17.5 C
Toronto
রবিবার, মে ২৯, ২০২২

ভিডিও কলে প্রবাসীকে বিয়ের পর তালাক, দ্বিতীয় স্বামীসহ তরুণীর গায়ে আগুন

- Advertisement -
ভিডিও কলে প্রবাসীকে বিয়ের পর তালাক, দ্বিতীয় স্বামীসহ তরুণীর গায়ে আগুন - The Bengali Times
প্রতীকী ছবি

সাতক্ষীরার পাটকেলঘাটায় সাবেক স্বামীর আগুনে ঝলসে গেছে গৃহবধূ তামান্না খাতুন ও তার বর্তমান স্বামী। তাদের দু’জনের শরীরে পেট্রোল দিয়ে আগুন জ্বালিয়ে দিয়ে দেয়ার ঘটনায় মারাত্মক দ্বগ্ধ অবস্থায় তামান্না ও তার বর্তমান স্বামী ফরহাদকে রাজধানীর শেখ হাসিনা বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়েছে।

অন্যদিকে আগুন দিতে যাওয়া সাবেক স্বামী সাদ্দাম হোসেনকে আহত অবস্থায় খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। জানা গেছে, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় পাটকেলঘাটা থানার বড় কাশিপুর এলাকার কপোতাক্ষ নদীর পাড়ে এ ঘটনা ঘটে।

- Advertisement -

আগুনে দ্বগ্ধ তামান্না খাতুন পাটকেলঘাটা থানার বড় কাশিপুর গ্রামের শেখ আব্দুল হকের মেয়ে। বর্তমান স্বামী ফরহাদ হোসেন সাতক্ষীরা সদরের আবুল হকের ছেলে। অভিযুক্ত সাবেক স্বামী সাদ্দাম হোসেন কলারোয়া থানার তুলসীডাঙ্গা গ্রামের বাসিন্দা।

পুলিশ জানায়, সাতক্ষীরা কবিরাজ বাড়ির মোড়ের আবুল হক সরদারের ছেলে ফরহাদ সরদার দীর্ঘদিন তামান্নার বাড়িতে যাতায়াত করতো। এমন অবস্থায় গত ১৫ এপ্রিল তামান্নার সঙ্গে ফরহাদের বিয়ে হয়। এর আগে, মালয়েশিয়া প্রবাসী কলারোয়া উপজেলার তুলসীডাঙ্গা গ্রামের সাদ্দাম হোসেন নামের এক যুবকের সঙ্গে তামান্নার ফেসবুকের মাধ্যমে বিয়ে হয়েছিল। কিন্তু ভিডিও কলের মাধ্যমে মালয়েশিয়া প্রবাসী সাদ্দাম হোসেনের সাথে দুই বছর আগে বিয়ে হলেও এর মধ্যে সে দেশে আসেনি। পরে তামান্না সাদ্দাম হোসেনকে ডিভোর্স দেয়।

স্থানীয়রা জানিয়েছে, ফেসবুকের মাধ্যমে দুই বছর আগে তামান্না ও সাদ্দামের বিয়ে হওয়ার পর তারা কখনো একত্রে থাকেনি। সাদ্দাম হোসেন মালয়েশিয়ায় ছিলেন। কখনো তামান্নার বাড়িতে আসেননি। তামান্না দু’বার স্বামী সাদ্দাম হোসেনের বাড়িতে গিয়েছিল। এক বছর আগে তামান্না খাতুন তার ফেসবুকে বিয়ে হওয়া স্বামী সাদ্দাম হোসেনকে ডিভোর্স দিয়ে দেয়। এদিকে স্বামী বিদেশে থাকায় সাতক্ষীরার ফরহাদ হোসেন নামক এক যুুবকের সাথে প্রেম সম্পর্ক গড়ে ওঠে তামান্নার। পরে ফরহাদ হোসেনের সাথে প্রেমের সূত্রে বিয়ে দ্বিতীয় বিয়ে করেন তামান্না খাতুন।

আগুনে দগ্ধ তামান্নার ছোটবোন রুমানা খাতুন জানান, সন্ধ্যায় আপু ও ফরহাদ সরদার বাড়ির পেছনে নদীর পাড়ে ঘুরতে গিয়েছিলেন। আপুর সমস্ত শরীর পুড়ে গেছে। আপু ও দুলাভাই বাড়িতে এসে বাঁচাও বলে চিৎকার করতে থাকে।
স্থানীয় শেখ রবিউল ইসলামের ছেলে মিলন শেখ জানান, তামান্নার গায়ের জামাকাপড়সহ পুরো শরীর পুড়ে ঝলসে গেছে। দুলাভাই-এর হাতের কিছু অংশ পুড়ে গেছে। আগুনে দগ্ধ তামান্নার বাবা শেখ আব্দুল হক জানান, মেয়ে জানিয়েছে সাদ্দাম তার গায়ে আগুন জ্বালিয়ে দিয়েছে। আমার মেয়েকে হত্যার চেষ্টা চালিয়েছে ওই সাদ্দাম। আমি থানায় অভিযোগ দিয়েছি। আমি তার বিচার চাই।

পাটকেলঘাটা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কাঞ্চন কুমার রায় বলেন, মেয়েটির সাবেক প্রেমিক মালয়েশিয়া প্রবাসী এই ঘটনা ঘটিয়েছেন বলে অভিযোগ করছে পরিবারটি। মেয়েটির গায়ে পেট্রোল দিয়ে আগুন জ্বালিয়ে দেওয়া হয়েছে। পুলিশ আসামিকে গ্রেফতারসহ রহস্য উদঘাটনে চেষ্টা করছে।

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles