8.4 C
Toronto
বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ২৮, ২০২১

সুস্থ থাকুন, ভালো থাকুন

- Advertisement -
ছবি/সেন্ট জোসেফ হাসপাতাল

গত শুক্রবার সকাল থেকে, প্রচন্ড পেটের ব্যথাজনিত কারণে আমি হাসপাতালে আছি।

আপনাদের অনেকেই হয়তো জানেন আজ থেকে প্রায় ১০ বছর আগে আমার একটি বড়ো সার্জারি হয়েছিল (wipple)। সেই সার্জারির আগে একবার এরকম ব্যথা হয়েছিল কিন্তু ব্যথাটি এতো লম্বা সময় ছিল না। ওই সার্জারির পর অনেকেরই এমনি মাঝে মধ্যে ব্যাথা হয়ে থাকে যেটি ওষুধ দিয়ে কন্ট্রোল করা হয়, কিন্তু আল্লাহর রহমতে আমার গত শুক্রবারের আগে কখনো হয়নি।

- Advertisement -

ব্যথা শুরু হলে যখন ২/১ ঘন্টায় উপশম হচ্ছিলো না তখন আমি অ্যাম্বুলেন্স কল করে সেন্ট জোসেফ হাসপাতালে যাই। হাসপাতাল খুব ব্যস্ত ছিল তাই ডাক্তার দেখার পরেও আমাকে ২/৩ ঘন্টা প্রপার ব্যথার ঔষধের জন্য অপেক্ষা করতে হয়। আপনাদেরকে ব্যথার ধারণা দিলে সেটি হবে ১ থেকে ১০ স্কেলের মধ্যে আমার ব্যথা ছিল ১০. ডাক্তার এবং স্পেশালিস্টরা যথাসাধ্য চেষ্টা করেছেন আমাকে সাহায্য করার। তারপরেও বেড পেতে পেতে রাত ১০টার মতো বেজে যায়। ওষুধে ব্যথা কিছুটা কন্ট্রোলে আসলেও শনিবার সকালের আগে খুব ভালোভাবে ব্যাথা যায়নি। এই সময় পর্যন্ত আমার অবস্থা কাউকে ফোন করার মতো বা টেক্সট করার মতো ছিল না।

ওরা আমার সমস্ত খাওয়াদাওয়া বন্ধ করে দেয়, শুধু মাত্র ফ্লুইড জাতীয় তরল জিনিস আইভীর মাধ্যমে দিছিলো, এবং এখনো চলছে। এর মধ্যে দুদিন কোনো প্রস্রাব/পায়খানা হয়নি ফলে পেট অনেকটা ফুলে যায়। যাহোক এপর্যন্ত ৬/৭ জন স্পেশালিস্ট দেখেছেন। গতকাল সকাল থেকে প্রস্রাব শুরু হলে বেশ ভালো লাগে। আর ব্যাথার পরিমান এখন ৪-৫ এর মধ্যে ঠিক মেডিকেশনের নেওয়ার আগে মুহূর্ত পর্যন্ত। আর মেডিকেশন দিলে একেবারেই ব্যাথা থাকে না। কালকে ইন্টারনাল মেডিসিনের ডাক্তার বললেন আজ থেকে উনি কিছু কিছু নরমাল ডায়েট শুরু করে দেখবেন। তবে আজ সকালে প্রথম কিছুটা খিদে ফিল হয় এবং কিছু নাস্তা করি। তার কিছুক্ষন পরে পায়খানা হয় কোনো ধরণের কনস্টিপেশন ছাড়াই, এবং তাতে পেটটা অনেক হালকা হয় এবং ভালো লাগে। দুপুরে এই প্রথম ওরা সলিড/নরমাল খাবার দিলো এবং আল্লাহর রহমতে খেতে পেরেছি।

- Advertisement -

Pain Medication ওরা লিকুইড থেকে এখন পিল ফর্মে দিচ্ছে এবং খুব স্ট্রং না। এভাবে আরো ২/১দিন দেখবে তারপর আরো একটি সিটি স্ক্যান করে সব ঠিক থাকলে হয়তো বাসায় যেতে দিবে। এই প্রথম আমি লেপটপটা নিয়ে বসতে পারলাম। আজ মঙ্গলবার, এখন বিকা ৫টার মতো বাজে। ব্যথার কোনো স্পেসিফিক কারণ নেই, হতে পারে ভাইরাল ইনফেকশন, সার্জিকাল রিলেটেড কোনো মেকানিক্যাল সমস্যা অথবা এমনিতেই হতে পারে। তবে এতো প্রচন্ড ব্যথা এতো সময় ধরে আমার সার্জারির আগে কখনো হয়নি। সর্বপ্রথম আমার কৃতজ্ঞতা পরমকরুণাময় আল্লাহর কাছে, যদিও এখনো ১০০% সুস্থ না তবুও যতটুকু ভালো লাগছে সেটি অনেক। তারপর আমার কৃতজ্ঞতা সেন্ট জোসেফ হাসপাতালের প্যারামেডিক থেকে শুরু করে ডাক্তার, নার্স, ক্লিনার কুক এবং প্রশাসনিক লোকজনের প্রতি। এই পান্ডামিকের তান্ডবের মধ্যে তারা আমাকে যে ওয়ার্ল্ড ক্লাস ট্রিটমেন্ট দিয়ে আসছেন সেটি অবর্ণনীয়।

- Advertisement -

আমার অবস্থা কারোর সাথে যোগাযোগ করার মতো ছিল না। আমার স্ত্রী, প্রিয় ভাতিজা এবং তার বাবা যতটা পেরেছে সবাইকে আপডেট করেছে। শনিবার আমি কিছুটা কথা বলার মতো অবস্থা ফিল করলে মাত্র কয়েকজনকে শুধু মেসেঞ্জারে তাদের মেসেজের উত্তর দিয়েছি। এছাড়া কানাডা, বাংলাদেশ, ইউরোপ, আমেরিকা এবং ইংল্যান্ডের অগণিত মানুষের ভয়েস মেসেজ, sms, মেসেঞ্জের মেসেজ ইত্যাদির আমি কোনো উত্তর দিতে পারিনি। তবে আমার স্ত্রি, ভাই এবং ভাতিজা ছাড়া বেশকিছু শুভাকাঙ্খী তাদের নিজ দায়িত্বে সার্বক্ষণিক আমার ব্যাপারে পরিচিত জনদের আপডেট করে আসছেন। এদের মধ্যে তারেক, জাকারিয়া ভাই, হাসান ভাই, টোকন ভাই এর নাম না নিলেই নয়

এখনো পর্যন্ত অনেক অনেক শুভাকাংখীর ফোন বা মেসেজের উত্তর আমি দিতে পারি নাই। আর একটু সুস্থ হলে আস্তে আস্তে আপনাদের সাথে কথা বলবো। আমি জানিনা জীবন আমাকে কোনদিকে নিয়ে যাবে, infect আমরা কেউই জানি না। তবে দুইটা ব্যাপারে আমি খুবই হোপফুল। একটি হলো আমার আল্লাহ, আপনাদের কারো কাছে ঈশ্বর বা ভগমান এর উপর ভরসা এবং আপনাদের মতো খোলামনের মানুষের সার্বক্ষণিক দোয়া। জীবনের চাওয়া পাওয়া নিয়ে কোনো আপসোস নেই, আপনাদের wellwishes এবং ভালোবাসা সেগুলির অনেককিছুই পূরণ করেছে।

আমি ব্যক্তিগতভাবে আমার বাবামার আদর্শকে তুলে ধরতে কিছু কিছু কাজ ছাড়া কারো জন্য তেমন কিছুই করতে পারি নাই। তবে আপনাদের কাছথেকে পাওয়া অনেক। পরমকরুণাময় আপনাদের সবার মঙ্গোল করুন। আর আমার উপর দিয়ে যে ঝড় গেছে তা যেন আমার শত্রু বা মিত্র কারোর উপরদিয়ে না যায়।

আপনাদের অনেকেই আমার জন্য বাসায় বসে, মসজিদে, মন্দিরে বা গির্জায় গিয়ে প্রাথনা করেছেন আপনাদের ব্যাস্ততম সময়ের মধ্যে থেকে সময় বের করে।

সবাই ভালো থাকেন, সুস্থ থাকেন। কোভিদ সংক্রান্ত নিয়মকানুন মেনে চলুন, টিকা না নেওয়া থাকলে নিয়ে নিন।

টরন্টো, কানাডা

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles