13.1 C
Toronto
বুধবার, মে ২৫, ২০২২

গভীর রাতে সাবেক স্ত্রীর কাছে গিয়ে গণপিটুনিতে খুন যুবক, বর্তমান স্বামীসহ সেই নারী আটক

- Advertisement -
গভীর রাতে সাবেক স্ত্রীর কাছে গিয়ে গণপিটুনিতে খুন যুবক, বর্তমান স্বামীসহ সেই নারী আটক - The Bengali Times
নিহত যুবকের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

গাইবান্ধার সদর উপজেলায় সাবেক স্ত্রীর সাথে দেখা করতে গিয়ে ডাকাত সন্দেহে সাকোয়াত হোসেন (৩২) নামে এক যুবককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত সাবেক স্ত্রী শিউলী বেগম ও তার বর্তমান স্বামী বায়েজিদ ইসলামকে আটক করেছে পুলিশ। আটক শিউলী বেগম (২২) সদর উপজেলার খোলাহাটি ইউনিয়নের আনালের তাড়ি গ্রামের সৈয়দ আলীর মেয়ে ও তার বর্তমান স্বামী বায়োজিত ইসলাম (২৪) একই গ্রামের আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে।

বৃহস্পতিবার (১৭ মার্চ) ভোর রাতে গাইবান্ধা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয় সাকোয়াত হোসেনের। এরআগে, বুধবার গভীর রাতে খোলাহাটি ইউনিয়নের দক্ষিণ আনালের তাড়ি গ্রামে সাকোয়াতকে পিটিয়ে আহত করার ঘটনা ঘটে। নিহত সাকোয়াত হোসেন গাইবান্ধা জেলা শহরের সরকার পাড়ার আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে।

- Advertisement -

পুলিশ ও নিহতের স্বজনরা জানায়, দুই বছর আগে সাকোয়াত হোসেনের সঙ্গে শিউলী বেগমের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে তাদের দুজনের মধ্যে কলহ চলছিল। এক পর্যায়ে তাদের বিবাহ বিচ্ছেদ হয়ে যায়। এরপর শিউলি বেগম একই গ্রামের বায়োজিত ইসলামকে বিয়ে করেন। কিন্তু তালাক দেয়ার পরেও তাদের মধ্যে গোপন সম্পর্ক ছিল বলে জানা গেছে।

এই সম্পর্কের সূত্র ধরেই বুধবার রাতে সাকোয়াত গোপনে সাবেক স্ত্রী শিউলীর সাথে দেখা করতে তার স্বামী বায়োজিদ ইসলামের বাড়িতে যায়। কিন্তু তার উপস্থিতিতে বাড়িতে ডাকাত এসেছে বলে চিৎকার করে ঘরে থাকে বায়োজিদসহ পরিবারের লোকজন। তাৎক্ষণিক আশপাশের লোকজন ছুটে এসে সাকোয়াতকে আটক করে। এসময় তাদের এলোপাতারি মারধরে সাকোয়াত গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়ে। পরে তাকে উদ্ধার করে গাইবান্ধা হাসপাতালে রেখে যায় পালিয়ে যায় সাবেক স্ত্রী শিউলি ও স্বামী বায়োজিদসহ তাদের স্বজনরা।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরির্দশন করেছে সদর থানা পুলিশের উপ-পরির্দশক (এসআই) মনিরুজ্জামান। তিনি জানান, ডাকাত সন্দেহে সাকোয়াতকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় জড়িত সাবেক স্ত্রী শিউলিসহ তার স্বামী বায়োজিদকে আটক করা হয়েছে। তবে পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে জড়িত কয়েকজন পালিয়ে যায়। ঘটনাটি তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানান তিনি।

বিষয়টি স্বীকার করে গাইবান্ধা সদর থানার (ওসি) মো. মাসুদার রহমান জানান, নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। ঘটনায় জড়িত আটক দুইজনকে পুলিশ হেফাজতে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। মামলা হলে আইনী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles