19.6 C
Toronto
সোমবার, জুন ২৭, ২০২২

বাধার মুখে রজার্স-শ একীভূতকরণ

- Advertisement -
বাধার মুখে রজার্স-শ একীভূতকরণ - The Bengali Times
ফাইল ছবি

কানাডার দুই টেলিকম টাইটান রজার্স কমিউনিকেশন ইনকরপোরেশন ও শ টেলিকমিউনিকেশন ইনকরপোরেশনের মধ্যে ২ হাজার ৬০০ কোটি ডলারের একীভূতকরণ বাধার মুখে পড়েছে। দেশটির প্রতিযোগিতা কমিশনের কাছ থেকে চুক্তিটি আটকে দেওয়ার ইঙ্গিত আসার পর প্রতিবন্ধকতার বিষয়টি স্পষ্ট হলো। কমিশনারের পরিকল্পনা সম্পর্কে তারা জানতে পেরেছে বলে শুক্রবার সন্ধ্যার দিকে যৌথ বিবৃতি দিয়েছে টেলিকম কোম্পানি দুটি।

বিবৃতিতে তারা বলেছে, একীভূতকরণ ঠেকাতে প্রতিযোগিতা ট্রাইব্যুনালে কমিশনের আবেদন করার আগ্রহের বিষয়টি তারা অবগত হয়েছে। চলতি বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকেই একীভূতকরণ কার্যক্রম শেষ করতে চেয়েছিল কোম্পানি দুটি।

একীভূতকরণ চুক্তি এগিয়ে নিতে যে তিনটি নিয়ন্ত্রক সংস্থার অনুমোদন প্রয়োজন প্রতিযোগিতা ব্যুরো তার মধ্যে একটি। কানাডিয়ান রেডিও-টেলিভিশন অ্যান্ড টেলিকমিউনিকেশন কমশিন (সিআরটিসি) বছরের শুরুর দিকে এ ব্যাপারে অনুমোদন দিয়েছে এবং কোম্পানি দুটি শর ওয়্যারলেস ব্যবসা ফ্রিডম মোবাইল বিক্রির চেষ্টা করে আসছে। এজন্য ইনোভেশন, সায়েন্স অ্যান্ড ইকোনমিক ডেভেলপমেন্ট কানাডার অনুমোদন প্রয়োজন।

সম্ভাব্য একীভূতকরণ ঠেকানোর বিষয়ে তাৎক্ষণিকভাবে কোনো মন্তব্য করেনি প্রতিযোগিতা ব্যুরো। এমনকি রজার্স এবং শও শুক্রবারের বিবৃতিতে এ ব্যাপারে বিস্তারিত কিছু উল্লেখ করেনি। উভয় কোম্পানিই বলেছে, তারা চুক্তিটি এগিয়ে নেওয়রা পরিকল্পনা করছে এবং একীভূতকরণ থামাতে কমিশনারের চেষ্টার বিরুদ্ধে লড়াই চালিয়ে যাবে তারা।

উভয় কোম্পানির দাবি, এর ফলে উল্লেখ করার মতো অর্থনৈতিক ও ভোক্তা সুবিধা মিলবে। চুক্তিটি যে কানাডা ও এর নাগরিকদের সর্বোচ্চ স্বার্থের লক্ষ্যে সেই যুক্তিও তুলে ধরে তারা। যৌথ বিবৃৃতিতে বলা হয়েছে, লেনদেন বন্ধে প্রতিযোগিতা কমিশনারের আবেদনের বিরোধিতা করবে রজার্স ও শ। সেই সঙ্গে বিষয়টি সমাধানে প্রতিযোগিতা ব্যুরোর সঙ্গে গঠনমূলক সম্পৃক্ততা অব্যাহত রাখবে। সেই সঙ্গে লেনদেনের সুফল সব কানাডিয়ান যাতে পায় সেটাও নিশ্চিত করা হবে।

২০২১ সালের মার্চে একীভূতকরণের ঘোষণা দেয় রজার্স ও শ। এর পর থেকে একাধিক প্রতিবন্ধকতা সামনে এসেছে। প্রতিযোগিতা কমিশনের কাছ থেকে আসা বাধাটি এর মধ্যে সাম্প্রতিকতম। শর সম্প্রচার সেবা রজার্সের কাছে হস্তান্তরের ব্যাপারে সিআরটিসির অনুমোদন বাতিল চেয়ে গত মাসের শেষ দিকে ফেডারেল মন্ত্রিসভার কাছে একটি আবেদন জমা দেয় দুটি ভোক্তা অধিকার গ্রুপ। তাদের যুক্তি হলো, টেলিভিশন সেবার মূল্যবৃদ্ধিতে ভূমিকা রাখবে এটি।

এই বিতর্কে আরেকটি ইস্যু হচ্ছে ফ্রিডম মোবাইলের সম্পদ বিক্রি। শুক্রবারের যৌথ বিবৃতিতে রজার্স ও শ ফ্রিডম মোবাইল বিক্রির প্রতিশ্রুতির কথা পুনর্ব্যক্ত করেছে।

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles