30.6 C
Toronto
রবিবার, আগস্ট ৭, ২০২২

নিরাপদ মনে হলেই জেঅ্যান্ডজের ভ্যাকসিন ছাড়

- Advertisement -

নিরাপদ মনে হলেই জেঅ্যান্ডজের ভ্যাকসিন ছাড়

জেঅ্যান্ডজের ভ্যাকসিনের জন্য একটি উপাদন মেরিল্যান্ডের বাল্টিমোরে ইমার্জেন্ট বায়োসলিউশন্সে উৎপাদিত হয়। এরপর তা যুক্তরাষ্ট্রের বাইরে আলাদা একটি প্ল্যান্টে পাঠানো হয়, যা দিয়ে চূড়ান্ত ভ্যাকসিন উৎপাদন হয়। প্ল্যান্টটিতে পরিচ্ছন্নতা, জীবানুমুক্তকরণের ঘাটতি ও সম্ভাব্য দূষণের মতো একাধিক ত্রুটি যুক্তরাষ্ট্রের খাদ্য ও ওষুধ প্রশাসনের (এফডিএ) নজরে আসে। এসব ত্রুটি সংশোধন না করা পর্যন্ত জনসন অ্যান্ড জনসনের আর কোনো ভ্যাকসিন প্ল্যান্টটিতে উৎপাদন না করার নির্দেশ দেয় এফডিএ। এর ফলে দেড় কোটি ডোজ ভ্যাকসিন নষ্ট হয়। এদিকে, জনসন অ্যান্ড জনসনের কাছ থেকে পাওয়া প্রথম ব্যাচের তিন লাখ ডোজ ভ্যাকসিন এখনই ব্যবহার না করার কথা ভাবছে হেলথ কানাডা। যুক্তরাষ্ট্রের যে প্ল্যান্টে অ্যাস্ট্রাজেনেকার ভ্যাকসিন নষ্ট হয়েছিল সেই একই প্ল্যান্টে এসব ভ্যাকসিন উৎপাদিত হওয়ায় এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে সংস্থাটি।

এ প্রসঙ্গে হেলথ কানাডা শুক্রবার এক বিবৃতিতে বলেছে, ভ্যাকসিনগুলোর বিষয়ে জ্যানসেন ও এফডিএর সঙ্গে কাজ করছে তারা। নিরাপদ মনে হওয়ার পরই কেবল এগুলো ছাড় করা হবে। তবে একই প্ল্যান্ট থেকে অ্যাস্ট্রাজেনেকার যে ১৫ লাখ ডোজ ভ্যাকসিন মার্চের শেষ দিকে কানাডায় পাঠানো হয় তাকে নিরাপদ বলে মনে করছে হেলথ কানাডা।

সংস্থাটির বিবৃতি অনুযায়ী, ইমার্জেন্ট প্ল্যান্টে উৎপাদিত উপাদন জ্যানসেনের প্রাথমিক ভ্যাকসিন তৈরিতে ব্যবহার করা হয়েছে বলে হেলথ কানাডা অবগত হয়েছে। গত ২৮ এপ্রিল ভ্যাকসিনের চালানটি কানাডায় পৌঁছেছে।

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles