24.8 C
Toronto
শুক্রবার, জুলাই ১, ২০২২

ইউক্রেন যুদ্ধের জেরে রাশিয়ার সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করেছে যেসব প্রযুক্তি কোম্পানি

- Advertisement -

ইউক্রেন যুদ্ধের জেরে রাশিয়ার সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করেছে যেসব প্রযুক্তি কোম্পানি - The Bengali Times

ইউক্রেনে হামলার প্রতিবাদে রাশিয়ার সঙ্গে ব্যবসা বন্ধ করে দিচ্ছে একের পর এক প্রযুক্তি কোম্পানি।

মস্কোর ওপর বেশ কিছু অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে পশ্চিমা দেশগুলো। এরপরই অনেক কোম্পানি রাশিয়ায় বিক্রি বা সেবা সীমিত করার ঘোষণা দিয়েছে।

আসুন দেখে নেয়া যাক উল্লেখযোগ্য কোন কোন প্রযুক্তি কোম্পানি এখন পর্যন্ত রাশিয়ার সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করেছে।

অ্যামাজন
অ্যামাজন ডটকম ইউক্রেনকে সহায়তা দেওয়ার অংশ হিসেবে বিভিন্ন কোম্পানি ও সরকারগুলোকে প্রয়োজনীয় সাপ্লাই ও সাইবার নিরাপত্তা পরামর্শ দিচ্ছে। বুধবার টুইটারে এ তথ্য জানান প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নির্বাহী অ্যান্ডি জেসি।

রাশিয়া ইউক্রেনে হামলা চালানোর পর তিনি বলেন, ‘অ্যামাজন ইউক্রেনের মানুষের সঙ্গে আছে, এবং সাহায্য অব্যাহত রাখবে।’

এ সপ্তাহের শুরুতে অ্যামাজন ইউক্রেনে মানবিক সহায়তা হিসেবে ১০ মিলিয়ন ডলার অনুদানের প্রতিশ্রুতি দিয়েছে।

অ্যাপল
অ্যাপল রাশিয়ায় তাদের সমস্ত পণ্যের বিক্রি বন্ধ করে দিয়েছে। কারণ হিসেবে উল্লেখ করেছে, রাশিয়ার হামলা নিয়ে তারা গভীরভাবে উদ্বিগ্ন এবং সহিংসতার ফলে দুর্দশায় পড়া মানুষের পক্ষে আছে তারা।

এছাড়া অ্যাপল পে-র মতো ডিজিটাল সেবায় রাশিয়ানদের প্রবেশাধিকারের ওপরও বাধানিষেধ আরোপ করেছে অ্যাপল। সেইসঙ্গে রাশিয়ান গণমাধ্যম আরটি নিউজ ও স্পুটনিককেও রাশিয়ার বাইরে অ্যাপ স্টোরে ব্লক করে দিয়েছে।

ইউক্রেনেও অ্যাপল ম্যাপসে ট্র্যাফিক ও লাইভ ঘটনা বন্ধ করে দিয়েছে। তাদের আশঙ্কা, এসব টুল ব্যবহার করে রাশিয়া নির্দিষ্ট কিছু স্থানকে টার্গেট করতে পারে।

গুগল
অ্যালফাবেটের মালিকানাধীন কোম্পানিটি তাদের প্ল্যাটফর্মগুলোতে রাশিয়ান রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যমের বিজ্ঞাপন প্রচারও নিষিদ্ধ করেছে। এছাড়া আরটি ও স্পুটনিকের সঙ্গে যুক্ত মোবাইল অ্যাপকেও ব্লক করা হয়েছে প্লেস্টোর থেকে। গুগল নিউজ থেকে এসব সংবাদ মাধ্যমের খবর সরিয়ে ফেলেছে। এবং ইউরোপে ইউটিউবে আরটি ও স্পুটনিককে ব্যান করেছে।

অ্যাপলের মতোই গুগল ম্যাপ থেকেও বেশ কিছু লাইভ ট্র্যাফিক ও ঘটনা নিষ্ক্রিয় করে দেয়া হয়েছে।

গুগলের সার্চ ও ম্যাপস টুলেও এখন জাতিসংঘের শরণার্থী সাহায্যের খবরাখবর জানাচ্ছে ইউক্রেনের শরণার্থী ও আশ্রয়প্রার্থীদের।

তবে রাশিয়ায় গুগল সার্চ, ম্যাপস ও ইউটিউব এখনও চালু রয়েছে। গুগলের দাবি, রাশিয়ান জনগণকে বৈশ্বিক তথ্য ও দৃষ্টিভঙ্গি সম্পর্কে জানার সুযোগ করে দিতেই দেশটিতে এখনও এসব সেবা চালু রাখা হয়েছে।

মেটা (ফেসবুক ও ইনস্টাগ্রাম)
সোমবার মেটা ঘোষণা দিয়েছে যে আরটি ও স্পুতনিকের কোনো ফেসবুক পেজ ও ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টেই ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন থেকে প্রবেশ করা যাবে না।

ফেসবুকের মাতৃ-কোম্পানিটি আরও জানিয়েছে যে, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার মাধ্যমে তৈরি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম গ্রুপ ও পেজের একটি নেটওয়ার্ক ভেঙে দিয়েছে তারা। মেটা বলছে, এই নেটওয়ার্কটি ভুয়া প্রোফাইলের মাধ্যমে ইউক্রেনে মিথ্যা তথ্য ছড়াচ্ছিল।

টুইটার
টুইটারও ইউরোপে আরটি ও স্পুটনিকের অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দিয়েছে।

এখন ইউরোপীয় ইউনিয়নের ২৭টি সদস্যদেশ থেকে এই দুটি সংবাদ সংস্থার টুইটার অ্যাকাউন্টে ঢোকা যাচ্ছে না।

এ দুটি অ্যাকাউন্টে ঢোকার চেষ্টা করলেই লেখা উঠছে ‘অ্যাকাউন্ট উইথহেল্ড’। আরটি ও স্পুটনিক উভয়ের বিরুদ্ধেই ইইউ ক্ষতিকর মিথ্যা তথ্য ছড়ানোর অভিযোগ এনেছে।

টিকটক
ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম ও টুইটারের পথ ধরে টিকটকও ইইউভুক্ত দেশগুলোতে আরটি ও স্পুটনিককে ব্লক করে দিয়েছে।

স্ন্যাপচ্যাট
স্ন্যাপচ্যাটের মূল প্রতিষ্ঠান স্ন্যাপ রাশিয়া, বেলারুশ ও ইউক্রেনে সব ধরনের বিজ্ঞাপন প্রচার বন্ধ করে দিয়েছে। রাশিয়ার রাষ্ট্রমালিকানাধীন কোনো প্রতিষ্ঠান থেকে আয় গ্রহণ করছে বলে জানিয়েছে স্ন্যাপ।

এছাড়া ইউক্রেনে মানবিক সহায়তা হিসেবে ১৫ মিলিয়ন ডলার অনুদানের ঘোষণা দিয়েছে কোম্পানিটি।

মাইক্রোসফট
মঙ্গলবার মাইক্রোসফট তাদের উইন্ডোজ অ্যাপ স্টোর থেকে আরটি নিউজ অ্যাপ সরিয়ে দেওয়ার কথা জানায়। মাইক্রোসফট আরও বলে, তারা আরটি ও স্পুটনিকের কোনো কনটেন্ট দেখাবে না এবং বিং-এ এই দুটি সংবাদমাধ্যমের সার্চ রেজাল্টের র‍্যাংকিং নিচের দিকে নামিয়ে দেবে।

কোম্পানিটি জানিয়েছে, তারা নিজেদের বিজ্ঞাপন নেটওয়ার্ক থেকে আরটি ও স্পুটনিকের সমস্ত বিজ্ঞাপন সরিয়ে নেবে এবং একইভাবে তাদের কোনো বিজ্ঞাপন এসব সংবাদমাধ্যমের ওয়েবসাইটে দেবে না।

নেটফ্লিক্স
জানা গেছে, নেটফ্লিক্স তাদের সমস্ত ভবিষ্যৎ রাশিয়ান প্রজেক্ট ও অধিগ্রহণ বন্ধ করে দিয়েছে।

ভ্যারাইটির তথ্যানুসারে, স্ট্রিমিং সার্ভিসটি বর্তমান ঘটনাপ্রবাহের প্রভাব মূল্যায়ন করছে এবং চারটি রাশিয়ান অরিজিনাল সিরিজ স্থগিত করে দিয়েছে।

স্পটিফাই
অডিও স্ট্রিমিং জায়ান্ট স্পটিফাই তাদের রাশিয়ান অফিস বন্ধ করে দিয়েছে। এছাড়া রাশিয়ান রাষ্ট্রমালিকানাধীন সংবাদমাধ্যম আরটি ও স্পুটনিকের সমস্ত কনটেন্ট সরিয়ে ফেলেছে। ‘বিনা উসকানিতে’ মস্কোর ইউক্রেনে হামলার প্রতিবাদে এ ব্যবস্থা নিয়েছে বলে জানিয়েছে স্পটিফাই।

নকিয়া
ফিনিশ কোম্পানিটি মঙ্গলবার জানায়, তারা রাশিয়ায় ডেলিভারি বন্ধ করে দেবে। নকিয়া সাধারণত রাশিয়ায় এমটিএস, ভিম্পেলকম, মেগাফোন ও টেলি২ সরবরাহ করে।

নকিয়ার একজন মুখপাত্র ইউরোনিউজ নেক্সটকে বলেন, ‘আমাদের দৃষ্টিভঙ্গি হচ্ছে, আমাদের কর্মীদের নিরাপত্তা সবার আগে।’

ইউক্রেনের পশ্চিমাঞ্চলে, হাঙ্গেরি সীমান্তের খুব কাছেই নকিয়ার কিছু উৎপাদন কেন্দ্র রয়েছে। নকিয়া সক্রিয়ভাবে পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছে বলে জানান প্রতিষ্ঠানটির মুখপাত্র।

এরিকসন
সুইডিশ টেলিকম জায়ান্ট এরিকসনও রাশিয়ার ক্রেতাদের কাছে সব ডেলিভারি বাতিল করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। প্রতিষ্ঠানটি ইউক্রেনের পরিস্থিতি পর্যালোচনা করছে।

ওরাকল
বিজনেস সফটওয়্যার জানায়ট ওরাকল বুধবার এক টুইট বার্তায় জানিয়েছে, তারা ইতিমধ্যে রাশিয়ায় সব ধরনের কার্যক্রম বন্ধ করে দিয়েছে।

চলমান সংঘাতের সুরাহা হওয়ার আগ পর্যন্ত রাশিয়ায় ব্যবসা বন্ধ রাখার ইউক্রেনের ভাইস প্রেসিডেন্টের আহ্বানের পরপরই এ টুইট করে প্রতিষ্ঠানটি।

এসএপি
ওরাকলের জার্মান প্রতিদ্বন্দ্বী এসএপিও রাশিয়ায় তাদের পণ্য ও সেবা বিক্রি বন্ধের কথা জানিয়েছে।

বুধবার এক ব্লগ পোস্টে কোম্পানিটিবলে, ‘বাকি বিশ্বের মতো আমরাও ইউক্রেনের যুদ্ধ আতঙ্ক ও নিন্দার সঙ্গে প্রত্যক্ষ করছি এবং এই হামলার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি।’

সূত্র: ইউরোনিউজ ডটকম

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles