শতাংশ নাগরিককে ভ্যাকসিনের আওতায় আনার পক্ষে জোর দেন তিনি। তার এ উদ্যোগে সমর্থন জানান কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। এদিকে, ধনী দেশগুলোর মধ্যে কানাডা মোট জনসংখ্যার ৭৫ দশমকি ৮ শতাংশকে অন্তত এক ডোজ ভ্যাকসিনের আওতায় আানতে পেরেছে। উভয় ডোজ ভ্যাকসিন নিয়েছেন দেশটির ৬৯ দশমিক ৮ শতাংশ নাগরিক।

জাতিসংঘে কানাডার রাষ্ট্রদূত বব রায়ে বলেছেন, দেশটির হাতে থাকা উদ্বৃত্ত ভ্যাকসিন আরও বেশি করে সুবিধাবঞ্চিত দেশগুলোকে দেওয়া প্রয়োজন। গত বৃহস্পতিবার দ্য কানাডিয়ান প্রেসকে তিনি এ কথা বলেন।

বব রায়ে বলেন, ফেডারেল নির্বাচনের কারণে কানাডা সম্প্রতি নিজেদের নিয়েই বেশি ব্যস্ত ছিল। তাই বলে সুবিধাবঞ্চিত দেশগুলোকে আরও বেশি সহায়তা করা ছাড়া যে মহামারির সমাপ্তি ঘটবে না সেইে সত্যের প্রতি চোখ বন্ধ করেও রাখতে পারবে না কানাডা।

তিনি বলেন, এর মধ্যে কানাডার জাতীয় স্বার্থ নিহিত আছে। কারণ, দেশের অর্থনীতি নির্ভর করছে আন্তর্জাতিক বাণিজ্য এবং নতুন ভ্যারিয়েন্টের উত্থানের ওপর। আমাদের জিডিপির অর্ধেক আসে বাণিজ্য থেকে। শুধু যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে নয়, সারাবিশে^র অর্থনীতির সঙ্গে সংশ্লেষের কারণে অন্যান্য দেশের মতোই আমরাও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছি।

বব রায়ে বলেন, আমরা জানি যে এসব ভ্যারিয়েন্ট দ্রুত বিস্তৃত হচ্ছে। কারণ, বিশ্বে যথেষ্ট সংখ্যক ব্যক্তিকে যথেষ্ট পরিমাণ ভ্যাকসিন ডোজ আমরা দিতে পারিনি। আমি আশা করি, দেশের অভ্যন্তরে এই জনমত গড়ে উঠবে যে, আফ্রিকা বা এশিয়ার সমস্যা কেবল তাদের সমস্যা নয়। এটা আমাদেরও সমস্যা।

কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত ও ভ্যাকসিনেশনের ওপর নজর রাখা আওয়ার ওয়ার্ল্ড ইন ডাটার প্রাক্কলন অনুযায়ী, এশিয়ার ৪৯ দশমিক ৮৭ শতাংশ মানুষ অন্তত এক ডোজ ভ্যাকসিন পেয়েছেন। আর উভয় ডোজ ভ্যাকসিন পেয়েছেন এশিয়ার ৩৫ দশমিক ১৪ শতাংশ মানুষ। অন্যদিকে আফ্রিকায় অন্তত এক ডোজ ভ্যাকসিন পেয়েছেন মাত্র ৬ দশমিক ২৯ শতাংশ নাগরিক। উভয় ডোজ ভ্যাকসিন পেয়েছেন মহাদেশটির ৪ দশমিক শুন্য ৮ শতাংশ মানুষ।

- Advertisement - Visit the MDN site

Related Articles

- Advertisement - Visit the MDN site

Latest Articles